ঢাকা , রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
লিসবনে আত্মপ্রকাশ হয় সামাজিক সংগঠন “গোলাপগঞ্জ কমিউনিটি কেয়ারর্স পর্তুগাল “ উচ্ছ্বাস আর আনন্দে বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখের উদযাপন করেছে পর্তুগাল যথাযথ গাম্ভীর্যের মধ্যে দিয়ে পরিবেশে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর পালন করেছে ভেনিস প্রবাসীরা ভেনিসে বৃহত্তর সিলেট সমিতির আয়োজনে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত এক অসুস্থ প্রজন্ম কে সাথি করে এগুচ্ছি আমরা রিডানডেন্ট ক্লোথিং আর মজুর মামার ‘বিশ্বকাপ’ ইউরোপের সবচেয়ে বড় ঈদুল ফিতরের নামাজ পর্তুগালে অনুষ্ঠিত হয় বর্ণাঢ্য আয়োজনে পর্তুগাল বাংলা প্রেসক্লাবের ইফতার ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন ঈদের কাপড় কিনার জন্য মা’য়ের উপর অভিমান করে মেয়ের আত্মহত্যা লিসবনে বন্ধু মহলের আয়োজনে বিশাল ইফতার ও দোয়া মাহফিল

প্রবাসীদের সর্বোচ্চ সুযোগ সুবিদা ও নিরাপত্তা দিতে হবে বললেন এমএম শাহীন

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ
  • আপডেটের সময় : ১০:০০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩০ অগাস্ট ২০১৯
  • / ৪০৪ টাইম ভিউ

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ দেশের আয়ের অন্যতম দুটি উৎস হচ্ছে প্রবাসী ও গার্মেন্টস। সেই গার্মেন্টস ও রফতানী করে বৈদেশিক মুদ্রা আয় করতে হয়। দুটোই বিদেশ নির্ভর। দু’টি খাত থেকে যদি বিদেশী রেমিটেন্স না আসে তাহলে এই দেশ আফ্রিকার কোন দেশে পরিণত হবে। গার্মেন্টস খাত নিয়ে আছে নানা ষড়যন্ত্র। ফলে প্রবাসীদের সর্বোচ্চ সুযোগ সুবিদা ও নিরাপত্তা দিতে হবে। বৃহস্পতিবার (২৯ আগস্ট) রাতে প্রেসক্লাব কুলাউড়ার উদ্যোগে প্রবাসী সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বক্তব্যদানকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন সাবেক এমপি ও ঠিকানা গ্রুপের চেয়ারম্যান এম এম শাহীন।

সংবর্ধিত অতিথিরা তাদের বক্তব্যে বলেন, দেশে প্রতিনিয়ত ঘটছে খুন, অপহরণ, ধর্ষণ, ডাকাতি এমনকি বিচার বহির্ভূত হত্যাকান্ড। বলতে গেলে দেশে একটা অস্থিতিশীল পরিবেশ বিরাজ করছে। টার্গেট করে প্রবাসীদের বাড়িতে ডাকাতি করা হয়। প্রবাসে অবস্থান করে যখন দেশের এই অবস্থার খবর জানেন প্রবাসীরা, তখন অজানা এক আতঙ্কে দেশে আসতে চান না। ইউরোপ আমেরিকা থেকে তো আসতে চাচ্ছেন না। যারা মধ্যপ্রাচ্যে পরিবার পরিজন নিয়ে বসবাস করছেন তারাও দেশ বিমুখ। আর যারা পরিবার পরিজন রেখে মধ্যপ্রাচ্যে বসবাস করছেন তারা পিতা মাতা স্ত্রী সন্তানের মায়ায় দেশে আসেন বাধ্য হয়ে। এমতাবস্থায় দেশের রেমিটেন্সও কমছে উদ্বেগজনকহারে। দেশের অর্থনৈতিক অবস্থাকে চাঙ্গা রাখতে প্রবাসীদের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দেয়ার আহবান জানান প্রবাসীরা।

প্রেসক্লাবের সভাপতি আজিজুল ইসলামের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী আবু সাঈদ ফুয়াদের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন সাবেক এমপি ও ঠিকানা গ্রুপের চেয়ারম্যান এমএম শাহীন। বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন কুলাউড়া উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ফজলুল হক খান সাহেদ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফাতেহা ফেরদৌস চৌধুরী পপি। কুলাউড়া সকারি ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ সৌম্য প্রদীপ ভট্রাচার্য্য, কুলাউড়া নবীন চন্দ্র সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আমির হোসেন, কুলাউড়া ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক মইনুল ইসলাম শামীম।

সংবর্ধিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন কুলাউড়া বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব আমিরকার সাধারণ সম্পাদক এনায়েত হোসেন জালাল, কুলাউড়া ওয়েল ফেয়ার এসোিেসয়শন কাতারের প্রধান উপদেশ্টা জামাল উদ্দিন তাফাদার, সৌদি আরব প্রবাসী জাহাঙ্গীর হোসেন এলাইচ, যুক্তরাজ্য প্রবাসী আব্দুস সহিদ, যুক্তরাজ্য প্রবাসী লুৎফুর রহমান পারভেজ, মিশর প্রবাসী আশরাফ আলী পারভেজ, আরব আমিরাত প্রবাসী তায়েফুর রহমান রাজেক।

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন কুলাউড়া ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক সিপার আহমেদ, কুলাউড়া পৌরসভার ৩ বারের নির্বাচিত ওয়ার্ড কাউন্সিলার মঞ্জুরুল আলম চৌধুরী খোকন, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মইবুল ইসলাম সবুজ, কুলাউড়া প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি ময়নুল হক পবন, সদস্য তাহিরুল হক প্রমুখ।

পোস্ট শেয়ার করুন

প্রবাসীদের সর্বোচ্চ সুযোগ সুবিদা ও নিরাপত্তা দিতে হবে বললেন এমএম শাহীন

আপডেটের সময় : ১০:০০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩০ অগাস্ট ২০১৯

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ দেশের আয়ের অন্যতম দুটি উৎস হচ্ছে প্রবাসী ও গার্মেন্টস। সেই গার্মেন্টস ও রফতানী করে বৈদেশিক মুদ্রা আয় করতে হয়। দুটোই বিদেশ নির্ভর। দু’টি খাত থেকে যদি বিদেশী রেমিটেন্স না আসে তাহলে এই দেশ আফ্রিকার কোন দেশে পরিণত হবে। গার্মেন্টস খাত নিয়ে আছে নানা ষড়যন্ত্র। ফলে প্রবাসীদের সর্বোচ্চ সুযোগ সুবিদা ও নিরাপত্তা দিতে হবে। বৃহস্পতিবার (২৯ আগস্ট) রাতে প্রেসক্লাব কুলাউড়ার উদ্যোগে প্রবাসী সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বক্তব্যদানকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন সাবেক এমপি ও ঠিকানা গ্রুপের চেয়ারম্যান এম এম শাহীন।

সংবর্ধিত অতিথিরা তাদের বক্তব্যে বলেন, দেশে প্রতিনিয়ত ঘটছে খুন, অপহরণ, ধর্ষণ, ডাকাতি এমনকি বিচার বহির্ভূত হত্যাকান্ড। বলতে গেলে দেশে একটা অস্থিতিশীল পরিবেশ বিরাজ করছে। টার্গেট করে প্রবাসীদের বাড়িতে ডাকাতি করা হয়। প্রবাসে অবস্থান করে যখন দেশের এই অবস্থার খবর জানেন প্রবাসীরা, তখন অজানা এক আতঙ্কে দেশে আসতে চান না। ইউরোপ আমেরিকা থেকে তো আসতে চাচ্ছেন না। যারা মধ্যপ্রাচ্যে পরিবার পরিজন নিয়ে বসবাস করছেন তারাও দেশ বিমুখ। আর যারা পরিবার পরিজন রেখে মধ্যপ্রাচ্যে বসবাস করছেন তারা পিতা মাতা স্ত্রী সন্তানের মায়ায় দেশে আসেন বাধ্য হয়ে। এমতাবস্থায় দেশের রেমিটেন্সও কমছে উদ্বেগজনকহারে। দেশের অর্থনৈতিক অবস্থাকে চাঙ্গা রাখতে প্রবাসীদের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দেয়ার আহবান জানান প্রবাসীরা।

প্রেসক্লাবের সভাপতি আজিজুল ইসলামের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী আবু সাঈদ ফুয়াদের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন সাবেক এমপি ও ঠিকানা গ্রুপের চেয়ারম্যান এমএম শাহীন। বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন কুলাউড়া উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ফজলুল হক খান সাহেদ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফাতেহা ফেরদৌস চৌধুরী পপি। কুলাউড়া সকারি ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ সৌম্য প্রদীপ ভট্রাচার্য্য, কুলাউড়া নবীন চন্দ্র সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আমির হোসেন, কুলাউড়া ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক মইনুল ইসলাম শামীম।

সংবর্ধিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন কুলাউড়া বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব আমিরকার সাধারণ সম্পাদক এনায়েত হোসেন জালাল, কুলাউড়া ওয়েল ফেয়ার এসোিেসয়শন কাতারের প্রধান উপদেশ্টা জামাল উদ্দিন তাফাদার, সৌদি আরব প্রবাসী জাহাঙ্গীর হোসেন এলাইচ, যুক্তরাজ্য প্রবাসী আব্দুস সহিদ, যুক্তরাজ্য প্রবাসী লুৎফুর রহমান পারভেজ, মিশর প্রবাসী আশরাফ আলী পারভেজ, আরব আমিরাত প্রবাসী তায়েফুর রহমান রাজেক।

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন কুলাউড়া ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক সিপার আহমেদ, কুলাউড়া পৌরসভার ৩ বারের নির্বাচিত ওয়ার্ড কাউন্সিলার মঞ্জুরুল আলম চৌধুরী খোকন, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মইবুল ইসলাম সবুজ, কুলাউড়া প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি ময়নুল হক পবন, সদস্য তাহিরুল হক প্রমুখ।