ঢাকা , রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
লিসবনে আত্মপ্রকাশ হয় সামাজিক সংগঠন “গোলাপগঞ্জ কমিউনিটি কেয়ারর্স পর্তুগাল “ উচ্ছ্বাস আর আনন্দে বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখের উদযাপন করেছে পর্তুগাল যথাযথ গাম্ভীর্যের মধ্যে দিয়ে পরিবেশে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর পালন করেছে ভেনিস প্রবাসীরা ভেনিসে বৃহত্তর সিলেট সমিতির আয়োজনে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত এক অসুস্থ প্রজন্ম কে সাথি করে এগুচ্ছি আমরা রিডানডেন্ট ক্লোথিং আর মজুর মামার ‘বিশ্বকাপ’ ইউরোপের সবচেয়ে বড় ঈদুল ফিতরের নামাজ পর্তুগালে অনুষ্ঠিত হয় বর্ণাঢ্য আয়োজনে পর্তুগাল বাংলা প্রেসক্লাবের ইফতার ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন ঈদের কাপড় কিনার জন্য মা’য়ের উপর অভিমান করে মেয়ের আত্মহত্যা লিসবনে বন্ধু মহলের আয়োজনে বিশাল ইফতার ও দোয়া মাহফিল

শিক্ষার্থীদের ফাঁসাতে বাসে পরিবহন শ্রমিকের আগুন

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ
  • আপডেটের সময় : ০৪:৩০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৯ মার্চ ২০১৯
  • / ৭৫৭ টাইম ভিউ

রাজধানীর নর্দ্দায় সুপ্রভাত বাসের চাপায় এক শিক্ষার্থী নিহতে ঘটনায় আন্দোলনে রাজপথে সহপাঠিরা। মেয়রের আশ্বাসের পরও তারা পথ সড়ক ছাড়েনি। আন্দোলন অব্যাহত রয়েছে। তাদের সঙ্গে যোগ দিয়েছে ইনডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীরা। এই অবস্থায় তাদের ফাঁসাতে ভিন্ন কৌশল নেয়া হয়। এক পরিবহন শ্রমিক নিজেই বাসে আগুন ধরিয়ে দেয়। পরে শিক্ষার্থীরা ওই আগুন নেভানোর চেষ্টা চালায়।

জানা যায়, আন্দোলন চলাকালে দুপুর সাড়ে ১২টার দিক সুপ্রভাত বাসেরই এক হেলপার হঠাৎ করে এসে বাসে আগুন ধরিয়ে দেয়।এতে শিক্ষার্থীরা হতবিহ্বল হয়ে পড়েন। এ নিয়ে বিইউপি  ও ইনডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝির সৃষ্টি হয়। তারা হাতাহাতিতেও জড়িয়ে পড়েন। পরে শ্রমিকের আগুন লাগানোর বিষয়টি ধরা পড়লে ভুল বোঝাবুঝির অবসান হয়।

এদিকে বাসে আগুন দেয়া ওই শ্রমিককে ধরতে গেলে সে কৌশলে পালিয়ে যায়। এ সময় শিক্ষার্থী পানি এনে বাসের আগুন নেভানোর চেষ্টা করে।

পোস্ট শেয়ার করুন

শিক্ষার্থীদের ফাঁসাতে বাসে পরিবহন শ্রমিকের আগুন

আপডেটের সময় : ০৪:৩০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৯ মার্চ ২০১৯

রাজধানীর নর্দ্দায় সুপ্রভাত বাসের চাপায় এক শিক্ষার্থী নিহতে ঘটনায় আন্দোলনে রাজপথে সহপাঠিরা। মেয়রের আশ্বাসের পরও তারা পথ সড়ক ছাড়েনি। আন্দোলন অব্যাহত রয়েছে। তাদের সঙ্গে যোগ দিয়েছে ইনডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীরা। এই অবস্থায় তাদের ফাঁসাতে ভিন্ন কৌশল নেয়া হয়। এক পরিবহন শ্রমিক নিজেই বাসে আগুন ধরিয়ে দেয়। পরে শিক্ষার্থীরা ওই আগুন নেভানোর চেষ্টা চালায়।

জানা যায়, আন্দোলন চলাকালে দুপুর সাড়ে ১২টার দিক সুপ্রভাত বাসেরই এক হেলপার হঠাৎ করে এসে বাসে আগুন ধরিয়ে দেয়।এতে শিক্ষার্থীরা হতবিহ্বল হয়ে পড়েন। এ নিয়ে বিইউপি  ও ইনডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝির সৃষ্টি হয়। তারা হাতাহাতিতেও জড়িয়ে পড়েন। পরে শ্রমিকের আগুন লাগানোর বিষয়টি ধরা পড়লে ভুল বোঝাবুঝির অবসান হয়।

এদিকে বাসে আগুন দেয়া ওই শ্রমিককে ধরতে গেলে সে কৌশলে পালিয়ে যায়। এ সময় শিক্ষার্থী পানি এনে বাসের আগুন নেভানোর চেষ্টা করে।