ঢাকা , বুধবার, ১২ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মাস্কের সঠিক ব্যবহার ৪০ শতাংশ সংক্রমণ কমাতে পারে

দেশ দিগন্ত ডেক্স:
  • আপডেটের সময় : ০১:৪৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুন ২০২০
  • / ৪১৭ টাইম ভিউ

সঠিকভাবে মাস্ক ব্যবহার করলে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ৪০ শতাংশ পর্যন্ত কমে যেতে পারে। জার্মানিতে মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক হওয়া একটি শহর পর্যবেক্ষণ করা এক গবেষণা প্রতিবেদনে এমনটাই দাবি করা হয়েছে। মার্কিন সংবাদমাধ্যম ব্লুমবার্গ এ খবর জানিয়েছে।

গত ৬ এপ্রিলের আগে ও পরে জেনার সঙ্গে জার্মানির অন্য শহরে করোনার সংক্রমণ নিয়ে তুলনামূলক বিশ্লেষণ করেছে বন বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব লেবার ইকোনমিকস। গবেষণা অনুসারে, ৬ এপ্রিল জার্মানির জেনা শহর গণপরিবহন ও দোকানে মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক করে। ১ লাখ ৮ হাজার বাসিন্দার পৌরসভায় এরপর থেকে নতুন সংক্রমণ প্রায় কমে গেছে। থুরিঞ্জিয়া রাজ্যের আশপাশ ও জার্মানির অন্যত্র মাস্ক ব্যবহারের নীতিমালা গ্রহণ করা হয় কয়েক দিন বা সপ্তাহ পর। ওই এলাকাগুলোতে এখনও সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ছে।

গবেষক দলের মতে, মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক হওয়ার পরেই নিউইয়র্কে প্রায় ৩ শতাংশ সংক্রমণ কমে। যদিও দেশটির বাকি অংশের চিত্র একই থাকে। এই প্রসঙ্গে এক গবেষক জানিয়েছেন, এর আগে ইতালি ও নিউইয়র্কে সামাজিক দূরত্ব, কোয়ারেন্টাইন, আইসোলেশন, জীবাণুমুক্ত করার নানা পদ্ধতি চালু থাকায় করোনা সংক্রমণকে কিছু সময়ের জন্য বেঁধে রাখা সম্ভব হয়। কিন্তু জনসাধারণকে মাস্ক ব্যবহারে বাধ্য করার ফলে বায়ুবাহিত সংক্রমণ অনেকটাই রোধ হয়।

এদিকে মেঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লস বেল্ডের মতো গবেষকরাও বলছেন, করোনা রুখতে মাস্ক সবচেয়ে সহজসাধ্য উপায়। করোনা প্রতিরোধে মাস্কের উপযোগিতা নিয়ে এটিই সম্ভবত প্রকাশিত প্রথম গবেষণা।#

পোস্ট শেয়ার করুন

মাস্কের সঠিক ব্যবহার ৪০ শতাংশ সংক্রমণ কমাতে পারে

আপডেটের সময় : ০১:৪৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুন ২০২০

সঠিকভাবে মাস্ক ব্যবহার করলে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ৪০ শতাংশ পর্যন্ত কমে যেতে পারে। জার্মানিতে মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক হওয়া একটি শহর পর্যবেক্ষণ করা এক গবেষণা প্রতিবেদনে এমনটাই দাবি করা হয়েছে। মার্কিন সংবাদমাধ্যম ব্লুমবার্গ এ খবর জানিয়েছে।

গত ৬ এপ্রিলের আগে ও পরে জেনার সঙ্গে জার্মানির অন্য শহরে করোনার সংক্রমণ নিয়ে তুলনামূলক বিশ্লেষণ করেছে বন বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব লেবার ইকোনমিকস। গবেষণা অনুসারে, ৬ এপ্রিল জার্মানির জেনা শহর গণপরিবহন ও দোকানে মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক করে। ১ লাখ ৮ হাজার বাসিন্দার পৌরসভায় এরপর থেকে নতুন সংক্রমণ প্রায় কমে গেছে। থুরিঞ্জিয়া রাজ্যের আশপাশ ও জার্মানির অন্যত্র মাস্ক ব্যবহারের নীতিমালা গ্রহণ করা হয় কয়েক দিন বা সপ্তাহ পর। ওই এলাকাগুলোতে এখনও সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ছে।

গবেষক দলের মতে, মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক হওয়ার পরেই নিউইয়র্কে প্রায় ৩ শতাংশ সংক্রমণ কমে। যদিও দেশটির বাকি অংশের চিত্র একই থাকে। এই প্রসঙ্গে এক গবেষক জানিয়েছেন, এর আগে ইতালি ও নিউইয়র্কে সামাজিক দূরত্ব, কোয়ারেন্টাইন, আইসোলেশন, জীবাণুমুক্ত করার নানা পদ্ধতি চালু থাকায় করোনা সংক্রমণকে কিছু সময়ের জন্য বেঁধে রাখা সম্ভব হয়। কিন্তু জনসাধারণকে মাস্ক ব্যবহারে বাধ্য করার ফলে বায়ুবাহিত সংক্রমণ অনেকটাই রোধ হয়।

এদিকে মেঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লস বেল্ডের মতো গবেষকরাও বলছেন, করোনা রুখতে মাস্ক সবচেয়ে সহজসাধ্য উপায়। করোনা প্রতিরোধে মাস্কের উপযোগিতা নিয়ে এটিই সম্ভবত প্রকাশিত প্রথম গবেষণা।#