ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
প্রিয়জনদের মানসিক রোগ যদি আপনজন বুঝতে না পারেন আওয়ামীলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা ও অভিষেক অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা করেছে পর্তুগাল আওয়ামীলীগ যেকোনো প্রচেষ্টা এককভাবে সম্পন্ন করা সম্ভব নয়: দুদক সচিব শ্রীমঙ্গলে দুটি চোরাই মোটরসাইকেল সহ মিল্টন কুমার আটক পর্তুগালের অভিবাসন আইনে ব্যাপক পরিবর্তন পর্তুগাল বিএনপি আহবায়ক কমিটির জুমে জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয় এমপি আনোয়ারুল আজিমকে হত্যার ঘটনায় আটক তিনজন , এতে বাংলাদেশী মানুষ জড়িত:স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকাস্থ ইরান দুতাবাসে রাইসির শোক বইয়ে মির্জা ফখরুলের স্বাক্ষর মুটো ফোনের আসক্তি দূর করবেন যেভাবে…

কুয়েতে আওয়ামী ফাউন্ডেশনের জাতীয় শোক দিবসে রাস্ট্রদূত, সাতভাগে বিভক্ত কুয়েতে আওয়ামীলীগ

নিউজ ডেস্ক
  • আপডেটের সময় : ০১:১১ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩১ অগাস্ট ২০১৯
  • / ৪৯৮ টাইম ভিউ

নিজস্ব প্রতিনিধি: ১৫ই আগষ্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম সাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উদ্দযাপন উপলক্ষে আওয়ামী ফাউন্ডেশন কুয়েতে উদ্যোগে হোটেল ডোয়াহি ফরওয়ানিয়াতে আয়োজন করা হয় আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল । বাংলাদেশ আওয়ামী ফাউন্ডেশনের সভাপতি রফিকুল ইসলাম ভুলু’র সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক নুর উদ্দিনের পরিচালনায় প্রধান অতিথি ছিলেন কুয়েতে নিযুক্ত গণপ্রজাতন্রী বাংলাদেশ সরকারের রাষ্ট্রদূত জনাব এস এম আবুল কালাম অনুস্টানে উপস্হিত ছিলেন কুয়েত আওয়ামীলীগ নেতা আতাউল গণি মামুন, সফিকুল আলম সফি, মোরশেদ আলম বাদল, আব্দুর রউফ মাওলা, হোসেন আহমেদ আজিজ, আব্দুল হাই ভূইয়া, গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী, নাজিম উদ্দিন চৌধুরী শেখ মোহাম্মদ নূরুল আফসার, শেখ খোরশেদ আলম প্রমুখ ।

দোয়া পরিচালনায় ছিলেন সহ সভাপতি, নূরুল আমিন চৌধুরী । উল্লেখ্য যদিও এই আগস্টে সাঁত ভাগে বিভক্ত কুয়েত আওয়ামীলীগ বিভিন্ন কার্যক্রমের মাধ্যমে জাতীয় শোকদিবস পালন করলেও চট্রগ্রাম উত্তর আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি কুয়েতে নিযুক্ত রাস্ট্রদূত এসএম আবুল কালাম খন্ডে খন্ডে বিভক্ত আওয়ামীলীগের কোন অংশের কোন অনুস্টানেই যেতে সম্মতি দেন নি । শুধুমাত্র আওয়ামী ফাউন্ডেশন প্রধান অতিথী হয়ে এসেছিলেন জাতীয় শোক দিবসের অনুস্টানে । রাস্টদূত কুয়েতে এসেই প্রথম পদক্ষেপ নিয়েছিলেন তিন ভাগে বিভক্ত আওয়ামীলীগ কে ঐক্যবদ্ধ করে শক্তিশালী আওয়ামীলীগ উপহার দিবেন প্রধান মন্ত্রী আওয়ামীলীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনা কে ,যেমন ঘোষনা থেমনি কাজ শুরু করে দেন তৎকনাৎ । কিন্তু তা আর হয়ে উঠেনি বরং তখন ছিলো তিনভাগ বর্তমানে হয়ে আছে সাঁত ভাগে বিভক্ত কুয়েত আওয়ামীলীগ । রাস্ট্রদূত বলেন দেশে এখন উন্নয়নের রোল মডেল হয়েছে , তাই সংগঠন কে আরো এগিয়ে নিতে হলে, শেখ হাসিনার হাতকে আরো শক্তিশালী করতে হলে ঐক্যবদ্ধভাবে সংগঠনকে সুসংগঠিত করতে হবে, সেজন্য কুয়েতে অবস্হানরত জাতীর পিতা শেখ মুজিব এর আর্দশের সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করুন ।

পোস্ট শেয়ার করুন

কুয়েতে আওয়ামী ফাউন্ডেশনের জাতীয় শোক দিবসে রাস্ট্রদূত, সাতভাগে বিভক্ত কুয়েতে আওয়ামীলীগ

আপডেটের সময় : ০১:১১ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩১ অগাস্ট ২০১৯

নিজস্ব প্রতিনিধি: ১৫ই আগষ্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম সাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উদ্দযাপন উপলক্ষে আওয়ামী ফাউন্ডেশন কুয়েতে উদ্যোগে হোটেল ডোয়াহি ফরওয়ানিয়াতে আয়োজন করা হয় আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল । বাংলাদেশ আওয়ামী ফাউন্ডেশনের সভাপতি রফিকুল ইসলাম ভুলু’র সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক নুর উদ্দিনের পরিচালনায় প্রধান অতিথি ছিলেন কুয়েতে নিযুক্ত গণপ্রজাতন্রী বাংলাদেশ সরকারের রাষ্ট্রদূত জনাব এস এম আবুল কালাম অনুস্টানে উপস্হিত ছিলেন কুয়েত আওয়ামীলীগ নেতা আতাউল গণি মামুন, সফিকুল আলম সফি, মোরশেদ আলম বাদল, আব্দুর রউফ মাওলা, হোসেন আহমেদ আজিজ, আব্দুল হাই ভূইয়া, গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী, নাজিম উদ্দিন চৌধুরী শেখ মোহাম্মদ নূরুল আফসার, শেখ খোরশেদ আলম প্রমুখ ।

দোয়া পরিচালনায় ছিলেন সহ সভাপতি, নূরুল আমিন চৌধুরী । উল্লেখ্য যদিও এই আগস্টে সাঁত ভাগে বিভক্ত কুয়েত আওয়ামীলীগ বিভিন্ন কার্যক্রমের মাধ্যমে জাতীয় শোকদিবস পালন করলেও চট্রগ্রাম উত্তর আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি কুয়েতে নিযুক্ত রাস্ট্রদূত এসএম আবুল কালাম খন্ডে খন্ডে বিভক্ত আওয়ামীলীগের কোন অংশের কোন অনুস্টানেই যেতে সম্মতি দেন নি । শুধুমাত্র আওয়ামী ফাউন্ডেশন প্রধান অতিথী হয়ে এসেছিলেন জাতীয় শোক দিবসের অনুস্টানে । রাস্টদূত কুয়েতে এসেই প্রথম পদক্ষেপ নিয়েছিলেন তিন ভাগে বিভক্ত আওয়ামীলীগ কে ঐক্যবদ্ধ করে শক্তিশালী আওয়ামীলীগ উপহার দিবেন প্রধান মন্ত্রী আওয়ামীলীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনা কে ,যেমন ঘোষনা থেমনি কাজ শুরু করে দেন তৎকনাৎ । কিন্তু তা আর হয়ে উঠেনি বরং তখন ছিলো তিনভাগ বর্তমানে হয়ে আছে সাঁত ভাগে বিভক্ত কুয়েত আওয়ামীলীগ । রাস্ট্রদূত বলেন দেশে এখন উন্নয়নের রোল মডেল হয়েছে , তাই সংগঠন কে আরো এগিয়ে নিতে হলে, শেখ হাসিনার হাতকে আরো শক্তিশালী করতে হলে ঐক্যবদ্ধভাবে সংগঠনকে সুসংগঠিত করতে হবে, সেজন্য কুয়েতে অবস্হানরত জাতীর পিতা শেখ মুজিব এর আর্দশের সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করুন ।