শত্রুদের প্রতি সদয় হওয়া আল্লাহর রাসূলের নির্দেশ: পাকিস্তানি মেজর

বৃহস্পতিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ | ১২:৪৫ অপরাহ্ণ | 245 বার

শত্রুদের প্রতি সদয় হওয়া আল্লাহর রাসূলের নির্দেশ: পাকিস্তানি মেজর
‘আমরা দুই প্রতিবেশী শত্রু রাষ্ট্র হলেও পাকিস্তান আর্মি আমাকে আটকের পর চিকিৎসা দিয়েছে। সম্মান করেছে। পাক সেনারা খুবই ভদ্রলোক। আমি মনে করি পাকিস্তান আর্মি থেকে আমাদের ব্যবহার শেখার আছে’। সংবাদমাধ্যমে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন পাকিস্তানে আটক হওয়া ভারতীয় বিমানবাহিনীর পাইলট উইং কমান্ডার অভিনন্দন।এর আগে আজ বুধবার সকালে পাকিস্তানের আকাশসীমায় ঢোকায় দুই ভারতীয় বিমান ভূপাতিত করার দাবি করছে পাকিস্তান। এ সময় ভারতীয় বিমানবাহিনীর দুই পাইলটকে আটক করে পাক সেনারা।পাকিস্তানে বিমান হামলা চালাতে গিয়ে আহত অবস্থায় আটক হন ভারতীয় বিমানবাহিনীর পাইলট উইং কমান্ডার অভিনন্দন। আহত অভিনন্দনকে চিকিৎসা দেয় পাকিস্তান সেনাবাহিনী।পাকিস্তান সেনাবাহিনীর প্রশংসা করে অভিনন্দন বলেন, ‘আমি আপনাদের ব্যবহারে মুগ্ধ।’ তবে তিনি কোন বিমানটি চালাচ্ছিলেন তা জানতে চাইলে পাকিস্তানের এক মেজরকে বলেন, ‘আমি কী এসব কথা বলতে পারি? মেজর, আমি দুঃখিত। তবে চা বেশ ভালো হয়েছে।’ অভিনন্দন আরও বলেন, যারা পাকিস্তান সেনাদের বদনাম করেন তারা না জেনে করেন।এ সময় পাকিস্তান সেনাদের এক সিনিয়র অফিসার বলেন, শত্রুদের প্রতি সদয় হওয়া, তাদের সঙ্গে ভালো ব্যবহার করা আল্লাহর রাসূলের নির্দেশ। পাকিস্তানের মুসলমান রাসূল (সা.) এর নির্দেশ পালন করছে মাত্র। এদিকে পাকিস্তান ভারতীয় বিমানবাহিনীর দুটি বিমান ভূপাতিত আর দুইজন পাইলটকে আটক করার পর পারমাণবিক অস্ত্রধারী প্রতিবেশী দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা প্রকট আকার ধারণ করেছে। পাইলট আটকের পর পাকিস্তান একটি ভিডিও প্রকাশ করে।তবে প্রথমে ভারতের পক্ষ থেকে যুদ্ধবিমান ভূপাতিত আর পাইলট আটকের কথা অস্বীকার করে। তবে পরবর্তীতে ভারত একটি মিগ-২১ যুদ্ধবিমান ও একজন পাইলটের নিখোঁজ হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।মঙ্গলবার ভারতীয় বিমানবাহিনী পাকিস্তানে ঢুকে হামলা চালানোর পর পাকিস্তানের পক্ষ থেকে পাল্টা আক্রমণ চালানো হয়। তবে পাকিস্তান বলছে, তাদের সিমানায় ঢুকে যাওয়ার কারণেই তারা ভারতের যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করেছ। বুধভার সকালে ভারতীয় মিগ-২১ বিমান ভূপাতিত করার পর আহত অবস্থায় তাকে গ্রেফতার করে পাকিস্তান। তবে তার আঘাত গুরুত্বর ছিলো না। প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়ার পর ভিডিওটি ধারণা করা হয়েছে।বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার পর আজাদ কাশ্মিরের স্থানীয় বাসিন্দারা প্রথমে তাকে উদ্ধার করেন। দ্রুত পুলিশ ও সেনা সদস্যরা এসে ক্ষুব্ধ নাগরিকদের হাত থেকে তাকে রক্ষা করে।ভিডিওতে অভিনন্দন বলেন, ‘আমি এই বক্তব্য আমার রেকর্ডে রাখবো। দেশে ফিরে যাওয়ার পরও এখন যে কথা বলছি তা থেকে সড়ে আসবো না। পাকিস্তান সেনাবাহিনীর সদস্যরা আমাকে সুন্দরভাবে দেখভাল করছে’।তিনি বলেন, ‘যে ক্যাপ্টেন আমাকে ক্ষুব্ধ জনতার হাত থেকে রক্ষা করেছেন এবং পরবর্তীতে যে সেনা ইউনিটের কাছে আমাকে আনা হয়েছে সবাই সুন্দর ব্যবহার করেছণ। আমি আমার সেনাবাহিনীর কাছে যেমন ব্যবহার চাই, তেমন আচরণই পাচ্ছি এখানেও। পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর আচরণে আমি মুগ্ধ’। পাকিস্তানে বিমান হামলা চালাতে গিয়ে আহত অবস্থায় আটক হন ভারতীয় বিমানবাহিনীর পাইলট উইং কমান্ডার অভিনন্দন। আহত অভিনন্দনকে চিকিৎসা দেয় পাকিস্তান সেনাবাহিনী।

পাকিস্তান সেনাবাহিনীর প্রশংসা করে অভিনন্দন বলেন, ‘আমি আপনাদের ব্যবহারে মুগ্ধ।’ তবে তিনি কোন বিমানটি চালাচ্ছিলেন তা জানতে চাইলে পাকিস্তানের এক মেজরকে বলেন, ‘আমি কী এসব কথা বলতে পারি? মেজর, আমি দুঃখিত। তবে চা বেশ ভালো হয়েছে।’

অভিনন্দন আরও বলেন, যারা পাকিস্তান সেনাদের বদনাম করেন তারা না জেনে করেন।

এ সময় পাকিস্তান সেনাদের এক সিনিয়র অফিসার বলেন, শত্রুদের প্রতি সদয় হওয়া, তাদের সঙ্গে ভালো ব্যবহার করা আল্লাহর রাসূলের নির্দেশ। পাকিস্তানের মুসলমান রাসূল (সা.) এর নির্দেশ পালন করছে মাত্র।এদিকে পাকিস্তান ভারতীয় বিমানবাহিনীর দুটি বিমান ভূপাতিত আর দুইজন পাইলটকে আটক করার পর পারমাণবিক অস্ত্রধারী প্রতিবেশী দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা প্রকট আকার ধারণ করেছে। পাইলট আটকের পর পাকিস্তান একটি ভিডিও প্রকাশ করে।

তবে প্রথমে ভারতের পক্ষ থেকে যুদ্ধবিমান ভূপাতিত আর পাইলট আটকের কথা অস্বীকার করে। তবে পরবর্তীতে ভারত একটি মিগ-২১ যুদ্ধবিমান ও একজন পাইলটের নিখোঁজ হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

মঙ্গলবার ভারতীয় বিমানবাহিনী পাকিস্তানে ঢুকে হামলা চালানোর পর পাকিস্তানের পক্ষ থেকে পাল্টা আক্রমণ চালানো হয়। তবে পাকিস্তান বলছে, তাদের সিমানায় ঢুকে যাওয়ার কারণেই তারা ভারতের যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করেছ।বুধভার সকালে ভারতীয় মিগ-২১ বিমান ভূপাতিত করার পর আহত অবস্থায় তাকে গ্রেফতার করে পাকিস্তান। তবে তার আঘাত গুরুত্বর ছিলো না। প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়ার পর ভিডিওটি ধারণা করা হয়েছে।বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার পর আজাদ কাশ্মিরের স্থানীয় বাসিন্দারা প্রথমে তাকে উদ্ধার করেন। দ্রুত পুলিশ ও সেনা সদস্যরা এসে ক্ষুব্ধ নাগরিকদের হাত থেকে তাকে রক্ষা করে।ভিডিওতে অভিনন্দন বলেন, ‘আমি এই বক্তব্য আমার রেকর্ডে রাখবো। দেশে ফিরে যাওয়ার পরও এখন যে কথা বলছি তা থেকে সড়ে আসবো না। পাকিস্তান সেনাবাহিনীর সদস্যরা আমাকে সুন্দরভাবে দেখভাল করছে’।তিনি বলেন, ‘যে ক্যাপ্টেন আমাকে ক্ষুব্ধ জনতার হাত থেকে রক্ষা করেছেন এবং পরবর্তীতে যে সেনা ইউনিটের কাছে আমাকে আনা হয়েছে সবাই সুন্দর ব্যবহার করেছণ। আমি আমার সেনাবাহিনীর কাছে যেমন ব্যবহার চাই, তেমন আচরণই পাচ্ছি এখানেও। পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর আচরণে আমি মুগ্ধ’।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

১৬টি বছর খুব সুন্দর ছিলো’ চিরকুটে আত্মহননকারী কলেজ ছাত্রী

deshdiganto.com © 2019 কপিরাইট এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত

design and development by : TAP.Com