ঢাকা , মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
এমপি আনোয়ারুল আজিমকে হত্যার ঘটনায় আটক তিনজন , এতে বাংলাদেশী মানুষ জড়িত:স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকাস্থ ইরান দুতাবাসে রাইসির শোক বইয়ে মির্জা ফখরুলের স্বাক্ষর মুটো ফোনের আসক্তি দূর করবেন যেভাবে… এই অভ্যাসগুলোর চর্চা নিয়মিত করা উচিৎ স্বামী-স্ত্রীর বয়সের পার্থক্য থাকা জরুরি কেনো ? পুনাক এর উদ্যোগে দুস্হ ও অসহায় নারীদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরন করা হয়েছে কুলাউড়ার টিলাগাঁও এ সরকারি গাছ বিক্রি করলেন প্রধান শিক্ষক লটারি বাইক জিতলো মা’ সে কারণে কপাল পুড়লো মেয়ের ফজরের নামাজে যাওয়ার সময় রাস্তায় কুকুর দলের আক্রমনে প্রান গেলো ইজাজুলের সাবেক সাংসদ সেলিমা আহমাদ মেরীর সাথে পর্তুগাল আওয়ামিলীগের মতবিনিময় সভা

মৌলভীবাজারে ঝুঁকিপূর্ণ মনু ও ধলাই নদী

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ
  • আপডেটের সময় : ১১:১৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০১৯
  • / ১০৪৯ টাইম ভিউ

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ টানা বৃষ্টি ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে মৌলভীবাজারের মনু ও ধলাই নদীতে বিপদ সীমার উপর দিয়ে পানি অতিবাহিত হচ্ছে। ২ নদীর একাধিক নদী প্রতিরক্ষা বাঁধ ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। বাঁধ ভেঙ্গে যে কোনো সময় ঘটতে পারে বড় ধরনের দূর্ঘটনা। এমন সংশয়ে দিনকাল কাটছে নদী কূলের বাসিন্দাদের। তবে মৌলভীবাজার পানি উন্নয়ন বোর্ড বলছে, ঝুকিপূর্ণ স্থান গুলো পাহারা দিতে ইতি মধ্যে স্থানে স্থানে লোক নিয়োগ দেয়া হয়েছে। তবে কতটি স্থান ঝুঁকিপূর্ণ এ তথ্যটি প্রতিবেদককে দিতে নারাজ মৌলভীবাজার পানি উন্নয়ন বোর্ড।
পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা যায়, শনিবার দুপুর পর্যন্ত বিপদ সীমার ৪২ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে পানি অতিবাহিত হচ্ছে। বৃষ্টি না হলে আসা করা যায় ২/১ দিনের মধ্যে পানি আরোও নেমে যাবে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, জেলার রাজনগর উপজেলার কামারচাক ইউনিয়নের তারাপাশা টিলেরপার গ্রামে মনুনদীর বাঁধ ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। স্থানীয় নাগরিক আলিম আল মুনিম বলছেন, ইতি মধ্যে মনুনদীর প্রতি রক্ষা বাঁধের ৩/৪ হাত নদী গর্ভে চলে গেছে। বৃষ্টি অব্যাহত থাকলে যে কোনো সময় ওই স্থান ভেঙ্গে যেতে পারে। তিনি আরো বলেন, শুনেছি এই জায়গাটি মেরামত করার জন্য টেন্ডার  হয়েছে। কিন্তু কর্তৃপক্ষের গাফলতির কারনে কাজ হয়নি। যার কারনে এলাকাবাসীকে ঝুঁকিম মধ্যে থাকতে হচ্ছে।
এবিষয়ে মৌলভীবাজার পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী রনন্দ্রে শংকর চক্রর্বতী বলেন, পানি অনেকটা কমা শুরু করেছে। মনু ও ধলাই নদীর ঝুকিপূর্ণ স্থানে পাহারদার নিয়োগ দেয়া হয়েছে। যে কোনো ঝুঁকি মুকাবেলায় পানি উন্নয়ন বোর্ড প্রস্তুত।

পোস্ট শেয়ার করুন

মৌলভীবাজারে ঝুঁকিপূর্ণ মনু ও ধলাই নদী

আপডেটের সময় : ১১:১৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০১৯

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ টানা বৃষ্টি ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে মৌলভীবাজারের মনু ও ধলাই নদীতে বিপদ সীমার উপর দিয়ে পানি অতিবাহিত হচ্ছে। ২ নদীর একাধিক নদী প্রতিরক্ষা বাঁধ ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। বাঁধ ভেঙ্গে যে কোনো সময় ঘটতে পারে বড় ধরনের দূর্ঘটনা। এমন সংশয়ে দিনকাল কাটছে নদী কূলের বাসিন্দাদের। তবে মৌলভীবাজার পানি উন্নয়ন বোর্ড বলছে, ঝুকিপূর্ণ স্থান গুলো পাহারা দিতে ইতি মধ্যে স্থানে স্থানে লোক নিয়োগ দেয়া হয়েছে। তবে কতটি স্থান ঝুঁকিপূর্ণ এ তথ্যটি প্রতিবেদককে দিতে নারাজ মৌলভীবাজার পানি উন্নয়ন বোর্ড।
পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা যায়, শনিবার দুপুর পর্যন্ত বিপদ সীমার ৪২ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে পানি অতিবাহিত হচ্ছে। বৃষ্টি না হলে আসা করা যায় ২/১ দিনের মধ্যে পানি আরোও নেমে যাবে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, জেলার রাজনগর উপজেলার কামারচাক ইউনিয়নের তারাপাশা টিলেরপার গ্রামে মনুনদীর বাঁধ ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। স্থানীয় নাগরিক আলিম আল মুনিম বলছেন, ইতি মধ্যে মনুনদীর প্রতি রক্ষা বাঁধের ৩/৪ হাত নদী গর্ভে চলে গেছে। বৃষ্টি অব্যাহত থাকলে যে কোনো সময় ওই স্থান ভেঙ্গে যেতে পারে। তিনি আরো বলেন, শুনেছি এই জায়গাটি মেরামত করার জন্য টেন্ডার  হয়েছে। কিন্তু কর্তৃপক্ষের গাফলতির কারনে কাজ হয়নি। যার কারনে এলাকাবাসীকে ঝুঁকিম মধ্যে থাকতে হচ্ছে।
এবিষয়ে মৌলভীবাজার পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী রনন্দ্রে শংকর চক্রর্বতী বলেন, পানি অনেকটা কমা শুরু করেছে। মনু ও ধলাই নদীর ঝুকিপূর্ণ স্থানে পাহারদার নিয়োগ দেয়া হয়েছে। যে কোনো ঝুঁকি মুকাবেলায় পানি উন্নয়ন বোর্ড প্রস্তুত।