ঢাকা , বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
উচ্ছ্বাস আর আনন্দে বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখের উদযাপন করেছে পর্তুগাল যথাযথ গাম্ভীর্যের মধ্যে দিয়ে পরিবেশে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর পালন করেছে ভেনিস প্রবাসীরা ভেনিসে বৃহত্তর সিলেট সমিতির আয়োজনে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত এক অসুস্থ প্রজন্ম কে সাথি করে এগুচ্ছি আমরা রিডানডেন্ট ক্লোথিং আর মজুর মামার ‘বিশ্বকাপ’ ইউরোপের সবচেয়ে বড় ঈদুল ফিতরের নামাজ পর্তুগালে অনুষ্ঠিত হয় বর্ণাঢ্য আয়োজনে পর্তুগাল বাংলা প্রেসক্লাবের ইফতার ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন ঈদের কাপড় কিনার জন্য মা’য়ের উপর অভিমান করে মেয়ের আত্মহত্যা লিসবনে বন্ধু মহলের আয়োজনে বিশাল ইফতার ও দোয়া মাহফিল মান অভিমান ভুলে সবাই একই প্লাটফর্মে,সংবাদ সম্মেলনে পর্তুগাল বিএনপির নবগঠিত আহবায়ক কমিটি

সুদের হার কমল রপ্তানি ঋণে

নিউজ ডেস্ক
  • আপডেটের সময় : ০৭:৪২ অপরাহ্ন, বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯
  • / ৩৭৬ টাইম ভিউ

রপ্তানি উন্নয়ন তহবিলের (ইডিএফ) আকার বাড়ানোর পর এবার এ তহবিলের ঋণের সুদের হার কমাল কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

এখন রপ্তানিকারকরা লন্ডন আন্তঃব্যাংক হারের (লাইবর) সঙ্গে ১ দশমিক ৫০ শতাংশ সুদে ব্যাংক থেকে এ ঋণ নিতে পারবেন, যার জন্য আগে লন্ডন আন্তঃব্যাংক হারের (লাইবর) সঙ্গে ২ দশমিক ৫০ শতাংশ সুদ দিতে হতো। ব্যাংকগুলোর জন্যও ইডিএফ তহবিলের ঋণের সুদের হার কমানো হয়েছে।

রপ্তানি বাণিজ্য বাড়াতে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) বাংলাদেশ ব্যাংকের এক প্রজ্ঞাপনে জানানো হয়েছে। এ তহবিল থেকে অর্থ নিতে আগে ব্যাংকগুলোকে লন্ডন আন্তঃব্যাংক হারের (লাইবর) সঙ্গে আরো ১ শতাংশ সুদ দিতে হতো। এটা কমিয়ে দশমিক ৫০ শতাংশ নির্ধারণ করা হয়েছে।

এই সুদহার আগামী বছর ৩০ জুন পর্যন্ত কার্যকর থাকবে বলে প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে। গত ২৭ ফেব্রুয়ারি রপ্তানি উন্নয়ন তহবিলের আকার ৫০ কোটি ডলার বাড়িয়ে ৩৫০ কোটি ডলার করা হয়। রপ্তানি খাতে সহায়তা দিতে ১৯৮৯ সালে মাত্র তিন কোটি ডলার দিয়ে ইডিএফের যাত্রা শুরু হয়। দফায় দফায় বাড়িয়ে এই তহবিলের পরিমাণ এখন ৩৫০ কোটি ডলারে দাঁড়িয়েছে।

ব্যাংকগুলো কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ইডিএফ থেকে ঋণ নিয়ে সেই অর্থ আবার রপ্তানিকারকদের দিয়ে থাকে। এ তহবিলের ঋণের হার সাধারণ ঋণের হারের চেয়ে বেশ কম বলে রপ্তানিকারক এই ফান্ড থেকে ঋণ নিতে চান। বিজিএমইএ বা বিটিএমএর সদস্য বস্ত্র বা তৈরি পোশাকের একজন রপ্তানিকারক তহবিলটি থেকে সর্বোচ্চ আড়াই কোটি (২৫ মিলিয়ন) ডলার ঋণ নিতে পারেন।

এ ছাড়া চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য, সিরামিক, ওষুধসহ বিভিন্ন খাতের রপ্তানিকারকরাও এ তহবিল থেকে ঋণ সুবিধা পেয়ে থাকে।

পোস্ট শেয়ার করুন

সুদের হার কমল রপ্তানি ঋণে

আপডেটের সময় : ০৭:৪২ অপরাহ্ন, বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯

রপ্তানি উন্নয়ন তহবিলের (ইডিএফ) আকার বাড়ানোর পর এবার এ তহবিলের ঋণের সুদের হার কমাল কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

এখন রপ্তানিকারকরা লন্ডন আন্তঃব্যাংক হারের (লাইবর) সঙ্গে ১ দশমিক ৫০ শতাংশ সুদে ব্যাংক থেকে এ ঋণ নিতে পারবেন, যার জন্য আগে লন্ডন আন্তঃব্যাংক হারের (লাইবর) সঙ্গে ২ দশমিক ৫০ শতাংশ সুদ দিতে হতো। ব্যাংকগুলোর জন্যও ইডিএফ তহবিলের ঋণের সুদের হার কমানো হয়েছে।

রপ্তানি বাণিজ্য বাড়াতে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) বাংলাদেশ ব্যাংকের এক প্রজ্ঞাপনে জানানো হয়েছে। এ তহবিল থেকে অর্থ নিতে আগে ব্যাংকগুলোকে লন্ডন আন্তঃব্যাংক হারের (লাইবর) সঙ্গে আরো ১ শতাংশ সুদ দিতে হতো। এটা কমিয়ে দশমিক ৫০ শতাংশ নির্ধারণ করা হয়েছে।

এই সুদহার আগামী বছর ৩০ জুন পর্যন্ত কার্যকর থাকবে বলে প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে। গত ২৭ ফেব্রুয়ারি রপ্তানি উন্নয়ন তহবিলের আকার ৫০ কোটি ডলার বাড়িয়ে ৩৫০ কোটি ডলার করা হয়। রপ্তানি খাতে সহায়তা দিতে ১৯৮৯ সালে মাত্র তিন কোটি ডলার দিয়ে ইডিএফের যাত্রা শুরু হয়। দফায় দফায় বাড়িয়ে এই তহবিলের পরিমাণ এখন ৩৫০ কোটি ডলারে দাঁড়িয়েছে।

ব্যাংকগুলো কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ইডিএফ থেকে ঋণ নিয়ে সেই অর্থ আবার রপ্তানিকারকদের দিয়ে থাকে। এ তহবিলের ঋণের হার সাধারণ ঋণের হারের চেয়ে বেশ কম বলে রপ্তানিকারক এই ফান্ড থেকে ঋণ নিতে চান। বিজিএমইএ বা বিটিএমএর সদস্য বস্ত্র বা তৈরি পোশাকের একজন রপ্তানিকারক তহবিলটি থেকে সর্বোচ্চ আড়াই কোটি (২৫ মিলিয়ন) ডলার ঋণ নিতে পারেন।

এ ছাড়া চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য, সিরামিক, ওষুধসহ বিভিন্ন খাতের রপ্তানিকারকরাও এ তহবিল থেকে ঋণ সুবিধা পেয়ে থাকে।