ঢাকা , রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিশ্বনাথে তরুণী গণধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি গ্রেপ্তার

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি
  • আপডেটের সময় : ০১:১৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৭ জুলাই ২০২০
  • / ৪০৬ টাইম ভিউ

সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার লামাকাজী ইউনিয়নের ইসবপুর গ্রামের ১৮ বছরের পিতৃহারা তরুণী গণধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি আনোয়ার মিয়াকে গ্রেপ্তার করেছে থানা পুলিশ। সে উপজেলার ইসবপুর গ্রামের মন্নান মিয়ার ছেলে।
বৃহস্পতিবার (১৬ জুলাই) গভীর রাতে উপজেলার লামাকাজি ইউনিয়নের ভুরকি এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। গণধর্ষণ মামলা দায়েরের ৪দিন পর ওই মামলার প্রধান আসামিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।
পুলিশ সূত্রে জানাগেছে, বিশ্বনাথ থানার ওসি (তদন্ত) রমাপ্রসাদ চক্রবর্তির নেতৃত্বে একদল পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিত্বে বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার লামাকজি ইউনিয়নের ভুরকি এলাকায় অভিযান চালায়। অভিযানে গণধর্ষণ মামলার প্রধান আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃত আসামির বিরুদ্ধে বিশ্বনাথ থানা গণধর্ষণ মামলা রয়েছে। গত সোমবার ওই তরুণী বাদি হয়ে তিনজনের নাম উল্লেখ করে থানায় গণধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পরপরই পুলিশ আসামিদের গ্রেপ্তার অভিযানে নামে। অবশেষে মামলার প্রধান আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়।
গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) শামীম মুসা বলেন, গ্রেপ্তারকৃত আসামিকে আজ শুক্রবার আদালতে প্রেরণ করা হবে।
প্রসঙ্গত, গত ১ জুলাই রাতে ওই গ্রামের আমির আলীর দোকানে গণধর্ষণের ঘটনা ঘটে। ঘটনার ১২দিন পর গত সোমবার রাতে ৩ জনের নাম উল্লেখ করে বিশ্বনাথ থানায় মামলা দায়ের করা হয়।

পোস্ট শেয়ার করুন

বিশ্বনাথে তরুণী গণধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি গ্রেপ্তার

আপডেটের সময় : ০১:১৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৭ জুলাই ২০২০

সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার লামাকাজী ইউনিয়নের ইসবপুর গ্রামের ১৮ বছরের পিতৃহারা তরুণী গণধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি আনোয়ার মিয়াকে গ্রেপ্তার করেছে থানা পুলিশ। সে উপজেলার ইসবপুর গ্রামের মন্নান মিয়ার ছেলে।
বৃহস্পতিবার (১৬ জুলাই) গভীর রাতে উপজেলার লামাকাজি ইউনিয়নের ভুরকি এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। গণধর্ষণ মামলা দায়েরের ৪দিন পর ওই মামলার প্রধান আসামিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।
পুলিশ সূত্রে জানাগেছে, বিশ্বনাথ থানার ওসি (তদন্ত) রমাপ্রসাদ চক্রবর্তির নেতৃত্বে একদল পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিত্বে বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার লামাকজি ইউনিয়নের ভুরকি এলাকায় অভিযান চালায়। অভিযানে গণধর্ষণ মামলার প্রধান আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃত আসামির বিরুদ্ধে বিশ্বনাথ থানা গণধর্ষণ মামলা রয়েছে। গত সোমবার ওই তরুণী বাদি হয়ে তিনজনের নাম উল্লেখ করে থানায় গণধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পরপরই পুলিশ আসামিদের গ্রেপ্তার অভিযানে নামে। অবশেষে মামলার প্রধান আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়।
গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) শামীম মুসা বলেন, গ্রেপ্তারকৃত আসামিকে আজ শুক্রবার আদালতে প্রেরণ করা হবে।
প্রসঙ্গত, গত ১ জুলাই রাতে ওই গ্রামের আমির আলীর দোকানে গণধর্ষণের ঘটনা ঘটে। ঘটনার ১২দিন পর গত সোমবার রাতে ৩ জনের নাম উল্লেখ করে বিশ্বনাথ থানায় মামলা দায়ের করা হয়।