ঢাকা , মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
এমপি আনোয়ারুল আজিমকে হত্যার ঘটনায় আটক তিনজন , এতে বাংলাদেশী মানুষ জড়িত:স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকাস্থ ইরান দুতাবাসে রাইসির শোক বইয়ে মির্জা ফখরুলের স্বাক্ষর মুটো ফোনের আসক্তি দূর করবেন যেভাবে… এই অভ্যাসগুলোর চর্চা নিয়মিত করা উচিৎ স্বামী-স্ত্রীর বয়সের পার্থক্য থাকা জরুরি কেনো ? পুনাক এর উদ্যোগে দুস্হ ও অসহায় নারীদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরন করা হয়েছে কুলাউড়ার টিলাগাঁও এ সরকারি গাছ বিক্রি করলেন প্রধান শিক্ষক লটারি বাইক জিতলো মা’ সে কারণে কপাল পুড়লো মেয়ের ফজরের নামাজে যাওয়ার সময় রাস্তায় কুকুর দলের আক্রমনে প্রান গেলো ইজাজুলের সাবেক সাংসদ সেলিমা আহমাদ মেরীর সাথে পর্তুগাল আওয়ামিলীগের মতবিনিময় সভা

সৌদি আরবের কর্তব্য পালন করতে গিয়ে ৫জন ডাক্তারের মৃত্য

সৌদি প্রতিনিধি
  • আপডেটের সময় : ১১:৫৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ জুন ২০২০
  • / ২২৯ টাইম ভিউ

করোনা ভাইরাসের মহামারিতে সৌদি আরবের বিভিন্ন ক্লিনিক এবং হাসপাতালে কর্তব্য পালন করতে গিয়ে অন্তত পাঁচজন প্রবাসী বাংলাদেশি ডাক্তার প্রাণ হারিয়েছেন। করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে দেশ ও বিদেশের হাজারো মানুষের জীবন বাঁচানোর যুদ্ধে লড়াই করতে গিয়ে প্রাণ হারিয়েছেন ওই পাঁচ চিকিৎসক।
করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারানো ওই পাঁচ প্রবাসী চিকিৎসকের মধ্যে প্রথম মারা যান সাফা আল মদিনা পলি ক্লিনিক কর্মরত ৬২ বছর বয়সী ড. আফাক হোসাইন। গত মার্চের ৩১ তারিখে মারা যান তিনি। এরপর ১৯ মে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু বরণ করেন জেদ্দায় বিন লাদেন পলি ক্লিনিকে কর্মরত চিকিৎসক আব্দুর রহিম।
সম্প্রতি জুনেই মৃত্যু হয় আরও তিন সৌদি প্রবাসী চিকিৎসকের। ১৯ জুন প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস কেড়ে নেয় ড. মোহাম্মাদ শাফিউল্লাহর প্রাণ। ড. শফিউল্লাহ রিয়াদের কিং সালমান হাসপাতালে মেডিসিন বিভাগের একজন কনসালটেন্ট হিসেবে কর্মরত ছিলেন। এদিন দেশটির প্রিন্স সালমান হাসপাতালের আইসিইউ ওয়ার্ডে কর্মরত চিকিৎসক সিলেটেরে এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজের সাবেক ছাত্র ড. রনকও করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু বরণ করেন। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর তার অবস্থা খারাপ হতে থাকলে তখন তাকে নেওয়া হয় রিয়াদের আব্দুর রহমান করোনা ডেডিকেটেট হাসপাতালে। এরপর ১৯ জুন তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন।
মদিনায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে জীবন বিসর্জন দেয়া চিকিৎসকদের মধ্যে ১৬ জুন প্রাণ হারান ড. গোলাম মোস্তফা নামের আরেক প্রবাসী। ৩৪ বছর বয়সী ড. মোস্তফা মদিনার আগুল হেল্থ সেন্টারে কর্তব্যরত ছিলেন এবং তিনি সকল কাজ শেষ করে আর মাত্র চার মাস পরেই দেশে ফিরে আসতেন বলে জানা যায়। আর গত ১৩ জুন রিয়াদে করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারান ড. মো: আনোয়ার উল হাসান। তিনি রিয়াদের বদরুদ্দিন পলি ক্লিনিকে কর্তব্যরত ছিলেন। এছাড়াও,সম্প্রতি রিয়াদে ড. শফিকুল ইসলাম এবং ড. আনোয়ার হোসাইনের স্ত্রীও করোনায় মৃত্যু বরণ করেছেন।
এ বিষয়ে সৌদিতে বাংলাদেশি অ্যাম্বাসেডর গোলাম মুন্সি বলেন করোনায় যারা মানুষের জীবন বাঁচাতে গিয়ে যারা জীবন বিসর্জন দিয়েছেন, তারাই প্রকৃত হিরো। আমি এসব মহৎ মানুষের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করছি এবং তাদের পরিবারে প্রতি সমবেদনা জানাই।
এদিকে, দেশটিতে ওই ডাক্তারদের মৃত্যুতে প্রবাসী বাংলাদেশিদের মধ্যে শোক বিরাজ করছে। ওই পাঁচ ডাক্তারের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়েছে প্রবাসী বাংলাদেশিরা।

পোস্ট শেয়ার করুন

সৌদি আরবের কর্তব্য পালন করতে গিয়ে ৫জন ডাক্তারের মৃত্য

আপডেটের সময় : ১১:৫৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ জুন ২০২০

করোনা ভাইরাসের মহামারিতে সৌদি আরবের বিভিন্ন ক্লিনিক এবং হাসপাতালে কর্তব্য পালন করতে গিয়ে অন্তত পাঁচজন প্রবাসী বাংলাদেশি ডাক্তার প্রাণ হারিয়েছেন। করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে দেশ ও বিদেশের হাজারো মানুষের জীবন বাঁচানোর যুদ্ধে লড়াই করতে গিয়ে প্রাণ হারিয়েছেন ওই পাঁচ চিকিৎসক।
করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারানো ওই পাঁচ প্রবাসী চিকিৎসকের মধ্যে প্রথম মারা যান সাফা আল মদিনা পলি ক্লিনিক কর্মরত ৬২ বছর বয়সী ড. আফাক হোসাইন। গত মার্চের ৩১ তারিখে মারা যান তিনি। এরপর ১৯ মে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু বরণ করেন জেদ্দায় বিন লাদেন পলি ক্লিনিকে কর্মরত চিকিৎসক আব্দুর রহিম।
সম্প্রতি জুনেই মৃত্যু হয় আরও তিন সৌদি প্রবাসী চিকিৎসকের। ১৯ জুন প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস কেড়ে নেয় ড. মোহাম্মাদ শাফিউল্লাহর প্রাণ। ড. শফিউল্লাহ রিয়াদের কিং সালমান হাসপাতালে মেডিসিন বিভাগের একজন কনসালটেন্ট হিসেবে কর্মরত ছিলেন। এদিন দেশটির প্রিন্স সালমান হাসপাতালের আইসিইউ ওয়ার্ডে কর্মরত চিকিৎসক সিলেটেরে এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজের সাবেক ছাত্র ড. রনকও করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু বরণ করেন। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর তার অবস্থা খারাপ হতে থাকলে তখন তাকে নেওয়া হয় রিয়াদের আব্দুর রহমান করোনা ডেডিকেটেট হাসপাতালে। এরপর ১৯ জুন তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন।
মদিনায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে জীবন বিসর্জন দেয়া চিকিৎসকদের মধ্যে ১৬ জুন প্রাণ হারান ড. গোলাম মোস্তফা নামের আরেক প্রবাসী। ৩৪ বছর বয়সী ড. মোস্তফা মদিনার আগুল হেল্থ সেন্টারে কর্তব্যরত ছিলেন এবং তিনি সকল কাজ শেষ করে আর মাত্র চার মাস পরেই দেশে ফিরে আসতেন বলে জানা যায়। আর গত ১৩ জুন রিয়াদে করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারান ড. মো: আনোয়ার উল হাসান। তিনি রিয়াদের বদরুদ্দিন পলি ক্লিনিকে কর্তব্যরত ছিলেন। এছাড়াও,সম্প্রতি রিয়াদে ড. শফিকুল ইসলাম এবং ড. আনোয়ার হোসাইনের স্ত্রীও করোনায় মৃত্যু বরণ করেছেন।
এ বিষয়ে সৌদিতে বাংলাদেশি অ্যাম্বাসেডর গোলাম মুন্সি বলেন করোনায় যারা মানুষের জীবন বাঁচাতে গিয়ে যারা জীবন বিসর্জন দিয়েছেন, তারাই প্রকৃত হিরো। আমি এসব মহৎ মানুষের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করছি এবং তাদের পরিবারে প্রতি সমবেদনা জানাই।
এদিকে, দেশটিতে ওই ডাক্তারদের মৃত্যুতে প্রবাসী বাংলাদেশিদের মধ্যে শোক বিরাজ করছে। ওই পাঁচ ডাক্তারের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়েছে প্রবাসী বাংলাদেশিরা।