ঢাকা , সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
উচ্ছ্বাস আর আনন্দে বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখের উদযাপন করেছে পর্তুগাল যথাযথ গাম্ভীর্যের মধ্যে দিয়ে পরিবেশে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর পালন করেছে ভেনিস প্রবাসীরা ভেনিসে বৃহত্তর সিলেট সমিতির আয়োজনে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত এক অসুস্থ প্রজন্ম কে সাথি করে এগুচ্ছি আমরা রিডানডেন্ট ক্লোথিং আর মজুর মামার ‘বিশ্বকাপ’ ইউরোপের সবচেয়ে বড় ঈদুল ফিতরের নামাজ পর্তুগালে অনুষ্ঠিত হয় বর্ণাঢ্য আয়োজনে পর্তুগাল বাংলা প্রেসক্লাবের ইফতার ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন ঈদের কাপড় কিনার জন্য মা’য়ের উপর অভিমান করে মেয়ের আত্মহত্যা লিসবনে বন্ধু মহলের আয়োজনে বিশাল ইফতার ও দোয়া মাহফিল মান অভিমান ভুলে সবাই একই প্লাটফর্মে,সংবাদ সম্মেলনে পর্তুগাল বিএনপির নবগঠিত আহবায়ক কমিটি

মৌলভীবাজারজুড়ে অসহনীয় লোডশেডিং; অতিষ্ঠ জনগণ

মাহদী হাসান
  • আপডেটের সময় : ১০:৫৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ জুলাই ২০২৩
  • / ২১৭ টাইম ভিউ

বৃহস্পতিবার (২০ জুলাই) মৌলভীবাজারে দিনভর ছিল গরমের তীব্রতা। এরমধ্যে ঘণ্টার পর ঘণ্টা লোডশেডিংয়ে অতিষ্ঠ হয়ে পড়ে জনজীবন। শুধুমাত্র শহরঞ্চল নয়, গ্রামাঞ্চলেও ঘণ্টার পর ঘণ্টা ছিল লোডশেডিংয়ের তীব্রতা। ফলে মানুষজন অতিষ্ঠ হয়ে ওঠেন।   

দফায় দফায় লোডশেডিংয়ের কারণে দুর্ভোগে পড়েছেন মৌলভীবাজারের জনসাধারণ। তীব্র গরমে অতিরিক্ত লোডশেডিংয়ে বাসাবাড়িতে থালা দুস্কর হয়েছে শহরের বাসাধারীদের। ভোগান্তি নেমেছে অফিস, আদালতে। বিশেষ করে বিদ্যুতহীনতায় দূর্ভোগে পড়েছেন শহরের ব্যবসায়ীরা।

মৌলভীবাজার শহরের এক ব্যবসায়ী জানান, শহরঞ্চলে এতটা লোডশেডিং আগে ছিলোনা। এক ঘন্টা কারেন্ট না থাকলে আমরা ব্যবসায়ীরা কয়েক হাজার টাকার লোকসান গুনতে হয়। আরেক ব্যবসায়ী জানান, কারেন্ট না থাকায় দিনভর বন্ধ হয়ে আছে ইলেক্ট্রনিক কাজগুলো। এতে করে মহাজনদের পাশাপাশি ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে কাস্টমারদেরও। এ ছাড়াও তীব্র গরমে শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।

বিউবো প্রকৌশলী আব্দুল কাদির জানান, কয়েকদিনের বৃষ্টিপাত শেষে হঠাৎ করে গরম পড়ায় বিদ্যুতের চাহিদা বেড়েছে। কম উৎপাদন ও সরবরাহের ঘাটতি থাকায় বিদ্যুৎ পরিস্থিতির এমন উদ্ভব হয়েছে।

পোস্ট শেয়ার করুন

মৌলভীবাজারজুড়ে অসহনীয় লোডশেডিং; অতিষ্ঠ জনগণ

আপডেটের সময় : ১০:৫৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ জুলাই ২০২৩

বৃহস্পতিবার (২০ জুলাই) মৌলভীবাজারে দিনভর ছিল গরমের তীব্রতা। এরমধ্যে ঘণ্টার পর ঘণ্টা লোডশেডিংয়ে অতিষ্ঠ হয়ে পড়ে জনজীবন। শুধুমাত্র শহরঞ্চল নয়, গ্রামাঞ্চলেও ঘণ্টার পর ঘণ্টা ছিল লোডশেডিংয়ের তীব্রতা। ফলে মানুষজন অতিষ্ঠ হয়ে ওঠেন।   

দফায় দফায় লোডশেডিংয়ের কারণে দুর্ভোগে পড়েছেন মৌলভীবাজারের জনসাধারণ। তীব্র গরমে অতিরিক্ত লোডশেডিংয়ে বাসাবাড়িতে থালা দুস্কর হয়েছে শহরের বাসাধারীদের। ভোগান্তি নেমেছে অফিস, আদালতে। বিশেষ করে বিদ্যুতহীনতায় দূর্ভোগে পড়েছেন শহরের ব্যবসায়ীরা।

মৌলভীবাজার শহরের এক ব্যবসায়ী জানান, শহরঞ্চলে এতটা লোডশেডিং আগে ছিলোনা। এক ঘন্টা কারেন্ট না থাকলে আমরা ব্যবসায়ীরা কয়েক হাজার টাকার লোকসান গুনতে হয়। আরেক ব্যবসায়ী জানান, কারেন্ট না থাকায় দিনভর বন্ধ হয়ে আছে ইলেক্ট্রনিক কাজগুলো। এতে করে মহাজনদের পাশাপাশি ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে কাস্টমারদেরও। এ ছাড়াও তীব্র গরমে শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।

বিউবো প্রকৌশলী আব্দুল কাদির জানান, কয়েকদিনের বৃষ্টিপাত শেষে হঠাৎ করে গরম পড়ায় বিদ্যুতের চাহিদা বেড়েছে। কম উৎপাদন ও সরবরাহের ঘাটতি থাকায় বিদ্যুৎ পরিস্থিতির এমন উদ্ভব হয়েছে।