ঢাকা , বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
উচ্ছ্বাস আর আনন্দে বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখের উদযাপন করেছে পর্তুগাল যথাযথ গাম্ভীর্যের মধ্যে দিয়ে পরিবেশে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর পালন করেছে ভেনিস প্রবাসীরা ভেনিসে বৃহত্তর সিলেট সমিতির আয়োজনে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত এক অসুস্থ প্রজন্ম কে সাথি করে এগুচ্ছি আমরা রিডানডেন্ট ক্লোথিং আর মজুর মামার ‘বিশ্বকাপ’ ইউরোপের সবচেয়ে বড় ঈদুল ফিতরের নামাজ পর্তুগালে অনুষ্ঠিত হয় বর্ণাঢ্য আয়োজনে পর্তুগাল বাংলা প্রেসক্লাবের ইফতার ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন ঈদের কাপড় কিনার জন্য মা’য়ের উপর অভিমান করে মেয়ের আত্মহত্যা লিসবনে বন্ধু মহলের আয়োজনে বিশাল ইফতার ও দোয়া মাহফিল মান অভিমান ভুলে সবাই একই প্লাটফর্মে,সংবাদ সম্মেলনে পর্তুগাল বিএনপির নবগঠিত আহবায়ক কমিটি

স্ত্রীর লাশ হাসপাতালে ফেলে পালালেন কলেজ শিক্ষক

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ
  • আপডেটের সময় : ০২:০৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ৭ অগাস্ট ২০১৯
  • / ৪০৩ টাইম ভিউ

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ কুমিল্লা নগরীতে কলেজ শিক্ষক স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। এমনকি স্ত্রীর মরদেহ হাসপাতালে রেখে পালিয়ে গেছেন তিনি।

মঙ্গলবার নগরীর রানীর দীঘির পাড় এলাকার একটি ভাড়া বাসায় এ ঘটনা ঘটে।

গৃহবধূ হাফসার পরিবারের অভিযোগ, যৌতুকের দাবিতে স্বামী ও শাশুড়ি মিলে তাকে হত্যা করেছে। এক সন্তানের মা হাফসা আক্তার (২৩) জেলার সদর দক্ষিণ বড়তুলা মুন্সি বাড়ির প্রবাসী ওলিউল্লার মেয়ে। আর অভিযুক্ত গোলাম মাওলা ফারুক ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক।

হাফসার ছোট ভাই নাজমুল হাসান জানান, হাফসা আক্তার ও গোলাম মাওলা ফারুকের ৪ বছর আগে বিয়ে হয়। তাদের ৩ বছর বয়সী একটি ছেলে রয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরের দিকে তাদের কাছে খবর আসে হাফসা আক্তার ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। তার লাশ কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আছে। তারা হাসপাতালে পৌঁছে হাফসার মরদেহ দেখতে পান।

হাফসার মরদেহ ভুল ঠিকানায় হাসপাতালে এন্ট্রি করে স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির লোকজন পালিয়ে যান বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

হাফসার মা অভিযোগ করে বলেন, তার মেয়েকে স্বামী ও স্বামীর বাড়ির লোকজন বিভিন্ন সময় যৌতুকের দাবিসহ নানা অভিযোগে মারধর করত। বিভিন্ন সময় মেরে ফেলার হুমকিও দেয়া হয়েছে।

কোতয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আনোয়ারুল হক জানান, প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে এটি আত্মহত্যা। তবে মরদেহের ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসার পরই মৃত্যুর প্রকৃত কারণ সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যাবে।

পোস্ট শেয়ার করুন

স্ত্রীর লাশ হাসপাতালে ফেলে পালালেন কলেজ শিক্ষক

আপডেটের সময় : ০২:০৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ৭ অগাস্ট ২০১৯

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ কুমিল্লা নগরীতে কলেজ শিক্ষক স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। এমনকি স্ত্রীর মরদেহ হাসপাতালে রেখে পালিয়ে গেছেন তিনি।

মঙ্গলবার নগরীর রানীর দীঘির পাড় এলাকার একটি ভাড়া বাসায় এ ঘটনা ঘটে।

গৃহবধূ হাফসার পরিবারের অভিযোগ, যৌতুকের দাবিতে স্বামী ও শাশুড়ি মিলে তাকে হত্যা করেছে। এক সন্তানের মা হাফসা আক্তার (২৩) জেলার সদর দক্ষিণ বড়তুলা মুন্সি বাড়ির প্রবাসী ওলিউল্লার মেয়ে। আর অভিযুক্ত গোলাম মাওলা ফারুক ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক।

হাফসার ছোট ভাই নাজমুল হাসান জানান, হাফসা আক্তার ও গোলাম মাওলা ফারুকের ৪ বছর আগে বিয়ে হয়। তাদের ৩ বছর বয়সী একটি ছেলে রয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরের দিকে তাদের কাছে খবর আসে হাফসা আক্তার ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। তার লাশ কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আছে। তারা হাসপাতালে পৌঁছে হাফসার মরদেহ দেখতে পান।

হাফসার মরদেহ ভুল ঠিকানায় হাসপাতালে এন্ট্রি করে স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির লোকজন পালিয়ে যান বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

হাফসার মা অভিযোগ করে বলেন, তার মেয়েকে স্বামী ও স্বামীর বাড়ির লোকজন বিভিন্ন সময় যৌতুকের দাবিসহ নানা অভিযোগে মারধর করত। বিভিন্ন সময় মেরে ফেলার হুমকিও দেয়া হয়েছে।

কোতয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আনোয়ারুল হক জানান, প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে এটি আত্মহত্যা। তবে মরদেহের ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসার পরই মৃত্যুর প্রকৃত কারণ সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যাবে।