ঢাকা , রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান বিজয় দিবস উদযাপন করলো বাংলাদেশ দূতাবাস কুয়েত

নিউজ ডেস্ক
  • আপডেটের সময় : ০১:২৭ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৯
  • / ৫৪৯ টাইম ভিউ

কুয়েত থেকে :: যথাযোগ্য মর্যাদায় মৌলভীবাজারে পালিত হলো ৪৮ তম মহান বিজয় দিবস। বিজয় দিবসে বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলী নিবেদন করেছেন বাংলাদেশ দূতাবাস কুয়েত ।
সকাল ৯ টায় রাষ্ট্রদূত এসএম আবুল কালাম পতাকা উত্তোলনে মাধ্যমে ৪৮ তম মহান বিজয় দিবস অনুষ্ঠান প্রথম পর্ব শুরু হয় ।
দূতাবাসের বলরুমে বাংলাদেশ কমিউনিটির নেতৃবন্দদের নিয়ে আলোচনা সভা হয় ৯:৩০ ।
দূতালয় প্রধান মোহাম্মদ আনিসুজামান এর প্রানবন্ত উপস্হাপনায় – পর্যায়ক্রমে রাষ্ট্রপতির বানী, প্রধানমন্ত্রীর বানী, পররাষ্ট্র মন্ত্রী পাঠ করেন ডিফেন্স এর্টাসি বিগ্রেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মেদ আবু নাসের , প্রথম সচিব (পাসপোর্ট ) জহিরুল ইসলাম, বিমান কান্টিম্যানেজার হাফিজুল ইসলাম ও প্রসাশনিক কর্মকর্তা

১৯৭১ সালে দীর্ঘ ৯ মাসের রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধে ৩০ লাখ শহীদের আত্মত্যাগ আর দুই লাখ মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে এই দিনে বাঙালি জাতি ছিনিয়ে আনে বিজয়ের লাল সূর্য। পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর আত্মসমর্পণের মধ্য দিয়ে অবসান ঘটে দীর্ঘদিনের শোষণ বঞ্চনার।

রাষ্ট্রদূত এস এম আবুল কালাম বলে উন্নত দেশ গড়ার জন্য দেশে বিদেশে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে
,
উন্নত দেশ গড়তে হলে উন্নত মন মানুষকীতাও থাকবে হবে ।
আমরা এখনও লাইনে দাঁড়িয়ে কাজ করতে শিখি নি,
প্রবাসীদের দাবী দাওয়া প্রসংঙ্গে বলেন কোন কিছুর প্রয়োজন হলে প্রবাসীর দূতাবাসে এসে আমার সাথে বসে আলোচনা করতে পারেন ।
অনুষ্টানে আরো উপস্হিত ছিলেন আওয়ামীলীগ দুই অংশের দুই সভাপতি সাদেক হোসেন ও আতাউল গনি মামুন, আওয়ামী ফাউন্ডেশন কুয়েত’র সভাপতি রফিকুল ইসলাম ভূলু, বাহার উদ্দিন, নজরুল ইসলাম, এম ডি সেলিম, আশরাক আলী ফেরদোস সহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবন্দরা

পোস্ট শেয়ার করুন

যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান বিজয় দিবস উদযাপন করলো বাংলাদেশ দূতাবাস কুয়েত

আপডেটের সময় : ০১:২৭ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৯

কুয়েত থেকে :: যথাযোগ্য মর্যাদায় মৌলভীবাজারে পালিত হলো ৪৮ তম মহান বিজয় দিবস। বিজয় দিবসে বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলী নিবেদন করেছেন বাংলাদেশ দূতাবাস কুয়েত ।
সকাল ৯ টায় রাষ্ট্রদূত এসএম আবুল কালাম পতাকা উত্তোলনে মাধ্যমে ৪৮ তম মহান বিজয় দিবস অনুষ্ঠান প্রথম পর্ব শুরু হয় ।
দূতাবাসের বলরুমে বাংলাদেশ কমিউনিটির নেতৃবন্দদের নিয়ে আলোচনা সভা হয় ৯:৩০ ।
দূতালয় প্রধান মোহাম্মদ আনিসুজামান এর প্রানবন্ত উপস্হাপনায় – পর্যায়ক্রমে রাষ্ট্রপতির বানী, প্রধানমন্ত্রীর বানী, পররাষ্ট্র মন্ত্রী পাঠ করেন ডিফেন্স এর্টাসি বিগ্রেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মেদ আবু নাসের , প্রথম সচিব (পাসপোর্ট ) জহিরুল ইসলাম, বিমান কান্টিম্যানেজার হাফিজুল ইসলাম ও প্রসাশনিক কর্মকর্তা

১৯৭১ সালে দীর্ঘ ৯ মাসের রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধে ৩০ লাখ শহীদের আত্মত্যাগ আর দুই লাখ মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে এই দিনে বাঙালি জাতি ছিনিয়ে আনে বিজয়ের লাল সূর্য। পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর আত্মসমর্পণের মধ্য দিয়ে অবসান ঘটে দীর্ঘদিনের শোষণ বঞ্চনার।

রাষ্ট্রদূত এস এম আবুল কালাম বলে উন্নত দেশ গড়ার জন্য দেশে বিদেশে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে
,
উন্নত দেশ গড়তে হলে উন্নত মন মানুষকীতাও থাকবে হবে ।
আমরা এখনও লাইনে দাঁড়িয়ে কাজ করতে শিখি নি,
প্রবাসীদের দাবী দাওয়া প্রসংঙ্গে বলেন কোন কিছুর প্রয়োজন হলে প্রবাসীর দূতাবাসে এসে আমার সাথে বসে আলোচনা করতে পারেন ।
অনুষ্টানে আরো উপস্হিত ছিলেন আওয়ামীলীগ দুই অংশের দুই সভাপতি সাদেক হোসেন ও আতাউল গনি মামুন, আওয়ামী ফাউন্ডেশন কুয়েত’র সভাপতি রফিকুল ইসলাম ভূলু, বাহার উদ্দিন, নজরুল ইসলাম, এম ডি সেলিম, আশরাক আলী ফেরদোস সহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবন্দরা