ঢাকা , মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
এমপি আনোয়ারুল আজিমকে হত্যার ঘটনায় আটক তিনজন , এতে বাংলাদেশী মানুষ জড়িত:স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকাস্থ ইরান দুতাবাসে রাইসির শোক বইয়ে মির্জা ফখরুলের স্বাক্ষর মুটো ফোনের আসক্তি দূর করবেন যেভাবে… এই অভ্যাসগুলোর চর্চা নিয়মিত করা উচিৎ স্বামী-স্ত্রীর বয়সের পার্থক্য থাকা জরুরি কেনো ? পুনাক এর উদ্যোগে দুস্হ ও অসহায় নারীদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরন করা হয়েছে কুলাউড়ার টিলাগাঁও এ সরকারি গাছ বিক্রি করলেন প্রধান শিক্ষক লটারি বাইক জিতলো মা’ সে কারণে কপাল পুড়লো মেয়ের ফজরের নামাজে যাওয়ার সময় রাস্তায় কুকুর দলের আক্রমনে প্রান গেলো ইজাজুলের সাবেক সাংসদ সেলিমা আহমাদ মেরীর সাথে পর্তুগাল আওয়ামিলীগের মতবিনিময় সভা

নেত্রীর ছবি ছাড়া পোষ্টার ও নির্বাচনী কার্যালয় করায় তোপের মুখে সুলতান মনসুর

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্ক:
  • আপডেটের সময় : ০৮:১৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮
  • / ৫৩২ টাইম ভিউ

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্ক: গণফোরামের কেন্দ্রিয় নেতা ও মৌলভীবাজার -০২ কুলাউড়া আসনে ধানের শীষের প্রার্থী সুলতান মো. মনসুর আহমদের পোষ্টার কিংবা নির্বাচনী প্রধান অফিসে জিয়া পরিবারের কোনো ছবি ব্যবহার না করায় ক্ষুব্দ নেতাকর্মীরা। যদি ছবি যুক্ত করা না হয় তাহলে এর সমুচিত জবাব দেয়া হবে বলে জানান নেতা-কর্মীরা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। গণফোরামের কেন্দ্রিয় নেতা ও মৌলভীবাজার -০২ কুলাউড়া আসনে ধানের শীষের প্রার্থী সুলতান মো. মনসুর আহমদের পোষ্টার কিংবা নির্বাচনী প্রধান অফিসে জিয়া পরিবারের কোনো ছবি ব্যবহার না করায় ক্ষুব্দ নেতাকর্মীরা। যদি ছবি যুক্ত করা না হয় তাহলে এর সমুচিত জবাব দেয়া হবে বলে জানান নেতা-কর্মীরা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নির্বাচনী প্রধান অফিসের ছবি দিয়ে ছাত্রদল যুবদল সহ তৃণমূল নেতা কর্মিরা বলছেন যা হওয়ার হয়ে গেছে, এখন ভুলগুলো শুধরে নেয়া হোক। নির্বাচনী কার্যালয়ের প্রধান গেট থেকে অবিলম্বে এই ব্যানার সরিয়ে খালেদা, তারেক জিয়ার ছবি সম্বলিত ধানের শীষের ব্যানার রাখতে হবে। নির্বাচনী পোস্টার যেন তারেক জিয়া এবং খালেদা জিয়ার ছবি থাকে। তা না হলে আমাদেরকে পাবেন না। আপনার বিরুদ্ধে যেতে সময় লাগবে না। কিবরিয়া চৌধুরী লেখেন, নেতৃবৃন্দের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। নির্বাচনী ব্যানারে দলের প্রতিষ্ঠাতা শহীদ জিয়ার ছবি নেই, নেই বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক জিয়ার ছবি। কিন্তু সবচেয়ে বেশি দু:খ লাগে বিএনপির কিছু অতিউৎসাহীরা দলের প্রতিকের প্রচারণা না করে ব্যক্তির প্রচারণা শুরু করেছেন। তাদের মনে রাখা উচিত, ব্যক্তি ক্ষণস্থায়ী কিন্তু প্রতিক স্থায়ী। সাইফুর রহমান লিখেছেন, ঘরে বসে ভোট দেবো ধানের শীষে, সকল কর্মকাণ্ড বর্জন করবে জিয়ার সৈনিকেরা। পাশে বসে পরিচালনা করছেন দালাল প্রকৃতির কিছু বিএনপি নেতা তাদের এসব কী চোখে পড়ে না। তিনি ছাত্রদল, যুবদল, বিএনপি ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দকে পোষ্টার না লাগাতে অনুরোধ করেন। শামীম আহমেদ লিখেন, মনেতে কি নতুন পোষ্টার লাগানো যাবে? একেএম ফজলুল হক রুবেল লেখেন, যারা ধানের শীষ নিয়ে নির্বাচন করবেন, তারা যদি নেত্রীর ছবি পোষ্টারে ব্যবহার না করে, তাহলে আমি ব্যক্তিগতভাবে সমর্থন করব না। জিয়াউদ্দিন মো. ইউছুফ লেখেন, নেত্রীর ছবি নাই, তাই নকল ধান ছড়া। ভোট দেব না। কোদাল মার্কায় ভোট দেব। জিয়াউদ্দিন মো. ইউছুফ লেখেন, নেত্রীর ছবি নাই, তাই নকল ধান ছড়া। ভোট দেব না। কোদাল মার্কায় ভোট দেব।

পোস্ট শেয়ার করুন

নেত্রীর ছবি ছাড়া পোষ্টার ও নির্বাচনী কার্যালয় করায় তোপের মুখে সুলতান মনসুর

আপডেটের সময় : ০৮:১৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্ক: গণফোরামের কেন্দ্রিয় নেতা ও মৌলভীবাজার -০২ কুলাউড়া আসনে ধানের শীষের প্রার্থী সুলতান মো. মনসুর আহমদের পোষ্টার কিংবা নির্বাচনী প্রধান অফিসে জিয়া পরিবারের কোনো ছবি ব্যবহার না করায় ক্ষুব্দ নেতাকর্মীরা। যদি ছবি যুক্ত করা না হয় তাহলে এর সমুচিত জবাব দেয়া হবে বলে জানান নেতা-কর্মীরা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। গণফোরামের কেন্দ্রিয় নেতা ও মৌলভীবাজার -০২ কুলাউড়া আসনে ধানের শীষের প্রার্থী সুলতান মো. মনসুর আহমদের পোষ্টার কিংবা নির্বাচনী প্রধান অফিসে জিয়া পরিবারের কোনো ছবি ব্যবহার না করায় ক্ষুব্দ নেতাকর্মীরা। যদি ছবি যুক্ত করা না হয় তাহলে এর সমুচিত জবাব দেয়া হবে বলে জানান নেতা-কর্মীরা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নির্বাচনী প্রধান অফিসের ছবি দিয়ে ছাত্রদল যুবদল সহ তৃণমূল নেতা কর্মিরা বলছেন যা হওয়ার হয়ে গেছে, এখন ভুলগুলো শুধরে নেয়া হোক। নির্বাচনী কার্যালয়ের প্রধান গেট থেকে অবিলম্বে এই ব্যানার সরিয়ে খালেদা, তারেক জিয়ার ছবি সম্বলিত ধানের শীষের ব্যানার রাখতে হবে। নির্বাচনী পোস্টার যেন তারেক জিয়া এবং খালেদা জিয়ার ছবি থাকে। তা না হলে আমাদেরকে পাবেন না। আপনার বিরুদ্ধে যেতে সময় লাগবে না। কিবরিয়া চৌধুরী লেখেন, নেতৃবৃন্দের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। নির্বাচনী ব্যানারে দলের প্রতিষ্ঠাতা শহীদ জিয়ার ছবি নেই, নেই বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক জিয়ার ছবি। কিন্তু সবচেয়ে বেশি দু:খ লাগে বিএনপির কিছু অতিউৎসাহীরা দলের প্রতিকের প্রচারণা না করে ব্যক্তির প্রচারণা শুরু করেছেন। তাদের মনে রাখা উচিত, ব্যক্তি ক্ষণস্থায়ী কিন্তু প্রতিক স্থায়ী। সাইফুর রহমান লিখেছেন, ঘরে বসে ভোট দেবো ধানের শীষে, সকল কর্মকাণ্ড বর্জন করবে জিয়ার সৈনিকেরা। পাশে বসে পরিচালনা করছেন দালাল প্রকৃতির কিছু বিএনপি নেতা তাদের এসব কী চোখে পড়ে না। তিনি ছাত্রদল, যুবদল, বিএনপি ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দকে পোষ্টার না লাগাতে অনুরোধ করেন। শামীম আহমেদ লিখেন, মনেতে কি নতুন পোষ্টার লাগানো যাবে? একেএম ফজলুল হক রুবেল লেখেন, যারা ধানের শীষ নিয়ে নির্বাচন করবেন, তারা যদি নেত্রীর ছবি পোষ্টারে ব্যবহার না করে, তাহলে আমি ব্যক্তিগতভাবে সমর্থন করব না। জিয়াউদ্দিন মো. ইউছুফ লেখেন, নেত্রীর ছবি নাই, তাই নকল ধান ছড়া। ভোট দেব না। কোদাল মার্কায় ভোট দেব। জিয়াউদ্দিন মো. ইউছুফ লেখেন, নেত্রীর ছবি নাই, তাই নকল ধান ছড়া। ভোট দেব না। কোদাল মার্কায় ভোট দেব।