ঢাকা , শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
যথাযথ গাম্ভীর্যের মধ্যে দিয়ে পরিবেশে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর পালন করেছে ভেনিস প্রবাসীরা ভেনিসে বৃহত্তর সিলেট সমিতির আয়োজনে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত এক অসুস্থ প্রজন্ম কে সাথি করে এগুচ্ছি আমরা রিডানডেন্ট ক্লোথিং আর মজুর মামার ‘বিশ্বকাপ’ ইউরোপের সবচেয়ে বড় ঈদুল ফিতরের নামাজ পর্তুগালে অনুষ্ঠিত হয় বর্ণাঢ্য আয়োজনে পর্তুগাল বাংলা প্রেসক্লাবের ইফতার ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন ঈদের কাপড় কিনার জন্য মা’য়ের উপর অভিমান করে মেয়ের আত্মহত্যা লিসবনে বন্ধু মহলের আয়োজনে বিশাল ইফতার ও দোয়া মাহফিল মান অভিমান ভুলে সবাই একই প্লাটফর্মে,সংবাদ সম্মেলনে পর্তুগাল বিএনপির নবগঠিত আহবায়ক কমিটি ইতালির ভিসেন্সায় সিলেট ডায়নামিক অ্যাসোসিয়েশনের আয়োজনে ইফতার ও দোয়া অনুষ্ঠিত

সমুদ্রগামী মাছ ধরার ট্রলার ডুবি, ১০ ঘণ্টা পর ১৫ জেলে জীবিত উদ্ধার

নিউজ ডেস্ক
  • আপডেটের সময় : ১২:০৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২
  • / ২৬৬ টাইম ভিউ

সমুদ্রে মাছ ধরতে গিয়ে ১৫ মাঝি-মাল্লা নিয়ে চরফ্যাশন উপজেলার চর মাদ্রাজ ইউনিয়নের এফবি রিফাত নামের একটি সমুদ্রগামী মাছ ধরার ট্রলার ডুবির ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় ১০ ঘণ্টা পর অন্য একটি ট্রলারে সহযোগিতায় ১৫ জেলে জীবিত উদ্ধার হলেও মাছ ধরার ট্রলারটি গভীর সাগরে তলিয়ে গেছে। গত শনিবার দিবাগত রাত ৩টার সময় ঝড়ের কবলে পড়ে গভীর সমুদ্রে ট্রলারটি ডুবে যায়। পরদিন রবিবার বেলা ১১টার দিকে নোয়াখালীর আলেকজেন্ডার এলাকার একটি ট্রলার সাগর থেকে মাছ ধরে ফেরার পথে ভেসে থাকা ১৫ জেলেকে উদ্ধার করে নিয়ে আসেন। মঙ্গলবার দুপুরে অন্য একটি ট্রলারে করে আলেকজেন্ডার থেকে চরফ্যাশনের মাদ্রাজ ইউনিয়নের সামরাজ মৎস্য ঘাটে এসে পৌছান জেলেরা। তবে ডুবে যাওয়া ট্রলার ও ট্রলারে থাকা জাল এবং অন্যান্য কোনো সরঞ্জাম উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। ট্রলারের মালিক চান শরিফ মাঝি জানান, গত বৃহস্পতিবার (১৯ মে) বিকেলে চরফ্যাশনের সামরাজ ঘাট থেকে ১৪ জন জেলে নিয়ে গভীর সাগরে মাছ শিকারে যান তিনি। শনিবার দিবাগত রাত ২টার দিকে হঠাৎ ঘূর্ণিঝড়ের কবলে পড়ে তাদের ট্রলারটি ডুবে যায়। এ অবস্থায় তারা সবাই ট্রলারে থাকা কাঠ-বাঁশ ধরে সমুদ্রে ভেসে থাকেন। পরদিন বেলা ১১টার দিকে আলেকজেন্ডার এলাকার একটি ট্রলার তাদেরকে দেখতে পেয়ে উদ্ধার করে। কিন্তু চোখের সামনে নিজের ট্রলারটি ডুবন্ত অবস্থায় রেখেই তারা ওই জেলেদের সঙ্গে চলে আসেন। এরপর সোমবার দুপুরের দিকে তারা ভোলায় এসে পৌঁছান। পরে জেলেরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি চলে যায়। তিনি আরো জানান, প্রায় ৩৫ লাখ টাকা ব্যয়ে তিনি এ ট্রলারটি তৈরি করে এবারই প্রথম সাগরে গিয়েছেন। মানুষের কাছ থেকে ধার করে ২২ লাখ টাকা নিয়ে এ ট্রলারটি তৈরি করেছেন চান শরিফ। ঝড়ের কবলে পড়ে ট্রলারটি ডুবে যাওয়ায় এখন দুশ্চিন্তায় রয়েছেন। এ অবস্থায় সরকারের কাছে সহযোগিতা চেয়েছেন তিনি। চরফ্যাশন উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মারুফ হোসেন মিনার জানান, সমুদ্রে ট্রলার ডুবির ঘটনাটি আমাদেরকে কেউ অবহিত করেনি। সম্ভবত সবাই জীবিত উদ্ধার হওয়ায় আমাদেরকে জানায়নি। এরপরও ক্ষতিগ্রস্থ জেলেরা আবেদন করলে আমার তাদেরকে উপজেলা পরিষদ থেকে আর্থিক সহায়তা দেয়ার চেষ্টা করবো

পোস্ট শেয়ার করুন

সমুদ্রগামী মাছ ধরার ট্রলার ডুবি, ১০ ঘণ্টা পর ১৫ জেলে জীবিত উদ্ধার

আপডেটের সময় : ১২:০৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২

সমুদ্রে মাছ ধরতে গিয়ে ১৫ মাঝি-মাল্লা নিয়ে চরফ্যাশন উপজেলার চর মাদ্রাজ ইউনিয়নের এফবি রিফাত নামের একটি সমুদ্রগামী মাছ ধরার ট্রলার ডুবির ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় ১০ ঘণ্টা পর অন্য একটি ট্রলারে সহযোগিতায় ১৫ জেলে জীবিত উদ্ধার হলেও মাছ ধরার ট্রলারটি গভীর সাগরে তলিয়ে গেছে। গত শনিবার দিবাগত রাত ৩টার সময় ঝড়ের কবলে পড়ে গভীর সমুদ্রে ট্রলারটি ডুবে যায়। পরদিন রবিবার বেলা ১১টার দিকে নোয়াখালীর আলেকজেন্ডার এলাকার একটি ট্রলার সাগর থেকে মাছ ধরে ফেরার পথে ভেসে থাকা ১৫ জেলেকে উদ্ধার করে নিয়ে আসেন। মঙ্গলবার দুপুরে অন্য একটি ট্রলারে করে আলেকজেন্ডার থেকে চরফ্যাশনের মাদ্রাজ ইউনিয়নের সামরাজ মৎস্য ঘাটে এসে পৌছান জেলেরা। তবে ডুবে যাওয়া ট্রলার ও ট্রলারে থাকা জাল এবং অন্যান্য কোনো সরঞ্জাম উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। ট্রলারের মালিক চান শরিফ মাঝি জানান, গত বৃহস্পতিবার (১৯ মে) বিকেলে চরফ্যাশনের সামরাজ ঘাট থেকে ১৪ জন জেলে নিয়ে গভীর সাগরে মাছ শিকারে যান তিনি। শনিবার দিবাগত রাত ২টার দিকে হঠাৎ ঘূর্ণিঝড়ের কবলে পড়ে তাদের ট্রলারটি ডুবে যায়। এ অবস্থায় তারা সবাই ট্রলারে থাকা কাঠ-বাঁশ ধরে সমুদ্রে ভেসে থাকেন। পরদিন বেলা ১১টার দিকে আলেকজেন্ডার এলাকার একটি ট্রলার তাদেরকে দেখতে পেয়ে উদ্ধার করে। কিন্তু চোখের সামনে নিজের ট্রলারটি ডুবন্ত অবস্থায় রেখেই তারা ওই জেলেদের সঙ্গে চলে আসেন। এরপর সোমবার দুপুরের দিকে তারা ভোলায় এসে পৌঁছান। পরে জেলেরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি চলে যায়। তিনি আরো জানান, প্রায় ৩৫ লাখ টাকা ব্যয়ে তিনি এ ট্রলারটি তৈরি করে এবারই প্রথম সাগরে গিয়েছেন। মানুষের কাছ থেকে ধার করে ২২ লাখ টাকা নিয়ে এ ট্রলারটি তৈরি করেছেন চান শরিফ। ঝড়ের কবলে পড়ে ট্রলারটি ডুবে যাওয়ায় এখন দুশ্চিন্তায় রয়েছেন। এ অবস্থায় সরকারের কাছে সহযোগিতা চেয়েছেন তিনি। চরফ্যাশন উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মারুফ হোসেন মিনার জানান, সমুদ্রে ট্রলার ডুবির ঘটনাটি আমাদেরকে কেউ অবহিত করেনি। সম্ভবত সবাই জীবিত উদ্ধার হওয়ায় আমাদেরকে জানায়নি। এরপরও ক্ষতিগ্রস্থ জেলেরা আবেদন করলে আমার তাদেরকে উপজেলা পরিষদ থেকে আর্থিক সহায়তা দেয়ার চেষ্টা করবো