ঢাকা , সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
উচ্ছ্বাস আর আনন্দে বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখের উদযাপন করেছে পর্তুগাল যথাযথ গাম্ভীর্যের মধ্যে দিয়ে পরিবেশে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর পালন করেছে ভেনিস প্রবাসীরা ভেনিসে বৃহত্তর সিলেট সমিতির আয়োজনে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত এক অসুস্থ প্রজন্ম কে সাথি করে এগুচ্ছি আমরা রিডানডেন্ট ক্লোথিং আর মজুর মামার ‘বিশ্বকাপ’ ইউরোপের সবচেয়ে বড় ঈদুল ফিতরের নামাজ পর্তুগালে অনুষ্ঠিত হয় বর্ণাঢ্য আয়োজনে পর্তুগাল বাংলা প্রেসক্লাবের ইফতার ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন ঈদের কাপড় কিনার জন্য মা’য়ের উপর অভিমান করে মেয়ের আত্মহত্যা লিসবনে বন্ধু মহলের আয়োজনে বিশাল ইফতার ও দোয়া মাহফিল মান অভিমান ভুলে সবাই একই প্লাটফর্মে,সংবাদ সম্মেলনে পর্তুগাল বিএনপির নবগঠিত আহবায়ক কমিটি

সিরিয়া থেকে সেনা প্রত্যাহার শুরু

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ
  • আপডেটের সময় : ০৯:০৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১২ ফেব্রুয়ারী ২০১৯
  • / ১৩০৮ টাইম ভিউ

মহলে শুরু হয় নানা জল্পনা-কল্পনা।

এই বিষয়ে, কর্নেল সিয়ান রিয়ান বলেন, সিরিয়া থেকে আমাদের সেনা প্রত্যাহারের ইচ্ছা অনুযায়ী জোট প্রয়োজনীয় প্রক্রিয়া শুরু করেছে। তবে নিরাপত্তার কারণে আমরা নির্দিষ্ট সময়, জায়গা ও সেনাদের চলে যাওয়ার কথা বলতে পারছি না।

জানা গেছে,যুক্তরাষ্ট্রের সেনারা সিরিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলের বেশিরভাগ অঞ্চলকে আইএস মুক্ত করতে সিরিয়ান ডেমোক্র্যাটিক ফোর্সেস (এসডিএফ) কে সহায়তা করছে। কিন্তু এখনো সেখানে কিছু কিছু জায়গায় আইএস এর উপস্থিতি আছে। ফলে মার্কিন সেনারা চলে গেলে ওই সব অঞ্চলে যে নিরাপত্তা শূন্যতার তৈরি হবে সেটা ঠিক কিভাবে পূরণ হবে তা বোঝা যাচ্ছে না।

এ বিষয়ে ট্রাম্প বলেছিলেন, তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়েপ এরদোয়ানের সঙ্গে টেলিফোনে সিরিয়ার বিষয়ে তার কথা হয়েছে এবং এরদোয়ান তাকে আইএসর মূল উৎপাটনের দায়িত্ব নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।কিন্তু এরদোয়ান সরকার আইএসর বিরুদ্ধে লড়াইরত কুর্দি বাহিনীকেই জঙ্গি সংগঠন হিসেবে বিবেচনা করে। কুর্দিদের সঙ্গে তুরস্কের সেনাদের দীর্ঘ লড়াইয়ের ইতিহাসও আছে।

এদিকে, অনেকেই মনে করছেন, রাশিয়া ও ইরান সমর্থিত সিরিয়ার সরকারি বাহিনীও মার্কিন সেনাদের অনুপস্থিতির সুযোগ কাজে লাগিয়ে বিদ্রোহীগোষ্ঠী নিয়ন্ত্রিত এলাকাগুলোর দখল নিতে চাইবে।ফলে সিরিয়ায় নতুন করে ভয়াবহ যুদ্ধ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে

পোস্ট শেয়ার করুন

সিরিয়া থেকে সেনা প্রত্যাহার শুরু

আপডেটের সময় : ০৯:০৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১২ ফেব্রুয়ারী ২০১৯

মহলে শুরু হয় নানা জল্পনা-কল্পনা।

এই বিষয়ে, কর্নেল সিয়ান রিয়ান বলেন, সিরিয়া থেকে আমাদের সেনা প্রত্যাহারের ইচ্ছা অনুযায়ী জোট প্রয়োজনীয় প্রক্রিয়া শুরু করেছে। তবে নিরাপত্তার কারণে আমরা নির্দিষ্ট সময়, জায়গা ও সেনাদের চলে যাওয়ার কথা বলতে পারছি না।

জানা গেছে,যুক্তরাষ্ট্রের সেনারা সিরিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলের বেশিরভাগ অঞ্চলকে আইএস মুক্ত করতে সিরিয়ান ডেমোক্র্যাটিক ফোর্সেস (এসডিএফ) কে সহায়তা করছে। কিন্তু এখনো সেখানে কিছু কিছু জায়গায় আইএস এর উপস্থিতি আছে। ফলে মার্কিন সেনারা চলে গেলে ওই সব অঞ্চলে যে নিরাপত্তা শূন্যতার তৈরি হবে সেটা ঠিক কিভাবে পূরণ হবে তা বোঝা যাচ্ছে না।

এ বিষয়ে ট্রাম্প বলেছিলেন, তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়েপ এরদোয়ানের সঙ্গে টেলিফোনে সিরিয়ার বিষয়ে তার কথা হয়েছে এবং এরদোয়ান তাকে আইএসর মূল উৎপাটনের দায়িত্ব নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।কিন্তু এরদোয়ান সরকার আইএসর বিরুদ্ধে লড়াইরত কুর্দি বাহিনীকেই জঙ্গি সংগঠন হিসেবে বিবেচনা করে। কুর্দিদের সঙ্গে তুরস্কের সেনাদের দীর্ঘ লড়াইয়ের ইতিহাসও আছে।

এদিকে, অনেকেই মনে করছেন, রাশিয়া ও ইরান সমর্থিত সিরিয়ার সরকারি বাহিনীও মার্কিন সেনাদের অনুপস্থিতির সুযোগ কাজে লাগিয়ে বিদ্রোহীগোষ্ঠী নিয়ন্ত্রিত এলাকাগুলোর দখল নিতে চাইবে।ফলে সিরিয়ায় নতুন করে ভয়াবহ যুদ্ধ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে