ঢাকা , শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সুলতান মনসুর বেইমান’ বললেন মিসবাহ সিরাজ – শুনলো কুলাউড়াবাসী

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ
  • আপডেটের সময় : ০১:৫৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ১১ নভেম্বর ২০১৯
  • / ৪৭০ টাইম ভিউ

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন। ছাত্রলীগের রাজনীতিতে জড়িত থাকার সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংসদের সহসভাপতিও (ভিপি) হয়েছিলেন তিনি। তবে ওয়ান-ইলেভেনের সময় (সেনা সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকার) শেখ হাসিনার বিপক্ষে অবস্থান নিয়ে দলে সংস্কার চেয়ে সমালোচিত হন সুলতান মনসুর। এরপর থেকে আওয়ামী লীগে ব্রাত্য হয়ে পড়েন তিনি।

দীর্ঘদিন নিষ্ক্রিয় থাকার পর গণফোরামে যোগ দেন সুলতান মনসুর। এ দলের প্রার্থী হিসেবে গেল জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মৌলভীবাজার-২ আসন থেকে নির্বাচন করে সংসদ সদস্য হন তিনি। পরবর্তীতে গণফোরামের দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নেওয়ায় গণফোরাম থেকেও বহিষ্কৃত হন সুলতান মনসুর।

দলের এই সাবেক নেতাকে নিয়ে আওয়ামী লীগের নেতারা বিভিন্ন সময় কঠোর বক্তব্য রেখেছেন। এবার তাকে নিয়ে তোপ দাগালেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ।

গতকাল রবিবার (১০ নভেম্বর) ছিল মৌলভীবাজার কুলাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন। সম্মেলনে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ।

নিজের বক্তব্যে মিসবাহ সিরাজ বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী ও দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনা সুলতান মনসুরকে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বানিয়েছিলেন, ডাকসুর ভিপি বানিয়েছিলেন। ছাত্রলীগের নেতৃত্বে ভার দিয়েছিলেন, এমপিও বানিয়েছিলেন। তবুও আওয়ামী লীগের সাথে বেইমানি করেছেন তিনি। নেত্রীর সাথে বেইমানি করেছেন। দলীয় নেতৃবৃন্দের বুকে ছুরি মেরে চলে গেছেন।’

স্থানীয় সাবেক সংসদ সদস্য প্রয়াত আব্দুল জব্বারকেও সুলতান মনসুর কষ্ট দিয়েছেন বলে মন্তব্য করেন মিসবাহ সিরাজ।

তিনি বলেন, ‘সুলতান মনসুর জব্বার ভাইকে কষ্ট দিয়েছেন। বেইমান মুনাফিকের স্থান আওয়ামী লীগে হতে পারে না।’

প্রসঙ্গত, সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন।

পোস্ট শেয়ার করুন

সুলতান মনসুর বেইমান’ বললেন মিসবাহ সিরাজ – শুনলো কুলাউড়াবাসী

আপডেটের সময় : ০১:৫৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ১১ নভেম্বর ২০১৯

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন। ছাত্রলীগের রাজনীতিতে জড়িত থাকার সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংসদের সহসভাপতিও (ভিপি) হয়েছিলেন তিনি। তবে ওয়ান-ইলেভেনের সময় (সেনা সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকার) শেখ হাসিনার বিপক্ষে অবস্থান নিয়ে দলে সংস্কার চেয়ে সমালোচিত হন সুলতান মনসুর। এরপর থেকে আওয়ামী লীগে ব্রাত্য হয়ে পড়েন তিনি।

দীর্ঘদিন নিষ্ক্রিয় থাকার পর গণফোরামে যোগ দেন সুলতান মনসুর। এ দলের প্রার্থী হিসেবে গেল জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মৌলভীবাজার-২ আসন থেকে নির্বাচন করে সংসদ সদস্য হন তিনি। পরবর্তীতে গণফোরামের দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নেওয়ায় গণফোরাম থেকেও বহিষ্কৃত হন সুলতান মনসুর।

দলের এই সাবেক নেতাকে নিয়ে আওয়ামী লীগের নেতারা বিভিন্ন সময় কঠোর বক্তব্য রেখেছেন। এবার তাকে নিয়ে তোপ দাগালেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ।

গতকাল রবিবার (১০ নভেম্বর) ছিল মৌলভীবাজার কুলাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন। সম্মেলনে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ।

নিজের বক্তব্যে মিসবাহ সিরাজ বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী ও দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনা সুলতান মনসুরকে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বানিয়েছিলেন, ডাকসুর ভিপি বানিয়েছিলেন। ছাত্রলীগের নেতৃত্বে ভার দিয়েছিলেন, এমপিও বানিয়েছিলেন। তবুও আওয়ামী লীগের সাথে বেইমানি করেছেন তিনি। নেত্রীর সাথে বেইমানি করেছেন। দলীয় নেতৃবৃন্দের বুকে ছুরি মেরে চলে গেছেন।’

স্থানীয় সাবেক সংসদ সদস্য প্রয়াত আব্দুল জব্বারকেও সুলতান মনসুর কষ্ট দিয়েছেন বলে মন্তব্য করেন মিসবাহ সিরাজ।

তিনি বলেন, ‘সুলতান মনসুর জব্বার ভাইকে কষ্ট দিয়েছেন। বেইমান মুনাফিকের স্থান আওয়ামী লীগে হতে পারে না।’

প্রসঙ্গত, সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন।