ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
প্রিয়জনদের মানসিক রোগ যদি আপনজন বুঝতে না পারেন আওয়ামীলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা ও অভিষেক অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা করেছে পর্তুগাল আওয়ামীলীগ যেকোনো প্রচেষ্টা এককভাবে সম্পন্ন করা সম্ভব নয়: দুদক সচিব শ্রীমঙ্গলে দুটি চোরাই মোটরসাইকেল সহ মিল্টন কুমার আটক পর্তুগালের অভিবাসন আইনে ব্যাপক পরিবর্তন পর্তুগাল বিএনপি আহবায়ক কমিটির জুমে জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয় এমপি আনোয়ারুল আজিমকে হত্যার ঘটনায় আটক তিনজন , এতে বাংলাদেশী মানুষ জড়িত:স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকাস্থ ইরান দুতাবাসে রাইসির শোক বইয়ে মির্জা ফখরুলের স্বাক্ষর মুটো ফোনের আসক্তি দূর করবেন যেভাবে…

সিরিয়া থেকে সেনা প্রত্যাহার শুরু

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ
  • আপডেটের সময় : ০৯:০৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১২ ফেব্রুয়ারী ২০১৯
  • / ১৩৮১ টাইম ভিউ

মহলে শুরু হয় নানা জল্পনা-কল্পনা।

এই বিষয়ে, কর্নেল সিয়ান রিয়ান বলেন, সিরিয়া থেকে আমাদের সেনা প্রত্যাহারের ইচ্ছা অনুযায়ী জোট প্রয়োজনীয় প্রক্রিয়া শুরু করেছে। তবে নিরাপত্তার কারণে আমরা নির্দিষ্ট সময়, জায়গা ও সেনাদের চলে যাওয়ার কথা বলতে পারছি না।

জানা গেছে,যুক্তরাষ্ট্রের সেনারা সিরিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলের বেশিরভাগ অঞ্চলকে আইএস মুক্ত করতে সিরিয়ান ডেমোক্র্যাটিক ফোর্সেস (এসডিএফ) কে সহায়তা করছে। কিন্তু এখনো সেখানে কিছু কিছু জায়গায় আইএস এর উপস্থিতি আছে। ফলে মার্কিন সেনারা চলে গেলে ওই সব অঞ্চলে যে নিরাপত্তা শূন্যতার তৈরি হবে সেটা ঠিক কিভাবে পূরণ হবে তা বোঝা যাচ্ছে না।

এ বিষয়ে ট্রাম্প বলেছিলেন, তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়েপ এরদোয়ানের সঙ্গে টেলিফোনে সিরিয়ার বিষয়ে তার কথা হয়েছে এবং এরদোয়ান তাকে আইএসর মূল উৎপাটনের দায়িত্ব নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।কিন্তু এরদোয়ান সরকার আইএসর বিরুদ্ধে লড়াইরত কুর্দি বাহিনীকেই জঙ্গি সংগঠন হিসেবে বিবেচনা করে। কুর্দিদের সঙ্গে তুরস্কের সেনাদের দীর্ঘ লড়াইয়ের ইতিহাসও আছে।

এদিকে, অনেকেই মনে করছেন, রাশিয়া ও ইরান সমর্থিত সিরিয়ার সরকারি বাহিনীও মার্কিন সেনাদের অনুপস্থিতির সুযোগ কাজে লাগিয়ে বিদ্রোহীগোষ্ঠী নিয়ন্ত্রিত এলাকাগুলোর দখল নিতে চাইবে।ফলে সিরিয়ায় নতুন করে ভয়াবহ যুদ্ধ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে

পোস্ট শেয়ার করুন

সিরিয়া থেকে সেনা প্রত্যাহার শুরু

আপডেটের সময় : ০৯:০৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১২ ফেব্রুয়ারী ২০১৯

মহলে শুরু হয় নানা জল্পনা-কল্পনা।

এই বিষয়ে, কর্নেল সিয়ান রিয়ান বলেন, সিরিয়া থেকে আমাদের সেনা প্রত্যাহারের ইচ্ছা অনুযায়ী জোট প্রয়োজনীয় প্রক্রিয়া শুরু করেছে। তবে নিরাপত্তার কারণে আমরা নির্দিষ্ট সময়, জায়গা ও সেনাদের চলে যাওয়ার কথা বলতে পারছি না।

জানা গেছে,যুক্তরাষ্ট্রের সেনারা সিরিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলের বেশিরভাগ অঞ্চলকে আইএস মুক্ত করতে সিরিয়ান ডেমোক্র্যাটিক ফোর্সেস (এসডিএফ) কে সহায়তা করছে। কিন্তু এখনো সেখানে কিছু কিছু জায়গায় আইএস এর উপস্থিতি আছে। ফলে মার্কিন সেনারা চলে গেলে ওই সব অঞ্চলে যে নিরাপত্তা শূন্যতার তৈরি হবে সেটা ঠিক কিভাবে পূরণ হবে তা বোঝা যাচ্ছে না।

এ বিষয়ে ট্রাম্প বলেছিলেন, তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়েপ এরদোয়ানের সঙ্গে টেলিফোনে সিরিয়ার বিষয়ে তার কথা হয়েছে এবং এরদোয়ান তাকে আইএসর মূল উৎপাটনের দায়িত্ব নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।কিন্তু এরদোয়ান সরকার আইএসর বিরুদ্ধে লড়াইরত কুর্দি বাহিনীকেই জঙ্গি সংগঠন হিসেবে বিবেচনা করে। কুর্দিদের সঙ্গে তুরস্কের সেনাদের দীর্ঘ লড়াইয়ের ইতিহাসও আছে।

এদিকে, অনেকেই মনে করছেন, রাশিয়া ও ইরান সমর্থিত সিরিয়ার সরকারি বাহিনীও মার্কিন সেনাদের অনুপস্থিতির সুযোগ কাজে লাগিয়ে বিদ্রোহীগোষ্ঠী নিয়ন্ত্রিত এলাকাগুলোর দখল নিতে চাইবে।ফলে সিরিয়ায় নতুন করে ভয়াবহ যুদ্ধ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে