ঢাকা , শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৫ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
লিসবনে আত্মপ্রকাশ হয় সামাজিক সংগঠন “গোলাপগঞ্জ কমিউনিটি কেয়ারর্স পর্তুগাল “ উচ্ছ্বাস আর আনন্দে বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখের উদযাপন করেছে পর্তুগাল যথাযথ গাম্ভীর্যের মধ্যে দিয়ে পরিবেশে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর পালন করেছে ভেনিস প্রবাসীরা ভেনিসে বৃহত্তর সিলেট সমিতির আয়োজনে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত এক অসুস্থ প্রজন্ম কে সাথি করে এগুচ্ছি আমরা রিডানডেন্ট ক্লোথিং আর মজুর মামার ‘বিশ্বকাপ’ ইউরোপের সবচেয়ে বড় ঈদুল ফিতরের নামাজ পর্তুগালে অনুষ্ঠিত হয় বর্ণাঢ্য আয়োজনে পর্তুগাল বাংলা প্রেসক্লাবের ইফতার ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন ঈদের কাপড় কিনার জন্য মা’য়ের উপর অভিমান করে মেয়ের আত্মহত্যা লিসবনে বন্ধু মহলের আয়োজনে বিশাল ইফতার ও দোয়া মাহফিল

সিলেটে বাসর ঘরে স্ত্রী রেখে স্বামী উধাও!

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ
  • আপডেটের সময় : ০১:৫৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ৫ মে ২০১৯
  • / ১২৫৫ টাইম ভিউ

সিলেটের মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গলে বাসর ঘরে স্ত্রী রেখে স্বামী উধাও। জানা যায় পালিয়ে যাওয়ায় স্বামী একজন ইউপি সদস্য । তার বিরুদ্ধে বাল্য বিয়ের অভিযোগ উঠে । খবর পেয়ে উপজেলা প্রশাসনের অভিযান চালালে বাসর রাতেই ‘কিশোরীবধূ’কে ফেলে পালিয়ে যান আবদুর রহমান নামের ওই ইউপি সদস্য।

বাল্যবিয়ের অপরাধে ওই ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন উপজেলা মহিলা কর্মকর্তা শাহেদা আক্তার।

অভিযুক্ত আবদুর রহমান শ্রীমঙ্গল উপজেলার ৭নং রাজঘাট ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের সদস্য। তার আরও দুই স্ত্রী রয়েছে বলে স্থানীয় সূত্র জানিয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, শ্রীমঙ্গল শহরতলীর শাহীবাগের রেললাইন এলাকার ১৫ বছর বয়সী এক কিশোরীকে শুক্রবার বিয়ে করেন ইউপি সদস্য আবদুর রহমান। পরে ওই কিশোরীকে তার বাবার বাড়ির পাশের একটি ভাড়া বাড়িতে তুলেন।

স্থানীয় লোকজন বাল্যবিয়ের বিষয়টি উপজেলা নির্বাাহী কর্মকর্তাকে অবহিত করলে বিষয়টি তদন্তের জন্য উপজেলা মহিলা বিষয়ক কার্যালয়ের হিসাবরক্ষক সুদীপ দাশকে ঘটনাস্থল পাঠানো হয়। ওই কর্মকর্তার উপস্থিতির টের পেয়ে ইউপি সদস্য রাতেই নববধূকে ফেলে পালিয়ে যান। তদন্তে বাল্যবিয়ের সত্যতাও পান সুদীপ দাশ।

এ ব্যাপারে উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা শাহেদা আকতার বলেন, বাল্যবিয়ের সত্যতা পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম বলেন, ‘বাল্যবিয়ে রোধে সরকার সচেতনতামূলক নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। বাল্যবিয়ের ঘটনায় কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।’

শ্রীমঙ্গল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সোহেল রানা বলেন, বাল্যবিয়ের ঘটনায় এখনো লিখিত অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে মামলা রেকর্ড করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

পোস্ট শেয়ার করুন

সিলেটে বাসর ঘরে স্ত্রী রেখে স্বামী উধাও!

আপডেটের সময় : ০১:৫৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ৫ মে ২০১৯

সিলেটের মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গলে বাসর ঘরে স্ত্রী রেখে স্বামী উধাও। জানা যায় পালিয়ে যাওয়ায় স্বামী একজন ইউপি সদস্য । তার বিরুদ্ধে বাল্য বিয়ের অভিযোগ উঠে । খবর পেয়ে উপজেলা প্রশাসনের অভিযান চালালে বাসর রাতেই ‘কিশোরীবধূ’কে ফেলে পালিয়ে যান আবদুর রহমান নামের ওই ইউপি সদস্য।

বাল্যবিয়ের অপরাধে ওই ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন উপজেলা মহিলা কর্মকর্তা শাহেদা আক্তার।

অভিযুক্ত আবদুর রহমান শ্রীমঙ্গল উপজেলার ৭নং রাজঘাট ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের সদস্য। তার আরও দুই স্ত্রী রয়েছে বলে স্থানীয় সূত্র জানিয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, শ্রীমঙ্গল শহরতলীর শাহীবাগের রেললাইন এলাকার ১৫ বছর বয়সী এক কিশোরীকে শুক্রবার বিয়ে করেন ইউপি সদস্য আবদুর রহমান। পরে ওই কিশোরীকে তার বাবার বাড়ির পাশের একটি ভাড়া বাড়িতে তুলেন।

স্থানীয় লোকজন বাল্যবিয়ের বিষয়টি উপজেলা নির্বাাহী কর্মকর্তাকে অবহিত করলে বিষয়টি তদন্তের জন্য উপজেলা মহিলা বিষয়ক কার্যালয়ের হিসাবরক্ষক সুদীপ দাশকে ঘটনাস্থল পাঠানো হয়। ওই কর্মকর্তার উপস্থিতির টের পেয়ে ইউপি সদস্য রাতেই নববধূকে ফেলে পালিয়ে যান। তদন্তে বাল্যবিয়ের সত্যতাও পান সুদীপ দাশ।

এ ব্যাপারে উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা শাহেদা আকতার বলেন, বাল্যবিয়ের সত্যতা পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম বলেন, ‘বাল্যবিয়ে রোধে সরকার সচেতনতামূলক নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। বাল্যবিয়ের ঘটনায় কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।’

শ্রীমঙ্গল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সোহেল রানা বলেন, বাল্যবিয়ের ঘটনায় এখনো লিখিত অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে মামলা রেকর্ড করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন