ঢাকা , শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
যথাযথ গাম্ভীর্যের মধ্যে দিয়ে পরিবেশে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর পালন করেছে ভেনিস প্রবাসীরা ভেনিসে বৃহত্তর সিলেট সমিতির আয়োজনে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত এক অসুস্থ প্রজন্ম কে সাথি করে এগুচ্ছি আমরা রিডানডেন্ট ক্লোথিং আর মজুর মামার ‘বিশ্বকাপ’ ইউরোপের সবচেয়ে বড় ঈদুল ফিতরের নামাজ পর্তুগালে অনুষ্ঠিত হয় বর্ণাঢ্য আয়োজনে পর্তুগাল বাংলা প্রেসক্লাবের ইফতার ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন ঈদের কাপড় কিনার জন্য মা’য়ের উপর অভিমান করে মেয়ের আত্মহত্যা লিসবনে বন্ধু মহলের আয়োজনে বিশাল ইফতার ও দোয়া মাহফিল মান অভিমান ভুলে সবাই একই প্লাটফর্মে,সংবাদ সম্মেলনে পর্তুগাল বিএনপির নবগঠিত আহবায়ক কমিটি ইতালির ভিসেন্সায় সিলেট ডায়নামিক অ্যাসোসিয়েশনের আয়োজনে ইফতার ও দোয়া অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত হতে যাচ্ছে মুসা আল হাফিজের “মুক্তিযুদ্ধ ও জমিয়ত” জ্যোতির্ময় অধ্যায়

নিউজ ডেস্ক
  • আপডেটের সময় : ১০:৫৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৮ মার্চ ২০২০
  • / ৫০৮ টাইম ভিউ

বিশিষ্ট গবেষক ও কবি মাওলানা মুসা আল হাফিজ রচিত স্বাধীনতা ইতিহাস সমৃদ্ধ ‘মুক্তিযুদ্ধ ও জমিয়ত’ জ্যোতির্ময় অধ্যায় এ মাসেই বাজারে আসছে।

যা যা থাকতে পারে বইটিতে এ নিয়ে মুসা আল হাফিজ ফেসবুকে যা লিখেন, শিশু-কিশোর, যুবক-বৃদ্ধ সকলেই জানেন, আল বদর, আশশামস, রাজাকার ইত্যাদির কথা। এরা ছিলো পাকিস্তানের দোসর। এরা নাকি ইসলামপন্থী ছিলো! কিন্তু কেন লোকেরা জানে না এমন এক বাহিনীর কথা, যাদের নেতৃত্বে ছিলেন আলেমরা? যাদের কাজই ছিলো মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে লড়াই করা?

অবাক হচ্ছেন?
তাদের নাম কী? কী ছিলো তাদের কাজ?

– হ্যাঁ, সবই বলবো।
২৬ মার্চের আগে মুক্তিযুদ্ধের প্রস্তুতি নেয়ার নির্দেশনা দিয়েছিলেন কোনো আলেম, ভাবতে পারা যায়? ৬৪ টি জেলায় পৌছে দেয়া হয় সেই নির্দেশনামা।

সরাসরি নির্দেশনামাটি দেখতে চান?
হ্যাঁ, দেখাচ্ছি।

বঙ্গবন্ধুর ৬ দফা, ছাত্র পরিষদের ১১ দফা তো ইতিহাসবিখ্যাত। মুক্তিযুদ্ধের জন্য এর ভূমিকা ছিলো অবর্ণনীয়। কিন্তু আলেমদের ১৩ দফা ?
এমন দফাও ছিলো নাকি? আছে প্রমাণ?
হ্যাঁ, প্রমাণ দেখাচ্ছি!

আরো এবং আরো এবং আরো অনেক কিছু।
ক’টা দিন অপেক্ষা করুন। ‘মুক্তিযুদ্ধ ও জমিয়ত : জ্যোতির্ময় অধ্যায়’ বইটি এসে যাক বাজারে।

পোস্ট শেয়ার করুন

প্রকাশিত হতে যাচ্ছে মুসা আল হাফিজের “মুক্তিযুদ্ধ ও জমিয়ত” জ্যোতির্ময় অধ্যায়

আপডেটের সময় : ১০:৫৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৮ মার্চ ২০২০

বিশিষ্ট গবেষক ও কবি মাওলানা মুসা আল হাফিজ রচিত স্বাধীনতা ইতিহাস সমৃদ্ধ ‘মুক্তিযুদ্ধ ও জমিয়ত’ জ্যোতির্ময় অধ্যায় এ মাসেই বাজারে আসছে।

যা যা থাকতে পারে বইটিতে এ নিয়ে মুসা আল হাফিজ ফেসবুকে যা লিখেন, শিশু-কিশোর, যুবক-বৃদ্ধ সকলেই জানেন, আল বদর, আশশামস, রাজাকার ইত্যাদির কথা। এরা ছিলো পাকিস্তানের দোসর। এরা নাকি ইসলামপন্থী ছিলো! কিন্তু কেন লোকেরা জানে না এমন এক বাহিনীর কথা, যাদের নেতৃত্বে ছিলেন আলেমরা? যাদের কাজই ছিলো মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে লড়াই করা?

অবাক হচ্ছেন?
তাদের নাম কী? কী ছিলো তাদের কাজ?

– হ্যাঁ, সবই বলবো।
২৬ মার্চের আগে মুক্তিযুদ্ধের প্রস্তুতি নেয়ার নির্দেশনা দিয়েছিলেন কোনো আলেম, ভাবতে পারা যায়? ৬৪ টি জেলায় পৌছে দেয়া হয় সেই নির্দেশনামা।

সরাসরি নির্দেশনামাটি দেখতে চান?
হ্যাঁ, দেখাচ্ছি।

বঙ্গবন্ধুর ৬ দফা, ছাত্র পরিষদের ১১ দফা তো ইতিহাসবিখ্যাত। মুক্তিযুদ্ধের জন্য এর ভূমিকা ছিলো অবর্ণনীয়। কিন্তু আলেমদের ১৩ দফা ?
এমন দফাও ছিলো নাকি? আছে প্রমাণ?
হ্যাঁ, প্রমাণ দেখাচ্ছি!

আরো এবং আরো এবং আরো অনেক কিছু।
ক’টা দিন অপেক্ষা করুন। ‘মুক্তিযুদ্ধ ও জমিয়ত : জ্যোতির্ময় অধ্যায়’ বইটি এসে যাক বাজারে।