ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
প্রিয়জনদের মানসিক রোগ যদি আপনজন বুঝতে না পারেন আওয়ামীলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা ও অভিষেক অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা করেছে পর্তুগাল আওয়ামীলীগ যেকোনো প্রচেষ্টা এককভাবে সম্পন্ন করা সম্ভব নয়: দুদক সচিব শ্রীমঙ্গলে দুটি চোরাই মোটরসাইকেল সহ মিল্টন কুমার আটক পর্তুগালের অভিবাসন আইনে ব্যাপক পরিবর্তন পর্তুগাল বিএনপি আহবায়ক কমিটির জুমে জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয় এমপি আনোয়ারুল আজিমকে হত্যার ঘটনায় আটক তিনজন , এতে বাংলাদেশী মানুষ জড়িত:স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকাস্থ ইরান দুতাবাসে রাইসির শোক বইয়ে মির্জা ফখরুলের স্বাক্ষর মুটো ফোনের আসক্তি দূর করবেন যেভাবে…

‘শিক্ষার কোনো বয়স নেই’ প্রমাণ করলেন ওসি!

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ
  • আপডেটের সময় : ১১:২৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৯
  • / ৮২৮ টাইম ভিউ

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ   শিক্ষার কোনো বয়স নেই। সে কথাটাই প্রমাণ করলেন ডিমলা থানার ওসি মফিজ উদ্দিন শেখ। তিনি পুলিশ বিভাগের শত ব্যবস্তার মাঝেও চাকরিজীবনের ৩০ বছর পেরিয়ে এবারে এসএসসি পরীক্ষা দিচ্ছেন।

তিনি পুলিশের কনস্টেবল হিসেবে চাকরিতে যোগ দেন অষ্টম শ্রেণি পাস করে। তারপর পর্যায়ক্রমে পুলিশের পদোন্নতি পরীক্ষায় মেধার গুণে তিনি এখন থানার ওসি হিসেবে দায়িত্বপালন করছেন।

তার কর্মজীবনে নিরলস প্রচেষ্টা ও পদোন্নতি তাকে প্রেরণা জুগিয়েছে। তার পেছনে ফেলা আসা শিক্ষাজীবনের হাতছানিতে তিনি লেখাপড়ায় মনোযোগী হয়ে এসএসসি পরীক্ষায় বসেছেন।

তাই চলতি সালে বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে অনুষ্ঠিত এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছেন। তিনি আলহাজ মোবারক হোসেন উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে পরীক্ষা দিচ্ছেন।

ডিমলা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হিসেবে মফিজ উদ্দিন শেখ ২০১৭ সালের ১৭ মার্চ যোগদান করেন। পরবর্তীতে ২০১৮ সালের ২০ মে তিনি ডিমলা থানার ওসি হিসেবে দায়িত্বভার গ্রহণ করেন। বর্তমানে তিনি সেখানে কর্মরত রয়েছেন। তিনি চাকরিজীবনে পুলিশের কনস্টেবল হিসেবে যোগদান করেন।

জলঢাকা আলহাজ মোবারক হোসেন উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক রোকনুজ্জামান চৌধুরী বলেন, ২০১৭ সালের জলঢাকায় থেকে তিনি (বাউবি) বাংলাদেশ উন্মক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে নবম শ্রেণিতে ভর্তি হন। ২টি সেমিস্টারের অনুষ্ঠিত পরীক্ষায় এবার দ্বিতীয় সেমিস্টারের পরীক্ষা দিচ্ছেন।

এ ব্যাপারে ওসি মফিজ উদ্দিন শেখ যুগান্তরকে বলেন, তার শিক্ষা নিয়ে জীবনে অতৃপ্তি ছিল। কিন্তু চাকরির শেষ জীবনে এসে তিনি সে সাধ পূরণের জন্য এবারে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছেন।

নীলফামারীর পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন বলেন, অনেকে ওসির পরীক্ষায় অংশ নেয়ার ঘটনায় নানা কথা বলছেন। কিন্তু আমি মনে করি এটাকে ‘পজেটিভ’ দেখা উচিত। একটি মানুষ তার অসমাপ্ত শিক্ষাজীবন চাকরি করা অবস্থায় প্রায় ৩০ বছর পর আবারও শুরু করছেন এটা তো ভালো উদ্যোগ। তিনি এত দিন যেভাবে পদোন্নতি পেয়েছেন নিশ্চয় তিনি মেধার কারণে তা পেয়েছেন।

পোস্ট শেয়ার করুন

‘শিক্ষার কোনো বয়স নেই’ প্রমাণ করলেন ওসি!

আপডেটের সময় : ১১:২৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৯

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ   শিক্ষার কোনো বয়স নেই। সে কথাটাই প্রমাণ করলেন ডিমলা থানার ওসি মফিজ উদ্দিন শেখ। তিনি পুলিশ বিভাগের শত ব্যবস্তার মাঝেও চাকরিজীবনের ৩০ বছর পেরিয়ে এবারে এসএসসি পরীক্ষা দিচ্ছেন।

তিনি পুলিশের কনস্টেবল হিসেবে চাকরিতে যোগ দেন অষ্টম শ্রেণি পাস করে। তারপর পর্যায়ক্রমে পুলিশের পদোন্নতি পরীক্ষায় মেধার গুণে তিনি এখন থানার ওসি হিসেবে দায়িত্বপালন করছেন।

তার কর্মজীবনে নিরলস প্রচেষ্টা ও পদোন্নতি তাকে প্রেরণা জুগিয়েছে। তার পেছনে ফেলা আসা শিক্ষাজীবনের হাতছানিতে তিনি লেখাপড়ায় মনোযোগী হয়ে এসএসসি পরীক্ষায় বসেছেন।

তাই চলতি সালে বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে অনুষ্ঠিত এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছেন। তিনি আলহাজ মোবারক হোসেন উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে পরীক্ষা দিচ্ছেন।

ডিমলা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হিসেবে মফিজ উদ্দিন শেখ ২০১৭ সালের ১৭ মার্চ যোগদান করেন। পরবর্তীতে ২০১৮ সালের ২০ মে তিনি ডিমলা থানার ওসি হিসেবে দায়িত্বভার গ্রহণ করেন। বর্তমানে তিনি সেখানে কর্মরত রয়েছেন। তিনি চাকরিজীবনে পুলিশের কনস্টেবল হিসেবে যোগদান করেন।

জলঢাকা আলহাজ মোবারক হোসেন উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক রোকনুজ্জামান চৌধুরী বলেন, ২০১৭ সালের জলঢাকায় থেকে তিনি (বাউবি) বাংলাদেশ উন্মক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে নবম শ্রেণিতে ভর্তি হন। ২টি সেমিস্টারের অনুষ্ঠিত পরীক্ষায় এবার দ্বিতীয় সেমিস্টারের পরীক্ষা দিচ্ছেন।

এ ব্যাপারে ওসি মফিজ উদ্দিন শেখ যুগান্তরকে বলেন, তার শিক্ষা নিয়ে জীবনে অতৃপ্তি ছিল। কিন্তু চাকরির শেষ জীবনে এসে তিনি সে সাধ পূরণের জন্য এবারে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছেন।

নীলফামারীর পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন বলেন, অনেকে ওসির পরীক্ষায় অংশ নেয়ার ঘটনায় নানা কথা বলছেন। কিন্তু আমি মনে করি এটাকে ‘পজেটিভ’ দেখা উচিত। একটি মানুষ তার অসমাপ্ত শিক্ষাজীবন চাকরি করা অবস্থায় প্রায় ৩০ বছর পর আবারও শুরু করছেন এটা তো ভালো উদ্যোগ। তিনি এত দিন যেভাবে পদোন্নতি পেয়েছেন নিশ্চয় তিনি মেধার কারণে তা পেয়েছেন।