ঢাকা , রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
এমপি আনোয়ারুল আজিমকে হত্যার ঘটনায় আটক তিনজন , এতে বাংলাদেশী মানুষ জড়িত:স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকাস্থ ইরান দুতাবাসে রাইসির শোক বইয়ে মির্জা ফখরুলের স্বাক্ষর মুটো ফোনের আসক্তি দূর করবেন যেভাবে… এই অভ্যাসগুলোর চর্চা নিয়মিত করা উচিৎ স্বামী-স্ত্রীর বয়সের পার্থক্য থাকা জরুরি কেনো ? পুনাক এর উদ্যোগে দুস্হ ও অসহায় নারীদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরন করা হয়েছে কুলাউড়ার টিলাগাঁও এ সরকারি গাছ বিক্রি করলেন প্রধান শিক্ষক লটারি বাইক জিতলো মা’ সে কারণে কপাল পুড়লো মেয়ের ফজরের নামাজে যাওয়ার সময় রাস্তায় কুকুর দলের আক্রমনে প্রান গেলো ইজাজুলের সাবেক সাংসদ সেলিমা আহমাদ মেরীর সাথে পর্তুগাল আওয়ামিলীগের মতবিনিময় সভা

সিলেটে জঙ্গি তৈরির ট্রেনিং সেন্টার খুলেছিলো নাইম

নিউজ ডেস্ক
  • আপডেটের সময় : ০১:৩৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ অগাস্ট ২০২০
  • / ৩১৬ টাইম ভিউ

সিলেটে টিলাগড়ে জঙ্গিদের ট্রেনিং দিতে শাহভিলায় বাসা ভাড়া নিয়েছিলো নব্য জেএমবির আঞ্চলিক প্রধান নাইমুজ্জামান নাইম ও তার সহযোগী সায়েম। মঙ্গলবার রাতে অভিযানকালে বাসার মালিক সামদ আলীর সামনেই এ কথা স্বীকার করেছে জঙ্গি নাইম ও সায়েম। তবে- অভিযানকালে ওই বাসায় কিছু পাওয়া যায়নি।
বাসার মালিক সামদ আলী জানিয়েছেন- রাতে পুলিশ নাইম ও সায়েমকে নিয়ে তার বাসায় আসেন। এ সময় তিনি নাইম ও সায়েমকে চিনেছেন। তারা দু’জন প্রায় দুই মাস আগে কম্পিউটার ট্রেনিং সেন্টারের নামে তার কাছ থেকে বাসা ভাড়া নেয়। এ সময় তারা জানিয়েছিলো তাদের দুই সহকর্মী ওই বাসায় থাকবে। তিনি জানান- বাসা ভাড়া নিলেও তারা কার্যক্রম শুরু করেনি।

কিংবা ওই বাসায় কেউ বসবাসের জন্য উঠেনি। তবে- নিয়মিত ভাবেই তারা বাসা ভাড়া দিয়ে যেতো।
নাইম ও সায়েমের সিলেটে বাসা রয়েছে। এর মধ্যে নাইম পরিবার নিয়ে নগরীর মিরাবাজারে বসবাস করতেন। আর সায়েম বসবাস করতেন দক্ষিন সুরমায়। এরপরও তারা নতুন যোগ দেওয়া জঙ্গিদের ট্রেনিং দিতে ওই বাসা ভাড়া নেয়। মঙ্গলবার রাতে তারা বাসার মালিকের সামনেই পুলিশের কাছে এ কথা স্বীকার করেছে।#

পোস্ট শেয়ার করুন

সিলেটে জঙ্গি তৈরির ট্রেনিং সেন্টার খুলেছিলো নাইম

আপডেটের সময় : ০১:৩৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ অগাস্ট ২০২০

সিলেটে টিলাগড়ে জঙ্গিদের ট্রেনিং দিতে শাহভিলায় বাসা ভাড়া নিয়েছিলো নব্য জেএমবির আঞ্চলিক প্রধান নাইমুজ্জামান নাইম ও তার সহযোগী সায়েম। মঙ্গলবার রাতে অভিযানকালে বাসার মালিক সামদ আলীর সামনেই এ কথা স্বীকার করেছে জঙ্গি নাইম ও সায়েম। তবে- অভিযানকালে ওই বাসায় কিছু পাওয়া যায়নি।
বাসার মালিক সামদ আলী জানিয়েছেন- রাতে পুলিশ নাইম ও সায়েমকে নিয়ে তার বাসায় আসেন। এ সময় তিনি নাইম ও সায়েমকে চিনেছেন। তারা দু’জন প্রায় দুই মাস আগে কম্পিউটার ট্রেনিং সেন্টারের নামে তার কাছ থেকে বাসা ভাড়া নেয়। এ সময় তারা জানিয়েছিলো তাদের দুই সহকর্মী ওই বাসায় থাকবে। তিনি জানান- বাসা ভাড়া নিলেও তারা কার্যক্রম শুরু করেনি।

কিংবা ওই বাসায় কেউ বসবাসের জন্য উঠেনি। তবে- নিয়মিত ভাবেই তারা বাসা ভাড়া দিয়ে যেতো।
নাইম ও সায়েমের সিলেটে বাসা রয়েছে। এর মধ্যে নাইম পরিবার নিয়ে নগরীর মিরাবাজারে বসবাস করতেন। আর সায়েম বসবাস করতেন দক্ষিন সুরমায়। এরপরও তারা নতুন যোগ দেওয়া জঙ্গিদের ট্রেনিং দিতে ওই বাসা ভাড়া নেয়। মঙ্গলবার রাতে তারা বাসার মালিকের সামনেই পুলিশের কাছে এ কথা স্বীকার করেছে।#