ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
প্রিয়জনদের মানসিক রোগ যদি আপনজন বুঝতে না পারেন আওয়ামীলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা ও অভিষেক অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা করেছে পর্তুগাল আওয়ামীলীগ যেকোনো প্রচেষ্টা এককভাবে সম্পন্ন করা সম্ভব নয়: দুদক সচিব শ্রীমঙ্গলে দুটি চোরাই মোটরসাইকেল সহ মিল্টন কুমার আটক পর্তুগালের অভিবাসন আইনে ব্যাপক পরিবর্তন পর্তুগাল বিএনপি আহবায়ক কমিটির জুমে জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয় এমপি আনোয়ারুল আজিমকে হত্যার ঘটনায় আটক তিনজন , এতে বাংলাদেশী মানুষ জড়িত:স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকাস্থ ইরান দুতাবাসে রাইসির শোক বইয়ে মির্জা ফখরুলের স্বাক্ষর মুটো ফোনের আসক্তি দূর করবেন যেভাবে…

সন্ত্রাস মোকাবিলায় সেনাবাহিনীকে ব্যবহার করতে চায় অস্ট্রেলিয়া

অনলাইন ডেস্ক :
  • আপডেটের সময় : ০১:৫৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুলাই ২০১৭
  • / ১৩২৯ টাইম ভিউ

দেশের ভিতরে সন্ত্রাসী হুমকি মোকাবিলায় সেনাবাহিনীকে ব্যবহার করতে চাইছে অস্ট্রেলিয়া। এ জন্য তাদেরকে নতুন করে ক্ষমতা দেয়া হবে। সন্ত্রাস বিরোধী এক রিভিউতে জাতীয় নিরাপত্তা বিষয়ক আইনে এ পরিবর্তনের কথা প্রস্তাব করেছে সরকার। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি। এতে বলা হয়েছে, হুমকি মোকাবিলা করতে গিয়ে পুলিশের যখনই প্রয়োজন হবে তখনই তারা অস্ট্রেলিয়ান ডিফেন্স ফোর্সকে (এডিএফ) ডাকতে পারবে। ২০১৪ সালে সিডনিতে একটি জিম্মি দশায় পুলিশ যে গতিতে অভিযান পরিচালনা করেছে তা নিয়ে অনেকটা সমালোচনা হয়েছে। এখন যে আইন আছে তার অধীনে পুলিশ তখনই সেনাবাহিনীকে ডাকতে পারবে যখন তারা অক্ষমতা প্রকাশ করবে অথবা অক্ষমতার সীমায় পৌঁছে যাবে। নতুন আইনের অধীনে পুলিশ বাহিনীকে বিশেষায়িত প্রশিক্ষণ দিতে পারবে সেনাবাহিনী। এক সংবাদ সম্মেলনে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুল বলেছেন,  সন্ত্রাস নিয়ে অনেক আলোচনা হয়েছে। তাই তিনি পুলিশ বাহিনী এবং এডিএফের মধ্যে সহযোগিতামুলক সম্পর্ক গড়ে তুলতে চান।

পোস্ট শেয়ার করুন

সন্ত্রাস মোকাবিলায় সেনাবাহিনীকে ব্যবহার করতে চায় অস্ট্রেলিয়া

আপডেটের সময় : ০১:৫৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুলাই ২০১৭

দেশের ভিতরে সন্ত্রাসী হুমকি মোকাবিলায় সেনাবাহিনীকে ব্যবহার করতে চাইছে অস্ট্রেলিয়া। এ জন্য তাদেরকে নতুন করে ক্ষমতা দেয়া হবে। সন্ত্রাস বিরোধী এক রিভিউতে জাতীয় নিরাপত্তা বিষয়ক আইনে এ পরিবর্তনের কথা প্রস্তাব করেছে সরকার। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি। এতে বলা হয়েছে, হুমকি মোকাবিলা করতে গিয়ে পুলিশের যখনই প্রয়োজন হবে তখনই তারা অস্ট্রেলিয়ান ডিফেন্স ফোর্সকে (এডিএফ) ডাকতে পারবে। ২০১৪ সালে সিডনিতে একটি জিম্মি দশায় পুলিশ যে গতিতে অভিযান পরিচালনা করেছে তা নিয়ে অনেকটা সমালোচনা হয়েছে। এখন যে আইন আছে তার অধীনে পুলিশ তখনই সেনাবাহিনীকে ডাকতে পারবে যখন তারা অক্ষমতা প্রকাশ করবে অথবা অক্ষমতার সীমায় পৌঁছে যাবে। নতুন আইনের অধীনে পুলিশ বাহিনীকে বিশেষায়িত প্রশিক্ষণ দিতে পারবে সেনাবাহিনী। এক সংবাদ সম্মেলনে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুল বলেছেন,  সন্ত্রাস নিয়ে অনেক আলোচনা হয়েছে। তাই তিনি পুলিশ বাহিনী এবং এডিএফের মধ্যে সহযোগিতামুলক সম্পর্ক গড়ে তুলতে চান।