ঢাকা , শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৫ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
লিসবনে আত্মপ্রকাশ হয় সামাজিক সংগঠন “গোলাপগঞ্জ কমিউনিটি কেয়ারর্স পর্তুগাল “ উচ্ছ্বাস আর আনন্দে বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখের উদযাপন করেছে পর্তুগাল যথাযথ গাম্ভীর্যের মধ্যে দিয়ে পরিবেশে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর পালন করেছে ভেনিস প্রবাসীরা ভেনিসে বৃহত্তর সিলেট সমিতির আয়োজনে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত এক অসুস্থ প্রজন্ম কে সাথি করে এগুচ্ছি আমরা রিডানডেন্ট ক্লোথিং আর মজুর মামার ‘বিশ্বকাপ’ ইউরোপের সবচেয়ে বড় ঈদুল ফিতরের নামাজ পর্তুগালে অনুষ্ঠিত হয় বর্ণাঢ্য আয়োজনে পর্তুগাল বাংলা প্রেসক্লাবের ইফতার ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন ঈদের কাপড় কিনার জন্য মা’য়ের উপর অভিমান করে মেয়ের আত্মহত্যা লিসবনে বন্ধু মহলের আয়োজনে বিশাল ইফতার ও দোয়া মাহফিল

নির্বাচন কমিশনের সংলাপে যোগ দিতে পারে বিএনপি

অনলাইন ডেস্ক :
  • আপডেটের সময় : ১২:০৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩০ জুলাই ২০১৭
  • / ১০৮৬ টাইম ভিউ

নির্বাচন কমিশনের সংলাপে যোগ দিতে পারে বিএনপি। দলটির নেতারা জানিয়েছেন ইসির সাথে সংলাপে নির্বাচনে সেনা মোতায়েন, ভোটে ইভিএম ব্যবহার না করা, আরপিও সংশোধন, এবং ২০০৮ এর নির্বাচনী সীমানায় ফিরে যাওয়া সহ বেশ কিছু সুপারিশ তুলে ধরা হবে।

জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে ঘোষিত রোডম্যাপ অনুযায়ী ৩১ জুলাই থেকে শুরু হবে নির্বাচন কমিশনের সংলাপ। প্রথমে সুশীল সমাজ তারপর একে একে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও সংগঠনের সাথে সংলাপ করবে নির্বাচন কমিশন।

বিএনপি নেতারা জানান সাম্প্রতিক সময়ে সরকারের সুরে কথা বলে নির্বাচন কমিশন তাদের কর্মকান্ডকে প্রশ্নবিদ্ধ করছে। নির্বাচন কমিশনকে পূর্ণ সহযোগিতার ব্যাপারে বিএনপির যে অবস্থানে ছিল ইসির প্রশ্নবিদ্ধ কর্মকান্ডে তাতে কিছুটা চির ধরেছে। তবুও ইসির সংলাপে যোগ দেয়ার ইংগিত দেন নেতারা।

আগামী জাতীয় নির্বাচনকে গ্রহণযোগ্য ও সুষ্ঠু করতে নির্বাচন কমিশনের সাথে সংলাপে বিএনপি বেশ কিছু প্রস্তাবনা তুলে ধরবে বলে জানান দলটির নেতারা। আগামী দিনগুলোতে নির্বাচন কমিশন তাদের নিরপেক্ষতা বজায় রাখবে এবং তাদের কর্মকান্ড প্রশ্নবিদ্ধ হবে না এমনটাই প্রত্যাশা বিএনপি নেতাদের।

পোস্ট শেয়ার করুন

নির্বাচন কমিশনের সংলাপে যোগ দিতে পারে বিএনপি

আপডেটের সময় : ১২:০৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩০ জুলাই ২০১৭

নির্বাচন কমিশনের সংলাপে যোগ দিতে পারে বিএনপি। দলটির নেতারা জানিয়েছেন ইসির সাথে সংলাপে নির্বাচনে সেনা মোতায়েন, ভোটে ইভিএম ব্যবহার না করা, আরপিও সংশোধন, এবং ২০০৮ এর নির্বাচনী সীমানায় ফিরে যাওয়া সহ বেশ কিছু সুপারিশ তুলে ধরা হবে।

জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে ঘোষিত রোডম্যাপ অনুযায়ী ৩১ জুলাই থেকে শুরু হবে নির্বাচন কমিশনের সংলাপ। প্রথমে সুশীল সমাজ তারপর একে একে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও সংগঠনের সাথে সংলাপ করবে নির্বাচন কমিশন।

বিএনপি নেতারা জানান সাম্প্রতিক সময়ে সরকারের সুরে কথা বলে নির্বাচন কমিশন তাদের কর্মকান্ডকে প্রশ্নবিদ্ধ করছে। নির্বাচন কমিশনকে পূর্ণ সহযোগিতার ব্যাপারে বিএনপির যে অবস্থানে ছিল ইসির প্রশ্নবিদ্ধ কর্মকান্ডে তাতে কিছুটা চির ধরেছে। তবুও ইসির সংলাপে যোগ দেয়ার ইংগিত দেন নেতারা।

আগামী জাতীয় নির্বাচনকে গ্রহণযোগ্য ও সুষ্ঠু করতে নির্বাচন কমিশনের সাথে সংলাপে বিএনপি বেশ কিছু প্রস্তাবনা তুলে ধরবে বলে জানান দলটির নেতারা। আগামী দিনগুলোতে নির্বাচন কমিশন তাদের নিরপেক্ষতা বজায় রাখবে এবং তাদের কর্মকান্ড প্রশ্নবিদ্ধ হবে না এমনটাই প্রত্যাশা বিএনপি নেতাদের।