ঢাকা , রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
এমপি আনোয়ারুল আজিমকে হত্যার ঘটনায় আটক তিনজন , এতে বাংলাদেশী মানুষ জড়িত:স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকাস্থ ইরান দুতাবাসে রাইসির শোক বইয়ে মির্জা ফখরুলের স্বাক্ষর মুটো ফোনের আসক্তি দূর করবেন যেভাবে… এই অভ্যাসগুলোর চর্চা নিয়মিত করা উচিৎ স্বামী-স্ত্রীর বয়সের পার্থক্য থাকা জরুরি কেনো ? পুনাক এর উদ্যোগে দুস্হ ও অসহায় নারীদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরন করা হয়েছে কুলাউড়ার টিলাগাঁও এ সরকারি গাছ বিক্রি করলেন প্রধান শিক্ষক লটারি বাইক জিতলো মা’ সে কারণে কপাল পুড়লো মেয়ের ফজরের নামাজে যাওয়ার সময় রাস্তায় কুকুর দলের আক্রমনে প্রান গেলো ইজাজুলের সাবেক সাংসদ সেলিমা আহমাদ মেরীর সাথে পর্তুগাল আওয়ামিলীগের মতবিনিময় সভা

‘শনিবার বাংলার চাষিদের তালিকা দিন, সোমবার অ্যাকাউন্টে টাকা চলে আসবে’, মমতাকে চ্যালেঞ্জ অমিতের

নিউজ ডেস্ক
  • আপডেটের সময় : ০২:৫৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ জুন ২০২০
  • / ৫৫৬ টাইম ভিউ

দেশদিগন্ত ডেস্ক: বিবেকান্নন্দ, রাজা রামমোহন, প্রণবানন্দজী, শ্যামপ্রসাদ মুখার্জি, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, বটুকেশ্বর দত্তের বঙ্গভূমিকে প্রণাম। করোনা ও আমফানে মৃতদের প্রণাম। বিজেপি কার্যকর্তা যাঁরা হিংসায় প্রাণ হারিয়েছেন, তাদের প্রণাম। করোনা যোদ্ধাদের প্রণাম।

করোনার মধ্যেও টেকনোলজির মাধ্যমে এই সভার আয়োজনে মোদীকে ধন্যবাদ। মোদী পথ দেখিয়েছেন। করোনা বিজেপিকে আটকাতে পারবে না।

দেশে ৩০৩ আসন পেলেও আমার কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বাংলার ১৮টি আসন। এটা বাংলার মানুষের আশীর্বাদ, বিজেপির শক্তি। সারা দেশে যখন আইন প্রতিষ্ঠা হয়েছে, তখন একমাত্র বাংলাতেই হিংসা বিদ্যমান।ভারতীয় জনতা পার্টি আবার সোনার বাংলা বানাতে চায়।

এই ভার্চুয়াল জনসভা বিজেপিকে আগে বাড়ানোর একটা রাস্তা। স্বপ্নকে সফল করতে গেলে জনসংযোগ, জনসংবাদ খুব গুরুত্বপূর্ণ।

১০ বছর সত্তাতে বসেও শুধু অভিযোগ করে না বিজেপি। আমরা কাজ করে হিসেব দেওয়ার পক্ষপাতী।

ভারতের ইতিহাস লেখার সময় এই ভার্চুয়াল জনসভার কথাও লেখা হবে।

৭০ হাজার LED স্ক্রিন বাংলায় লাগানো হয়েছে। এরজন্য দিলীপ ঘোষ, কৈলাস বিজয়বর্গীয়কে ধন্যবাদ।

মোদী ২.০ সরকারের প্রথম বর্ষপূর্তি। এই ৬ বছর ধরে গরিবদের জন্য কাজ করে গিয়েছে মোদী সরকার।

জন ধন যোজনায় ৩১ কোটি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট। টাকা সেই অ্যাকাউন্টে সরাসরি পাঠানো হয়েছে।

আয়ুষ্মান ভারতে ৫০ কোটি ভারতীয় উপকৃত। ৫ লাখের স্বাস্থ্যবিমা। ১ কোটি ভারতীয়ের অস্ত্রোপচার হয়েছে বিনামূল্যে।

বাংলায় গরিবদের কি চিকিৎসার কোনও অধিকার নেই? গরিবদের অধিকার থেকে বঞ্চিত করছে বাংলার সরকার।

বাংলায় স্বাস্থ্য যোজনা সূচনা হতে দেয়নি বাংলা সরকার। অরবিন্দ কেজরিওয়ালও স্বীকার করেছেন।

বাংলায় বিজেপি মুখ্যমন্ত্রী শপথ নেওয়ার ১ মিনিটের মধ্যেই চালু হয়ে যাবে আয়ুষ্মান ভারত।

৮ কোটি গরিব ঘরে সিলিন্ডার দিয়েছে মোদী সরকার। আড়াই কোটি ঘরে বিদ্যুৎ উজ্জ্বলা প্রকল্পে।

মমতাজি, আপনি বন্ধ কারখানার সংখ্যা দিন।

সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের মাধ্যমে দুনিয়ায় সন্দেশ, ভারতীয় জওয়ানদের জীবন এত সস্তা নয়। তাদের সাথে ‘ছেড়খানির’ দাম ‘ভারী’ পড়বে। আতঙ্কবাদে জিরো টলারেন্স বার্তা।

দেশকে অখণ্ডতার জন্য ৩৭০ অনুচ্ছেদ, ৩৫এ অনুচ্ছেদের বিলোপ ঘটানো হয়েছে। শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জির স্বপ্ন ছিল এটা। তিনি কাশ্মীর আন্দোলনেই নিজেেকে বলিদান দিয়েছিলেন। ১৪ বছর বয়সে যখন কার্যকর্তা হয়েছি, তখন থেকেই এই বলিদানকে স্মরণ করে স্বপ্ন দেখেছি কাশ্মীরের অখণ্ডতা।

সঠিক যুক্তিতে অযোধ্যা রামমন্দির মামলার ফয়সলা হয়েছে। ট্রাস্ট গঠন করেছে মোদী সরকার। আর কিছুদিনের মধ্যেই আকাশ উঁচু রামমন্দির তৈরি হবে।

তিন তালাককে ‘তালাক’ দিয়েছে মোদী সরকার।

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাস হওয়ায় বিরোধিতায় নামেন মমতাদি। মতুয়া সমাজ, নমঃশূদ্র, বাংলাদেশ থেকে যে ভাইবোনেরা এসেছেন, তাঁদের সাথে কী বিরোধ? শরণার্থীদের নাগরিকত্ব দেওয়ার বিরোধিতা কেন? সিএএ বিরোধিতার দাম চুকাতে হবে মমতাদিকে।

সাড়ে ৯ কোটি কৃষককে ৭২ হাজার কোটি টাকা তাঁদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে পাঠানো হয়েছে। বছরে ৬০০০ হাজার টাকা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী কিন্তু মমতাদি বাংলার কৃষককে সেই টাকা দিতে দিচ্ছে না। বঞ্চিত করছে বাংলার কৃষকদের। গরিব কৃষকদের সঙ্গে কেন রাজনীতি করছেন? রাজনীতি করার অনেক বিষয় আছে।

মোদীর নেতৃত্বে করোনা মহামারীর বিরুদ্ধে লড়ছেন ১৩০ কোটি ভারতীয়। করোনা মোকাবিলায় গরিব কল্যাণ যোজনা মোদী সরকারের।

পরিযায়ী শ্রমিকদের ঘরে ফেরানোর জন্য উদ্যোগী কেন্দ্রীয়.সরকার। কিন্তু বাংলায় শ্রমিকদের ফিরতে বাধা দেওয়া হচ্ছে।

পোস্ট শেয়ার করুন

‘শনিবার বাংলার চাষিদের তালিকা দিন, সোমবার অ্যাকাউন্টে টাকা চলে আসবে’, মমতাকে চ্যালেঞ্জ অমিতের

আপডেটের সময় : ০২:৫৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ জুন ২০২০

দেশদিগন্ত ডেস্ক: বিবেকান্নন্দ, রাজা রামমোহন, প্রণবানন্দজী, শ্যামপ্রসাদ মুখার্জি, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, বটুকেশ্বর দত্তের বঙ্গভূমিকে প্রণাম। করোনা ও আমফানে মৃতদের প্রণাম। বিজেপি কার্যকর্তা যাঁরা হিংসায় প্রাণ হারিয়েছেন, তাদের প্রণাম। করোনা যোদ্ধাদের প্রণাম।

করোনার মধ্যেও টেকনোলজির মাধ্যমে এই সভার আয়োজনে মোদীকে ধন্যবাদ। মোদী পথ দেখিয়েছেন। করোনা বিজেপিকে আটকাতে পারবে না।

দেশে ৩০৩ আসন পেলেও আমার কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বাংলার ১৮টি আসন। এটা বাংলার মানুষের আশীর্বাদ, বিজেপির শক্তি। সারা দেশে যখন আইন প্রতিষ্ঠা হয়েছে, তখন একমাত্র বাংলাতেই হিংসা বিদ্যমান।ভারতীয় জনতা পার্টি আবার সোনার বাংলা বানাতে চায়।

এই ভার্চুয়াল জনসভা বিজেপিকে আগে বাড়ানোর একটা রাস্তা। স্বপ্নকে সফল করতে গেলে জনসংযোগ, জনসংবাদ খুব গুরুত্বপূর্ণ।

১০ বছর সত্তাতে বসেও শুধু অভিযোগ করে না বিজেপি। আমরা কাজ করে হিসেব দেওয়ার পক্ষপাতী।

ভারতের ইতিহাস লেখার সময় এই ভার্চুয়াল জনসভার কথাও লেখা হবে।

৭০ হাজার LED স্ক্রিন বাংলায় লাগানো হয়েছে। এরজন্য দিলীপ ঘোষ, কৈলাস বিজয়বর্গীয়কে ধন্যবাদ।

মোদী ২.০ সরকারের প্রথম বর্ষপূর্তি। এই ৬ বছর ধরে গরিবদের জন্য কাজ করে গিয়েছে মোদী সরকার।

জন ধন যোজনায় ৩১ কোটি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট। টাকা সেই অ্যাকাউন্টে সরাসরি পাঠানো হয়েছে।

আয়ুষ্মান ভারতে ৫০ কোটি ভারতীয় উপকৃত। ৫ লাখের স্বাস্থ্যবিমা। ১ কোটি ভারতীয়ের অস্ত্রোপচার হয়েছে বিনামূল্যে।

বাংলায় গরিবদের কি চিকিৎসার কোনও অধিকার নেই? গরিবদের অধিকার থেকে বঞ্চিত করছে বাংলার সরকার।

বাংলায় স্বাস্থ্য যোজনা সূচনা হতে দেয়নি বাংলা সরকার। অরবিন্দ কেজরিওয়ালও স্বীকার করেছেন।

বাংলায় বিজেপি মুখ্যমন্ত্রী শপথ নেওয়ার ১ মিনিটের মধ্যেই চালু হয়ে যাবে আয়ুষ্মান ভারত।

৮ কোটি গরিব ঘরে সিলিন্ডার দিয়েছে মোদী সরকার। আড়াই কোটি ঘরে বিদ্যুৎ উজ্জ্বলা প্রকল্পে।

মমতাজি, আপনি বন্ধ কারখানার সংখ্যা দিন।

সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের মাধ্যমে দুনিয়ায় সন্দেশ, ভারতীয় জওয়ানদের জীবন এত সস্তা নয়। তাদের সাথে ‘ছেড়খানির’ দাম ‘ভারী’ পড়বে। আতঙ্কবাদে জিরো টলারেন্স বার্তা।

দেশকে অখণ্ডতার জন্য ৩৭০ অনুচ্ছেদ, ৩৫এ অনুচ্ছেদের বিলোপ ঘটানো হয়েছে। শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জির স্বপ্ন ছিল এটা। তিনি কাশ্মীর আন্দোলনেই নিজেেকে বলিদান দিয়েছিলেন। ১৪ বছর বয়সে যখন কার্যকর্তা হয়েছি, তখন থেকেই এই বলিদানকে স্মরণ করে স্বপ্ন দেখেছি কাশ্মীরের অখণ্ডতা।

সঠিক যুক্তিতে অযোধ্যা রামমন্দির মামলার ফয়সলা হয়েছে। ট্রাস্ট গঠন করেছে মোদী সরকার। আর কিছুদিনের মধ্যেই আকাশ উঁচু রামমন্দির তৈরি হবে।

তিন তালাককে ‘তালাক’ দিয়েছে মোদী সরকার।

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাস হওয়ায় বিরোধিতায় নামেন মমতাদি। মতুয়া সমাজ, নমঃশূদ্র, বাংলাদেশ থেকে যে ভাইবোনেরা এসেছেন, তাঁদের সাথে কী বিরোধ? শরণার্থীদের নাগরিকত্ব দেওয়ার বিরোধিতা কেন? সিএএ বিরোধিতার দাম চুকাতে হবে মমতাদিকে।

সাড়ে ৯ কোটি কৃষককে ৭২ হাজার কোটি টাকা তাঁদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে পাঠানো হয়েছে। বছরে ৬০০০ হাজার টাকা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী কিন্তু মমতাদি বাংলার কৃষককে সেই টাকা দিতে দিচ্ছে না। বঞ্চিত করছে বাংলার কৃষকদের। গরিব কৃষকদের সঙ্গে কেন রাজনীতি করছেন? রাজনীতি করার অনেক বিষয় আছে।

মোদীর নেতৃত্বে করোনা মহামারীর বিরুদ্ধে লড়ছেন ১৩০ কোটি ভারতীয়। করোনা মোকাবিলায় গরিব কল্যাণ যোজনা মোদী সরকারের।

পরিযায়ী শ্রমিকদের ঘরে ফেরানোর জন্য উদ্যোগী কেন্দ্রীয়.সরকার। কিন্তু বাংলায় শ্রমিকদের ফিরতে বাধা দেওয়া হচ্ছে।