ঢাকা , শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৫ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
লিসবনে আত্মপ্রকাশ হয় সামাজিক সংগঠন “গোলাপগঞ্জ কমিউনিটি কেয়ারর্স পর্তুগাল “ উচ্ছ্বাস আর আনন্দে বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখের উদযাপন করেছে পর্তুগাল যথাযথ গাম্ভীর্যের মধ্যে দিয়ে পরিবেশে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর পালন করেছে ভেনিস প্রবাসীরা ভেনিসে বৃহত্তর সিলেট সমিতির আয়োজনে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত এক অসুস্থ প্রজন্ম কে সাথি করে এগুচ্ছি আমরা রিডানডেন্ট ক্লোথিং আর মজুর মামার ‘বিশ্বকাপ’ ইউরোপের সবচেয়ে বড় ঈদুল ফিতরের নামাজ পর্তুগালে অনুষ্ঠিত হয় বর্ণাঢ্য আয়োজনে পর্তুগাল বাংলা প্রেসক্লাবের ইফতার ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন ঈদের কাপড় কিনার জন্য মা’য়ের উপর অভিমান করে মেয়ের আত্মহত্যা লিসবনে বন্ধু মহলের আয়োজনে বিশাল ইফতার ও দোয়া মাহফিল

ভিলিয়ার্স ফিরলেও ফিরলো না আফ্রিকা

অনলাইন ডেস্ক :
  • আপডেটের সময় : ০৫:৩৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ জুন ২০১৭
  • / ১১৯৯ টাইম ভিউ

রানে ফিরলেন এবি ডি ভিলিয়ার্স। কিন্তু জয়ে ফিরলো না দক্ষিণ আফ্রিকা। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির গ্রুপপর্ব থেকেই এবার লজ্জাজনকভাবে বিদায় নেয় প্রোটিয়ারা। এরপর শুরু করেছে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ। এর প্রথমটিতেই বিধ্বস্ত হলো দক্ষিণ আফ্রিকা। তাদেরকে ৯ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে হারিয়েছে ইংল্যান্ড। জয় নিশ্চিত করার পরও ইংল্যান্ডের হাতে বাকি ছিল ৩৩ বল। এতে তিন ম্যাচের সিরিজে এগিয়ে গেলো স্বাগতিকরা। সাউদাম্পটনের দ্য রোজ বলে টস জিতে আগে ব্যাটে গিয়ে ৩ উইকেটে ১৪২ রান সংগ্রহ করে দক্ষিণ আফ্রিকা। জবাবে ১৪.৩ ওভারে মাত্র এক উইকেট হারিয়ে জয় তুলে নেয় ইংলিশরা। উদ্বোধনী জুটিতে ৪.১ ওভারে ৪৫ রান যোগ করেন জেসন রয় ও অ্যালেক্স হেলস। রয় ২ ছক্কা ও ৩ চারে মাত্র ১৪ বলে ২৮ রানে ফেরেন। এরপর হেলস ও জনি বেয়ারস্টো ১০.২ ওভারে ৯৮ রানে অবিচ্ছিন্ন থেকে ইংল্যান্ডের জয় নিশ্চিত করেন। হেলস ৩৮ বলে ৪৭ ও বেয়ারস্টো ৩৫ বলে ৬০ রানে অপরাজিত থাকেন। বেয়ারস্টোর ব্যাট থেকে আসে ২ ছক্কা ও ৬ চার। সদ্য সমাপ্ত চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনালে ওঠে ইংল্যান্ড। কিন্তু ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে হেরে যায় পাকিস্তানের কাছে। তবে সেই ক্ষত শুকিয়ে বড় জয়ে নতুন মিশন শুরু করলো তারা।
এদিন ব্যাট হাতে শুরুতেই বিপদে পড়ে দক্ষিণ আফ্রিকা। ৩২ রানে ৩ উইকেট হারায় তারা। প্রথম বলেই ফেরেন জে জে স্মুটস। এরপর রেজা হেনড্রিকস ৩ ও ডেভিড মিলার ফেরেন ৯ রানে। তবে চতুর্থ উইকেটে দারুণ প্রতিরোধ গড়েন এবি ডি ভিলিয়ার্স ও ফারহান বেহার্ডিন। ১৫.৫ ওভারে ১১০ অবিচ্ছিন্ন থেকে ইনিংস শেষ করেন তারা। সদ্য শেষ হওয়া চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে একেবারে মলিন ছিলেন এবি ডি ভিলিয়ার্স। তিন ম্যাচে করেন ৪, ০ ও ১৬ রান। কিন্তু রানখরা কাটিয়েছেন তিনি। এদিন ২ ছক্কা ও ৪ চারে ৫৮ বলে ৬৫ রানে অপরাজিত থাকেন। আর বেহার্ডিন ২ ছক্কা ও ৪ চারে অপরাজিত থাকেন ৬৪ রান।

পোস্ট শেয়ার করুন

ভিলিয়ার্স ফিরলেও ফিরলো না আফ্রিকা

আপডেটের সময় : ০৫:৩৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ জুন ২০১৭

রানে ফিরলেন এবি ডি ভিলিয়ার্স। কিন্তু জয়ে ফিরলো না দক্ষিণ আফ্রিকা। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির গ্রুপপর্ব থেকেই এবার লজ্জাজনকভাবে বিদায় নেয় প্রোটিয়ারা। এরপর শুরু করেছে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ। এর প্রথমটিতেই বিধ্বস্ত হলো দক্ষিণ আফ্রিকা। তাদেরকে ৯ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে হারিয়েছে ইংল্যান্ড। জয় নিশ্চিত করার পরও ইংল্যান্ডের হাতে বাকি ছিল ৩৩ বল। এতে তিন ম্যাচের সিরিজে এগিয়ে গেলো স্বাগতিকরা। সাউদাম্পটনের দ্য রোজ বলে টস জিতে আগে ব্যাটে গিয়ে ৩ উইকেটে ১৪২ রান সংগ্রহ করে দক্ষিণ আফ্রিকা। জবাবে ১৪.৩ ওভারে মাত্র এক উইকেট হারিয়ে জয় তুলে নেয় ইংলিশরা। উদ্বোধনী জুটিতে ৪.১ ওভারে ৪৫ রান যোগ করেন জেসন রয় ও অ্যালেক্স হেলস। রয় ২ ছক্কা ও ৩ চারে মাত্র ১৪ বলে ২৮ রানে ফেরেন। এরপর হেলস ও জনি বেয়ারস্টো ১০.২ ওভারে ৯৮ রানে অবিচ্ছিন্ন থেকে ইংল্যান্ডের জয় নিশ্চিত করেন। হেলস ৩৮ বলে ৪৭ ও বেয়ারস্টো ৩৫ বলে ৬০ রানে অপরাজিত থাকেন। বেয়ারস্টোর ব্যাট থেকে আসে ২ ছক্কা ও ৬ চার। সদ্য সমাপ্ত চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনালে ওঠে ইংল্যান্ড। কিন্তু ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে হেরে যায় পাকিস্তানের কাছে। তবে সেই ক্ষত শুকিয়ে বড় জয়ে নতুন মিশন শুরু করলো তারা।
এদিন ব্যাট হাতে শুরুতেই বিপদে পড়ে দক্ষিণ আফ্রিকা। ৩২ রানে ৩ উইকেট হারায় তারা। প্রথম বলেই ফেরেন জে জে স্মুটস। এরপর রেজা হেনড্রিকস ৩ ও ডেভিড মিলার ফেরেন ৯ রানে। তবে চতুর্থ উইকেটে দারুণ প্রতিরোধ গড়েন এবি ডি ভিলিয়ার্স ও ফারহান বেহার্ডিন। ১৫.৫ ওভারে ১১০ অবিচ্ছিন্ন থেকে ইনিংস শেষ করেন তারা। সদ্য শেষ হওয়া চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে একেবারে মলিন ছিলেন এবি ডি ভিলিয়ার্স। তিন ম্যাচে করেন ৪, ০ ও ১৬ রান। কিন্তু রানখরা কাটিয়েছেন তিনি। এদিন ২ ছক্কা ও ৪ চারে ৫৮ বলে ৬৫ রানে অপরাজিত থাকেন। আর বেহার্ডিন ২ ছক্কা ও ৪ চারে অপরাজিত থাকেন ৬৪ রান।