ঢাকা , সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
উচ্ছ্বাস আর আনন্দে বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখের উদযাপন করেছে পর্তুগাল যথাযথ গাম্ভীর্যের মধ্যে দিয়ে পরিবেশে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর পালন করেছে ভেনিস প্রবাসীরা ভেনিসে বৃহত্তর সিলেট সমিতির আয়োজনে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত এক অসুস্থ প্রজন্ম কে সাথি করে এগুচ্ছি আমরা রিডানডেন্ট ক্লোথিং আর মজুর মামার ‘বিশ্বকাপ’ ইউরোপের সবচেয়ে বড় ঈদুল ফিতরের নামাজ পর্তুগালে অনুষ্ঠিত হয় বর্ণাঢ্য আয়োজনে পর্তুগাল বাংলা প্রেসক্লাবের ইফতার ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন ঈদের কাপড় কিনার জন্য মা’য়ের উপর অভিমান করে মেয়ের আত্মহত্যা লিসবনে বন্ধু মহলের আয়োজনে বিশাল ইফতার ও দোয়া মাহফিল মান অভিমান ভুলে সবাই একই প্লাটফর্মে,সংবাদ সম্মেলনে পর্তুগাল বিএনপির নবগঠিত আহবায়ক কমিটি

বন্ধুর প্রেমিকাকে মোবাইল দিতে গিয়ে ছেলেধরা সন্দেহে গণধোলাইয়ের শিকার যুবক

শাহ্ সুমন/ছয়ফুল আলম সাইফুলঃ
  • আপডেটের সময় : ১২:৩২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২২ জুলাই ২০১৯
  • / ১৫৬৮ টাইম ভিউ

শাহ্ সুমন/ছয়ফুল আলম সাইফুলঃ বন্ধুর প্রেমিকাকে তাঁর বাড়িতে মোবাইল ও প্রেমপত্র দিতে গিয়েছিলেন বসন্ত শব্দকর (২৪) নামের এক যুবক। এসময় স্থানীয়রা তাঁকে ছেলেধরা সন্দেহে আটক করে গণধোলাই দেয় পরে পুলিশ গিয়ে তাকে উত্তেজিত জনতার হাত থেকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।ঘটনাটি ঘটেছে কুলাউড়ার হাজীপুর ইউনিয়নের পীরেরবাজার এলাকার খাতাইরপার গ্রামে রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে।

পুলিশ জানায়, কমলগন্জ উপজেলার পৌরশহরের নরেন্দ্রপুর এলাকার হবিব মিয়ার সাথে কুলাউড়া উপজেলার হাজীপুর ইউনিয়নের খাতাইরপার গ্রামের এক তরুণীর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।ওই তরুণীর (প্রেমিকার) সাথে যোগাযোগ রাখার জন্য একটি মোবাইল পৌঁছানোর জন্য হবিব তাঁর বন্ধু একই এলাকার নরেন্দ্র শব্দকরের ছেলে বসন্ত শব্দকরের সহযোগিতা চায়। বসন্ত বন্ধুর প্রেমে সহায়তা করার জন্য রোববার সন্ধ্যার দিকে হবিবের দেয়া মোবাইল ও একটি চিঠি নিয়ে ওই তরুণীর ( প্রেমিকার) বাড়ি হাজীপুরের খাতাইরপারে আসে। এসময় স্থানীয় লোকজন আগন্তুক এক (বসন্ত শব্দকরকে) যুবককে এলাকায় দেখে ছেলেধরা সন্দেহ হয়। এবং ছেলেধরা সন্দেহে বসন্তকে গণধোলাই দিতে থাকে। পরে স্থানীয় পীরেরবাজার এলাকার কয়েকজন ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসী উত্তেজিত জনতার হাত থেকে বসন্তকে রক্ষা করে একটি দোকানে নিয়ে রাখে এবং কুলাউড়া থানা পুলিশকে খবর দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ বসন্তকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে এসে জিজ্ঞাসাবাদ করে।
এসব তথ্য নিশ্চিত করে কুলাউড়া থানার এস আই কানাই লাল চক্রবর্তী জানান, বসন্ত জিজ্ঞাসাবদে জানায় তাঁর ওই এলাকায় বন্ধু হবিবের প্রেমিকাকে মোবাইল ও চিঠি দিতে এসেছিলো। এসময় তাকে ছেলেধরা সন্দেহে স্থানীয়রা তাকে আটকে রাখে। আমরা খবর পেয়ে তাঁকে উদ্ধার করে নিয়ে আসি।

পোস্ট শেয়ার করুন

বন্ধুর প্রেমিকাকে মোবাইল দিতে গিয়ে ছেলেধরা সন্দেহে গণধোলাইয়ের শিকার যুবক

আপডেটের সময় : ১২:৩২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২২ জুলাই ২০১৯

শাহ্ সুমন/ছয়ফুল আলম সাইফুলঃ বন্ধুর প্রেমিকাকে তাঁর বাড়িতে মোবাইল ও প্রেমপত্র দিতে গিয়েছিলেন বসন্ত শব্দকর (২৪) নামের এক যুবক। এসময় স্থানীয়রা তাঁকে ছেলেধরা সন্দেহে আটক করে গণধোলাই দেয় পরে পুলিশ গিয়ে তাকে উত্তেজিত জনতার হাত থেকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।ঘটনাটি ঘটেছে কুলাউড়ার হাজীপুর ইউনিয়নের পীরেরবাজার এলাকার খাতাইরপার গ্রামে রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে।

পুলিশ জানায়, কমলগন্জ উপজেলার পৌরশহরের নরেন্দ্রপুর এলাকার হবিব মিয়ার সাথে কুলাউড়া উপজেলার হাজীপুর ইউনিয়নের খাতাইরপার গ্রামের এক তরুণীর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।ওই তরুণীর (প্রেমিকার) সাথে যোগাযোগ রাখার জন্য একটি মোবাইল পৌঁছানোর জন্য হবিব তাঁর বন্ধু একই এলাকার নরেন্দ্র শব্দকরের ছেলে বসন্ত শব্দকরের সহযোগিতা চায়। বসন্ত বন্ধুর প্রেমে সহায়তা করার জন্য রোববার সন্ধ্যার দিকে হবিবের দেয়া মোবাইল ও একটি চিঠি নিয়ে ওই তরুণীর ( প্রেমিকার) বাড়ি হাজীপুরের খাতাইরপারে আসে। এসময় স্থানীয় লোকজন আগন্তুক এক (বসন্ত শব্দকরকে) যুবককে এলাকায় দেখে ছেলেধরা সন্দেহ হয়। এবং ছেলেধরা সন্দেহে বসন্তকে গণধোলাই দিতে থাকে। পরে স্থানীয় পীরেরবাজার এলাকার কয়েকজন ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসী উত্তেজিত জনতার হাত থেকে বসন্তকে রক্ষা করে একটি দোকানে নিয়ে রাখে এবং কুলাউড়া থানা পুলিশকে খবর দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ বসন্তকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে এসে জিজ্ঞাসাবাদ করে।
এসব তথ্য নিশ্চিত করে কুলাউড়া থানার এস আই কানাই লাল চক্রবর্তী জানান, বসন্ত জিজ্ঞাসাবদে জানায় তাঁর ওই এলাকায় বন্ধু হবিবের প্রেমিকাকে মোবাইল ও চিঠি দিতে এসেছিলো। এসময় তাকে ছেলেধরা সন্দেহে স্থানীয়রা তাকে আটকে রাখে। আমরা খবর পেয়ে তাঁকে উদ্ধার করে নিয়ে আসি।