ঢাকা , শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
প্রিয়জনদের মানসিক রোগ যদি আপনজন বুঝতে না পারেন আওয়ামীলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা ও অভিষেক অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা করেছে পর্তুগাল আওয়ামীলীগ যেকোনো প্রচেষ্টা এককভাবে সম্পন্ন করা সম্ভব নয়: দুদক সচিব শ্রীমঙ্গলে দুটি চোরাই মোটরসাইকেল সহ মিল্টন কুমার আটক পর্তুগালের অভিবাসন আইনে ব্যাপক পরিবর্তন পর্তুগাল বিএনপি আহবায়ক কমিটির জুমে জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয় এমপি আনোয়ারুল আজিমকে হত্যার ঘটনায় আটক তিনজন , এতে বাংলাদেশী মানুষ জড়িত:স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকাস্থ ইরান দুতাবাসে রাইসির শোক বইয়ে মির্জা ফখরুলের স্বাক্ষর মুটো ফোনের আসক্তি দূর করবেন যেভাবে…

মৌলভীবাজার – কমলগঞ্জ ও শমশেরনগর সড়কের বেহাল অবস্থা

ছয়ফুল আলম সাইফুল, মৌলভীবাজার প্রতিনিধিঃ
  • আপডেটের সময় : ১০:০৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৯
  • / ১২৮৪ টাইম ভিউ

ছয়ফুল আলম সাইফুল, মৌলভীবাজার প্রতিনিধিঃ  প্রতিদিন হাজার হাজার গাড়ি সাপের মতোই দৌড়াচ্ছে রাস্তায় বড় বড় গর্ত থাকার পরেও।যার ফলে প্রতিদিন র্দুঘটনা হচ্ছে আর গাড়ির অবস্থাও খারাপ হচ্ছে।কোনো এক সময় এই রাস্তা দিয়ে মৌলভী বাজার যেতে লাগতো ২০ থেকে ২৫ মিনিট আর এখন প্রায় ঘন্টা খানেক লেগে যায়। সম্পুর্ণ সুস্থ মানুষই গাড়ি চড়ে যেতে খুব কষ্ট হয়,এখন চিন্তা করেন অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে আসা-যাওয়া ডেলিভারি রোগী বা মূমুর্ষ রোগীর অবস্থা কি হতে পারে । মাঝে মাঝে রাস্তার বড় বড় গর্ত গুলোতে কাজ হয়.আর সেই কাজ দেখে মনে হয়,ভাঙ্গা রডে জ্বালা ও ছেড়া কাপড় রিনিউ দেওয়ার মত। এযেনো দেখেও না দেখার ভান করে আছেন সরকার দলীয় জনপ্রতিনিধিরা , পাথর আর গালার পরিমান দেখে মনে হয় ফ্লাল্গুন ও চৈত্র মাসে হালকা ঠান্ডা পড়লে মানুষ যেমন,হালকা বা পাতলা কাঁথা ব্যাবহার করে তেমন ভাবেই রাস্তাতে কার্পেটিং করা হয়। আমার ধারনা মতে বারবার এইকাজ না করে একবারে এই কাজ করলে অর্থ এবং সময় দুটোই বাঁচে। যারা দেখার তাদের চোখে কালো চশমা পড়া আর যারা বড় মাপের নেতা উনারা যে গাড়ি চড়েন সেই গাড়িতে রাস্তার গর্তে পরার ঝাকুনি বুঝাই যায় না.আমার মনে হয় বড় সব ধরনের জন প্রতিনিধিরা ছদ্ধবেশে.. যদি লোকাল সি.এন.জি বা বাসে উঠে এই রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করতেন। তাহলে বুঝতেন সাধারন মানুষ কি খারাপ ভাষায় গালি দেয়।আমার মত অনেকই তো গালি দেইনা শুনি.ভাই গালি শিখতে স্কুল কলেজে ভর্তি হওয়া লাগেনা।তার পরেও গালি দেইনা কারন,বিবেক বলে গালি দেওয়া হারাম.অথচ এই সড়ক দিয়ে দিনে হাজার হাজার লোকাল গাড়ি আসা যাওয়া করে আর কিছু কিছু বহিরাগত গাড়ি আসা যাওয়া করে শিক্ষা সফরে বা বনভোজনে ।কারন এই সড়ক দিয়ে হাম হাম জলপপ্রাত,মাধবপুর লেক,লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান,শ্রীমঙ্গল বধ্যভুমি এবং প্রাকৃতিক অপরূপ সৌন্দর্য্যের লিলাভুমি দেখতে আসে পর্যটকরা,এছাড়াও পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের জন্য এই রাস্তা ইন্টারন্যাশনাল ট্রান্সপোর্ট হিসেবে ব্যবহার করা হয়। তাই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট অভিযোগ নয় এলাকবাসীর আবেদন করেন সড়কটি মেরামত করলে এখানে বিভিন্ন এলাকা থেকে পর্যটকদের আগমনে মৌলভীবাজার জেলার অর্থনৈতিক অবস্হান আরো সুদৃঢ় হবে ।

পোস্ট শেয়ার করুন

মৌলভীবাজার – কমলগঞ্জ ও শমশেরনগর সড়কের বেহাল অবস্থা

আপডেটের সময় : ১০:০৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৯

ছয়ফুল আলম সাইফুল, মৌলভীবাজার প্রতিনিধিঃ  প্রতিদিন হাজার হাজার গাড়ি সাপের মতোই দৌড়াচ্ছে রাস্তায় বড় বড় গর্ত থাকার পরেও।যার ফলে প্রতিদিন র্দুঘটনা হচ্ছে আর গাড়ির অবস্থাও খারাপ হচ্ছে।কোনো এক সময় এই রাস্তা দিয়ে মৌলভী বাজার যেতে লাগতো ২০ থেকে ২৫ মিনিট আর এখন প্রায় ঘন্টা খানেক লেগে যায়। সম্পুর্ণ সুস্থ মানুষই গাড়ি চড়ে যেতে খুব কষ্ট হয়,এখন চিন্তা করেন অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে আসা-যাওয়া ডেলিভারি রোগী বা মূমুর্ষ রোগীর অবস্থা কি হতে পারে । মাঝে মাঝে রাস্তার বড় বড় গর্ত গুলোতে কাজ হয়.আর সেই কাজ দেখে মনে হয়,ভাঙ্গা রডে জ্বালা ও ছেড়া কাপড় রিনিউ দেওয়ার মত। এযেনো দেখেও না দেখার ভান করে আছেন সরকার দলীয় জনপ্রতিনিধিরা , পাথর আর গালার পরিমান দেখে মনে হয় ফ্লাল্গুন ও চৈত্র মাসে হালকা ঠান্ডা পড়লে মানুষ যেমন,হালকা বা পাতলা কাঁথা ব্যাবহার করে তেমন ভাবেই রাস্তাতে কার্পেটিং করা হয়। আমার ধারনা মতে বারবার এইকাজ না করে একবারে এই কাজ করলে অর্থ এবং সময় দুটোই বাঁচে। যারা দেখার তাদের চোখে কালো চশমা পড়া আর যারা বড় মাপের নেতা উনারা যে গাড়ি চড়েন সেই গাড়িতে রাস্তার গর্তে পরার ঝাকুনি বুঝাই যায় না.আমার মনে হয় বড় সব ধরনের জন প্রতিনিধিরা ছদ্ধবেশে.. যদি লোকাল সি.এন.জি বা বাসে উঠে এই রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করতেন। তাহলে বুঝতেন সাধারন মানুষ কি খারাপ ভাষায় গালি দেয়।আমার মত অনেকই তো গালি দেইনা শুনি.ভাই গালি শিখতে স্কুল কলেজে ভর্তি হওয়া লাগেনা।তার পরেও গালি দেইনা কারন,বিবেক বলে গালি দেওয়া হারাম.অথচ এই সড়ক দিয়ে দিনে হাজার হাজার লোকাল গাড়ি আসা যাওয়া করে আর কিছু কিছু বহিরাগত গাড়ি আসা যাওয়া করে শিক্ষা সফরে বা বনভোজনে ।কারন এই সড়ক দিয়ে হাম হাম জলপপ্রাত,মাধবপুর লেক,লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান,শ্রীমঙ্গল বধ্যভুমি এবং প্রাকৃতিক অপরূপ সৌন্দর্য্যের লিলাভুমি দেখতে আসে পর্যটকরা,এছাড়াও পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের জন্য এই রাস্তা ইন্টারন্যাশনাল ট্রান্সপোর্ট হিসেবে ব্যবহার করা হয়। তাই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট অভিযোগ নয় এলাকবাসীর আবেদন করেন সড়কটি মেরামত করলে এখানে বিভিন্ন এলাকা থেকে পর্যটকদের আগমনে মৌলভীবাজার জেলার অর্থনৈতিক অবস্হান আরো সুদৃঢ় হবে ।