ঢাকা , রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
লিসবনে আত্মপ্রকাশ হয় সামাজিক সংগঠন “গোলাপগঞ্জ কমিউনিটি কেয়ারর্স পর্তুগাল “ উচ্ছ্বাস আর আনন্দে বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখের উদযাপন করেছে পর্তুগাল যথাযথ গাম্ভীর্যের মধ্যে দিয়ে পরিবেশে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর পালন করেছে ভেনিস প্রবাসীরা ভেনিসে বৃহত্তর সিলেট সমিতির আয়োজনে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত এক অসুস্থ প্রজন্ম কে সাথি করে এগুচ্ছি আমরা রিডানডেন্ট ক্লোথিং আর মজুর মামার ‘বিশ্বকাপ’ ইউরোপের সবচেয়ে বড় ঈদুল ফিতরের নামাজ পর্তুগালে অনুষ্ঠিত হয় বর্ণাঢ্য আয়োজনে পর্তুগাল বাংলা প্রেসক্লাবের ইফতার ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন ঈদের কাপড় কিনার জন্য মা’য়ের উপর অভিমান করে মেয়ের আত্মহত্যা লিসবনে বন্ধু মহলের আয়োজনে বিশাল ইফতার ও দোয়া মাহফিল

শরীফপুরে মোবাইলে জোরে কথা বলাকে কেন্দ্র করে এক যুবককে কুপিয়ে মারাত্মক জখম

নিউজ ডেস্ক
  • আপডেটের সময় : ০৮:৪৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩ মে ২০১৯
  • / ২৭৬০ টাইম ভিউ

কুলাউড়ায় মোবাইলে জোরে কথা বলাকে কেন্দ্র করে জুয়েল মিয়া ও তাঁর বন্ধু জাকির আহমদ মিলে (জুয়েলের) চাচাতো ভাই সোহেল মিয়া (২৪) নামে এক যুবককে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করা হয়েছে।

শুক্রবার ৩ মে বিকেল ৫টার দিকে উপজেলার সীমান্তবর্তী শরীফপুর ইউনিয়নের ইটারঘাট এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে।

জানা যায়, বৃহস্পতিবার রাতে শরীফপুর ইউনিয়নের ইটাঘাট বাজার ওই এলাকায় কাইয়ূম মিয়ার ছেলে সোহেল মিয়ার সাথে মোবাইলে জোরে কথা বলা নিয়ে একই এলাকার রইছ আলীর ছেলে জাকির আহমদের হাতাহাতি ও বাকবিতণ্ডা হয়। পরে স্থানীয়দের হস্তক্ষেপে বিষয়টি ওই সময় মিমাংসা করা হয়।

শুক্রবার বিকেল ৫টার দিকে ইটাঘাট বাজারে জাকির ও তাঁর বন্ধু (সোহেলের চাচাতো ভাই) মতিন মিয়ার ছেলে জুয়েল মিলে সোহেলের ওপর হামলা চালায়। এসময় তাদের মধ্যে ধ্বস্তাধস্তির একপর্যায়ে জুয়েল ও জাকির সোহেলকে দা দিয়ে কোপাতে থাকে। দায়ের কুপে সোহেলের দু’পায়ের রগ ও মাথায় মারাত্মক জখম হয়। স্থানীয়রা সোহেলকে উদ্ধার করে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। তাঁর অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালের চিকিৎসকরা সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

পোস্ট শেয়ার করুন

শরীফপুরে মোবাইলে জোরে কথা বলাকে কেন্দ্র করে এক যুবককে কুপিয়ে মারাত্মক জখম

আপডেটের সময় : ০৮:৪৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩ মে ২০১৯

কুলাউড়ায় মোবাইলে জোরে কথা বলাকে কেন্দ্র করে জুয়েল মিয়া ও তাঁর বন্ধু জাকির আহমদ মিলে (জুয়েলের) চাচাতো ভাই সোহেল মিয়া (২৪) নামে এক যুবককে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করা হয়েছে।

শুক্রবার ৩ মে বিকেল ৫টার দিকে উপজেলার সীমান্তবর্তী শরীফপুর ইউনিয়নের ইটারঘাট এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে।

জানা যায়, বৃহস্পতিবার রাতে শরীফপুর ইউনিয়নের ইটাঘাট বাজার ওই এলাকায় কাইয়ূম মিয়ার ছেলে সোহেল মিয়ার সাথে মোবাইলে জোরে কথা বলা নিয়ে একই এলাকার রইছ আলীর ছেলে জাকির আহমদের হাতাহাতি ও বাকবিতণ্ডা হয়। পরে স্থানীয়দের হস্তক্ষেপে বিষয়টি ওই সময় মিমাংসা করা হয়।

শুক্রবার বিকেল ৫টার দিকে ইটাঘাট বাজারে জাকির ও তাঁর বন্ধু (সোহেলের চাচাতো ভাই) মতিন মিয়ার ছেলে জুয়েল মিলে সোহেলের ওপর হামলা চালায়। এসময় তাদের মধ্যে ধ্বস্তাধস্তির একপর্যায়ে জুয়েল ও জাকির সোহেলকে দা দিয়ে কোপাতে থাকে। দায়ের কুপে সোহেলের দু’পায়ের রগ ও মাথায় মারাত্মক জখম হয়। স্থানীয়রা সোহেলকে উদ্ধার করে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। তাঁর অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালের চিকিৎসকরা সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।