ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মৌলভীবাজারে শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ী মৃত্যুতে মিষ্টি বিতরণ

নিউজ ডেস্ক
  • আপডেটের সময় : ০১:৫৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৮ এপ্রিল ২০১৯
  • / ৫৬৫ টাইম ভিউ

ম জুলফিকার, মৌলভীবাজার থেকে::পুলিশের খাতায় ডজন মাদক মামলা ছিল, এমনকি মরার পরেও লাশের পকেটে মিলেছে ৩১০ পিস ইয়াবা। মৌলভীবাজারের শীর্ষ ইয়াবা বিক্রেতা মুহিবুর রহমান জিতু (২৬) ২৭ এপ্রিল (শনিবার) দুপুরে জেলার রায়শ্রী এলাকায় পুলিশের গুলিতে নিহত হন।

জানা গেছে, পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালায়। এ সময় দেশীয় অস্ত্র নিয়ে পুলিশের ওপর আক্রমণ করলে পরে পুলিশ গুলি চালায়। পরে জিতুকে হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে। তার মৃত্যুর খবর জানাজানি হলে মিষ্টি বিতরণ করে এলাকাবাসী। জনমনে নেমে আসে স্বস্তি। জেলার রায়শ্রী, একাটুনা, পশ্চিমবাজার, চাদনীঘাটসহ বিভিন্ন এলাকায় মিষ্টি বিতরণ করতে দেখা গেছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পুলিশের প্রশংসার পাশাপাশি তার পেছনে থেকে যারা রাজনৈতিক প্রশ্রয় দিত তাদেরকে গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন জেলাবাসী।

আজ শনিবার ইশার নামাজের পর পশ্চিমবাজার জামে মসজিদে জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। তবে ইশার নামাজে পর কিছু মসল্লি জানাজায় অংশগ্রহণ না করে চলে যায়।

পোস্ট শেয়ার করুন

মৌলভীবাজারে শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ী মৃত্যুতে মিষ্টি বিতরণ

আপডেটের সময় : ০১:৫৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৮ এপ্রিল ২০১৯

ম জুলফিকার, মৌলভীবাজার থেকে::পুলিশের খাতায় ডজন মাদক মামলা ছিল, এমনকি মরার পরেও লাশের পকেটে মিলেছে ৩১০ পিস ইয়াবা। মৌলভীবাজারের শীর্ষ ইয়াবা বিক্রেতা মুহিবুর রহমান জিতু (২৬) ২৭ এপ্রিল (শনিবার) দুপুরে জেলার রায়শ্রী এলাকায় পুলিশের গুলিতে নিহত হন।

জানা গেছে, পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালায়। এ সময় দেশীয় অস্ত্র নিয়ে পুলিশের ওপর আক্রমণ করলে পরে পুলিশ গুলি চালায়। পরে জিতুকে হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে। তার মৃত্যুর খবর জানাজানি হলে মিষ্টি বিতরণ করে এলাকাবাসী। জনমনে নেমে আসে স্বস্তি। জেলার রায়শ্রী, একাটুনা, পশ্চিমবাজার, চাদনীঘাটসহ বিভিন্ন এলাকায় মিষ্টি বিতরণ করতে দেখা গেছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পুলিশের প্রশংসার পাশাপাশি তার পেছনে থেকে যারা রাজনৈতিক প্রশ্রয় দিত তাদেরকে গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন জেলাবাসী।

আজ শনিবার ইশার নামাজের পর পশ্চিমবাজার জামে মসজিদে জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। তবে ইশার নামাজে পর কিছু মসল্লি জানাজায় অংশগ্রহণ না করে চলে যায়।