ঢাকা , শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
লিসবনে আত্মপ্রকাশ হয় সামাজিক সংগঠন “গোলাপগঞ্জ কমিউনিটি কেয়ারর্স পর্তুগাল “ উচ্ছ্বাস আর আনন্দে বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখের উদযাপন করেছে পর্তুগাল যথাযথ গাম্ভীর্যের মধ্যে দিয়ে পরিবেশে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর পালন করেছে ভেনিস প্রবাসীরা ভেনিসে বৃহত্তর সিলেট সমিতির আয়োজনে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত এক অসুস্থ প্রজন্ম কে সাথি করে এগুচ্ছি আমরা রিডানডেন্ট ক্লোথিং আর মজুর মামার ‘বিশ্বকাপ’ ইউরোপের সবচেয়ে বড় ঈদুল ফিতরের নামাজ পর্তুগালে অনুষ্ঠিত হয় বর্ণাঢ্য আয়োজনে পর্তুগাল বাংলা প্রেসক্লাবের ইফতার ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন ঈদের কাপড় কিনার জন্য মা’য়ের উপর অভিমান করে মেয়ের আত্মহত্যা লিসবনে বন্ধু মহলের আয়োজনে বিশাল ইফতার ও দোয়া মাহফিল

বুর্কিনা ফাসোতে ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলা, নিহত ১৭

অনলাইন ডেস্ক :
  • আপডেটের সময় : ০৮:১২ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৪ অগাস্ট ২০১৭
  • / ১২১০ টাইম ভিউ

পশ্চিম আফ্রিকার দেশ বুর্কিনা ফাসোতে হামলা চালিয়ে অন্তত ১৭ জনকে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। এ ঘটনায় আটজন গুরুতর আহত হয়েছে বলে দেশটির সরকার জানিয়েছে। তবে, নিহতদের সকলের পরিচয় এখনো নিশ্চিত করতে পারেনি কর্তৃপক্ষ।
শহরের একটি হাসপাতাল জানিয়েছে, নিহতদের একজন তুরস্কের নাগরিক। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, রাজধানী উয়াগাদুগু শহরের ব্যস্ত কোয়ামি নক্রুমাহ এভিন্যুতে রবিবার রাত নয়টার কিছু পরে গোলাগুলি শুরু হয়। সেখানকার হোটেল ব্রাভিয়া এবং আজিজ ইস্তানবুল রেস্তরাঁর বাইরের অংশে আগত অতিথিদের লক্ষ্য করেই হঠাৎ তিনজন বন্দুকধারী গুলি চালাতে শুরু করে। সেনাবাহিনী এখনও পুরো শহর ঘেরাও করে রেখেছে।
উয়াগাদুগুর মার্কিন দূতাবাস নিজের নাগরিকদের ঘটনাস্থলের আশেপাশে না আসতে সতর্ক করে দিয়েছে। সাহেল অঞ্চলে সক্রিয় আল-কায়েদার একটি সহযোগী সংগঠন এ হামলা চালিয়েছে বলে আশংকা করা হচ্ছে। গত বছর জানুয়ারিতে এই ঘটনাস্থলের কাছাকাছি একটি ক্যাফেতে জিহাদি হামলায় ৩০জন নিহত হয়েছিল। আল কায়েদা ঐ হামলার দায় স্বীকার করেছিল। বিবিসি।

পোস্ট শেয়ার করুন

বুর্কিনা ফাসোতে ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলা, নিহত ১৭

আপডেটের সময় : ০৮:১২ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৪ অগাস্ট ২০১৭

পশ্চিম আফ্রিকার দেশ বুর্কিনা ফাসোতে হামলা চালিয়ে অন্তত ১৭ জনকে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। এ ঘটনায় আটজন গুরুতর আহত হয়েছে বলে দেশটির সরকার জানিয়েছে। তবে, নিহতদের সকলের পরিচয় এখনো নিশ্চিত করতে পারেনি কর্তৃপক্ষ।
শহরের একটি হাসপাতাল জানিয়েছে, নিহতদের একজন তুরস্কের নাগরিক। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, রাজধানী উয়াগাদুগু শহরের ব্যস্ত কোয়ামি নক্রুমাহ এভিন্যুতে রবিবার রাত নয়টার কিছু পরে গোলাগুলি শুরু হয়। সেখানকার হোটেল ব্রাভিয়া এবং আজিজ ইস্তানবুল রেস্তরাঁর বাইরের অংশে আগত অতিথিদের লক্ষ্য করেই হঠাৎ তিনজন বন্দুকধারী গুলি চালাতে শুরু করে। সেনাবাহিনী এখনও পুরো শহর ঘেরাও করে রেখেছে।
উয়াগাদুগুর মার্কিন দূতাবাস নিজের নাগরিকদের ঘটনাস্থলের আশেপাশে না আসতে সতর্ক করে দিয়েছে। সাহেল অঞ্চলে সক্রিয় আল-কায়েদার একটি সহযোগী সংগঠন এ হামলা চালিয়েছে বলে আশংকা করা হচ্ছে। গত বছর জানুয়ারিতে এই ঘটনাস্থলের কাছাকাছি একটি ক্যাফেতে জিহাদি হামলায় ৩০জন নিহত হয়েছিল। আল কায়েদা ঐ হামলার দায় স্বীকার করেছিল। বিবিসি।