ঢাকা , শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
লিসবনে আত্মপ্রকাশ হয় সামাজিক সংগঠন “গোলাপগঞ্জ কমিউনিটি কেয়ারর্স পর্তুগাল “ উচ্ছ্বাস আর আনন্দে বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখের উদযাপন করেছে পর্তুগাল যথাযথ গাম্ভীর্যের মধ্যে দিয়ে পরিবেশে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর পালন করেছে ভেনিস প্রবাসীরা ভেনিসে বৃহত্তর সিলেট সমিতির আয়োজনে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত এক অসুস্থ প্রজন্ম কে সাথি করে এগুচ্ছি আমরা রিডানডেন্ট ক্লোথিং আর মজুর মামার ‘বিশ্বকাপ’ ইউরোপের সবচেয়ে বড় ঈদুল ফিতরের নামাজ পর্তুগালে অনুষ্ঠিত হয় বর্ণাঢ্য আয়োজনে পর্তুগাল বাংলা প্রেসক্লাবের ইফতার ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন ঈদের কাপড় কিনার জন্য মা’য়ের উপর অভিমান করে মেয়ের আত্মহত্যা লিসবনে বন্ধু মহলের আয়োজনে বিশাল ইফতার ও দোয়া মাহফিল

ফার্স্টক্লাস ফার্স্ট বড়লেখার দুই মেধাবী শিক্ষার্থী

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ
  • আপডেটের সময় : ১১:৩৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১২ মার্চ ২০১৯
  • / ৯৩০ টাইম ভিউ

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ   সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ২০১৯ সালের মাস্টার্স (ইংরেজি) ফাইনাল পরীক্ষায় যুগ্মভাবে ফার্স্টক্লাস ফার্স্ট হয়েছে বড়লেখার দুই মেধাবী ছাত্রী।

এদের একজন সুমাইয়া ফেরদৌস ও অপরজন শারমিন বেগম। তারা দুইজনই সিলেট বিভাগের নারী শিক্ষা প্রসারের অন্যতম পিদ্যাপিট বড়লেখা নারী শিক্ষা একাডেমি ডিগ্রী কলেজের সাবেক ছাত্রী। কৃতিত্বপূর্ণ ফলাফল অর্জনকারী মেধাবী সুমাইয়া ও শারমিন উচ্চতর ডিগ্রী অর্জনে আগ্রহী।

সুমাইয়া ফেরদৌস বড়লেখা নারীশিক্ষা একাডেমি ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ হারুন-উর-রশীদ ও সাবেক স্কুল শিক্ষিকা কবি লাইলি বেগমের মেয়ে। এ কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষায় সুমাইয়া জিপিএ-৫ অর্জন করে সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজি বিষয়ে বি.এ আনার্সে ভর্তি হয়। অনার্সের ফাইনাল পরীক্ষায় সে প্রথম শ্রেণীতে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করে। এদিকে শারমিন বেগম উপজেলা সদরের ব্যবসায়ী সফিক উদ্দিন ও গৃহিনী আনোয়ারা বেগমের কনিষ্ট মেয়ে।

বড়লেখার মেধাবী এ দুই ছাত্রী ভবিষ্যতে শিক্ষকতা পেশায় নিয়োজিত হতে আগ্রহী হলেও এই মুহূর্তে তারা চাকরীর কথা ভাবছে না। ডক্টরেট ডিগ্রীসহ ইংরেজির ওপর তারা উচ্চতর ডিগ্রী নিতে আগ্রহী।

দেশের শীর্ষস্থানীয় বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর অন্যতম একটি বিশ্ববিদ্যালয় শাবি থেকে মাস্টার্সে ঈর্ষনীয় ফলাফল অর্জন করায় কৃতী শিক্ষার্থী সুমাইয়া ও শারমিনকে অভিনন্দন জানিয়েছেন বড়লেখা নারীশিক্ষা একাডেমি ডিগ্রী কলেজের প্রতিষ্ঠাতা সাবেক প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট এবাদুর রহমান চৌধুরী।

পোস্ট শেয়ার করুন

ফার্স্টক্লাস ফার্স্ট বড়লেখার দুই মেধাবী শিক্ষার্থী

আপডেটের সময় : ১১:৩৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১২ মার্চ ২০১৯

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ   সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ২০১৯ সালের মাস্টার্স (ইংরেজি) ফাইনাল পরীক্ষায় যুগ্মভাবে ফার্স্টক্লাস ফার্স্ট হয়েছে বড়লেখার দুই মেধাবী ছাত্রী।

এদের একজন সুমাইয়া ফেরদৌস ও অপরজন শারমিন বেগম। তারা দুইজনই সিলেট বিভাগের নারী শিক্ষা প্রসারের অন্যতম পিদ্যাপিট বড়লেখা নারী শিক্ষা একাডেমি ডিগ্রী কলেজের সাবেক ছাত্রী। কৃতিত্বপূর্ণ ফলাফল অর্জনকারী মেধাবী সুমাইয়া ও শারমিন উচ্চতর ডিগ্রী অর্জনে আগ্রহী।

সুমাইয়া ফেরদৌস বড়লেখা নারীশিক্ষা একাডেমি ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ হারুন-উর-রশীদ ও সাবেক স্কুল শিক্ষিকা কবি লাইলি বেগমের মেয়ে। এ কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষায় সুমাইয়া জিপিএ-৫ অর্জন করে সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজি বিষয়ে বি.এ আনার্সে ভর্তি হয়। অনার্সের ফাইনাল পরীক্ষায় সে প্রথম শ্রেণীতে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করে। এদিকে শারমিন বেগম উপজেলা সদরের ব্যবসায়ী সফিক উদ্দিন ও গৃহিনী আনোয়ারা বেগমের কনিষ্ট মেয়ে।

বড়লেখার মেধাবী এ দুই ছাত্রী ভবিষ্যতে শিক্ষকতা পেশায় নিয়োজিত হতে আগ্রহী হলেও এই মুহূর্তে তারা চাকরীর কথা ভাবছে না। ডক্টরেট ডিগ্রীসহ ইংরেজির ওপর তারা উচ্চতর ডিগ্রী নিতে আগ্রহী।

দেশের শীর্ষস্থানীয় বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর অন্যতম একটি বিশ্ববিদ্যালয় শাবি থেকে মাস্টার্সে ঈর্ষনীয় ফলাফল অর্জন করায় কৃতী শিক্ষার্থী সুমাইয়া ও শারমিনকে অভিনন্দন জানিয়েছেন বড়লেখা নারীশিক্ষা একাডেমি ডিগ্রী কলেজের প্রতিষ্ঠাতা সাবেক প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট এবাদুর রহমান চৌধুরী।