ঢাকা , শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
প্রিয়জনদের মানসিক রোগ যদি আপনজন বুঝতে না পারেন আওয়ামীলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা ও অভিষেক অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা করেছে পর্তুগাল আওয়ামীলীগ যেকোনো প্রচেষ্টা এককভাবে সম্পন্ন করা সম্ভব নয়: দুদক সচিব শ্রীমঙ্গলে দুটি চোরাই মোটরসাইকেল সহ মিল্টন কুমার আটক পর্তুগালের অভিবাসন আইনে ব্যাপক পরিবর্তন পর্তুগাল বিএনপি আহবায়ক কমিটির জুমে জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয় এমপি আনোয়ারুল আজিমকে হত্যার ঘটনায় আটক তিনজন , এতে বাংলাদেশী মানুষ জড়িত:স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকাস্থ ইরান দুতাবাসে রাইসির শোক বইয়ে মির্জা ফখরুলের স্বাক্ষর মুটো ফোনের আসক্তি দূর করবেন যেভাবে…

ঢাকায় রোবট রেস্টুরেন্টের যাত্রা শুরু

অনলাইন ডেস্ক :
  • আপডেটের সময় : ০৫:০৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৭
  • / ১৫১০ টাইম ভিউ

রোবট রেস্টুরেন্ট। নাম শুনে অনেকের মনে হবে এটা আবার কেমন রেস্টুরেন্ট। রাজধানীতে ভিন্ন ধরনের এমন একটি রেস্টুরেন্টের যাত্রা শুরু হয়েছে। যেখানে খাবারের অর্ডার নেয়া থেকে পরিবেশন সবই করবে রোবট। বুধবার আসাদগেটের ফ্যামিলি ওয়ার্ল্ড কনভেশন সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে রেষ্টুরেন্টের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, বাংলাদেশে এটিই প্রথম এবং একমাত্র রেষ্টুরেন্ট যেখানে ক্রেতাদের খাবার সরবারহ করবে একটি রোবর্ট।

অর্ডারও নিবে রোবট। তবে আপাতত অর্ডারের সার্ভিসটি চালু করেছেন না উদ্যোক্তারা। বাংলাদেশ এবং চীনের যৌথ পরিচালনায় চলবে রেস্টুরেন্টটি। রোবট রেস্টুরেন্টের পরিচালক রাহিন রাইয়ান নবী বলেন, অনেক সময় দেখা যায় ওয়েটাররা ক্লান্ত হয়ে পড়েন। এই ক্লান্ত অবস্থায়ই তাদের খাবার সরবারহ করতে হয়। রোবর্ট কখনো ক্লান্ত হবে না। বিরতিহীনভাবে ১৮ ঘন্টা সেবা দিয়ে যাবে। এখানে গুণগতমান ও জীবানুমুক্ত খাবারের নিশ্চয়তা দেয়া হবে। সকল বয়সের মানুষকে আনন্দদানে রোবটে থাকবে মিউজিকের ব্যবস্থা। বিশেষ করে শিশুদের বিনোদন ও খাবারের বিষয়টি চিন্তা করেই এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। পরিচালক আরও জানান, শিশুদের জন্য আমাদের রেষ্টুরেন্টে বিশেষ কিছু খাবারের আইটেম রয়েছে। আমরা খাবারের মান এবং পরিবেশ বজায় রাখবো। যাতে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে এখানে আসতে পারে। খাবারের দামও থাকবে সাধ্যের মধ্যে। সাধারণ মানুষকে বিরল ও ব্যতিক্রম এ অনুভূতি দেয়াই আমাদের লক্ষ্য। রেসটুরেন্টের সহযোগী প্রতিষ্ঠান এইচ জেট এক্স ইলেকট্রনিক টেকনোলজির প্রধান নির্বাহী ম্যাক্স সেয়াজ বলেন, বাংলাদেশের মত একটি উন্নয়নশীল দেশে তারা এ ধরনের একটি রেষ্টুরেন্টের সাথে সম্পৃক্ত হতে পেরে আনন্দিত। রেস্টুরেন্টের ম্যানেজার তানভীরুল হক তন্ময় বলেন, বর্তমানে দুটি রোবর্ট দিয়ে খাবার সরবারহ করা হবে। রোবট দুটি ১০০ থেকে ১২০ জন ক্রেতাকে খাবার সরবারহ করতে পারবে। প্রাথমিক পর্যায়ে আগামী একমাস পর্যন্ত শিশুদের জন্য কিডমিল এবং দেশীয় খাবারের সেট ফুড থাকবে।

পোস্ট শেয়ার করুন

ঢাকায় রোবট রেস্টুরেন্টের যাত্রা শুরু

আপডেটের সময় : ০৫:০৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৭

রোবট রেস্টুরেন্ট। নাম শুনে অনেকের মনে হবে এটা আবার কেমন রেস্টুরেন্ট। রাজধানীতে ভিন্ন ধরনের এমন একটি রেস্টুরেন্টের যাত্রা শুরু হয়েছে। যেখানে খাবারের অর্ডার নেয়া থেকে পরিবেশন সবই করবে রোবট। বুধবার আসাদগেটের ফ্যামিলি ওয়ার্ল্ড কনভেশন সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে রেষ্টুরেন্টের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, বাংলাদেশে এটিই প্রথম এবং একমাত্র রেষ্টুরেন্ট যেখানে ক্রেতাদের খাবার সরবারহ করবে একটি রোবর্ট।

অর্ডারও নিবে রোবট। তবে আপাতত অর্ডারের সার্ভিসটি চালু করেছেন না উদ্যোক্তারা। বাংলাদেশ এবং চীনের যৌথ পরিচালনায় চলবে রেস্টুরেন্টটি। রোবট রেস্টুরেন্টের পরিচালক রাহিন রাইয়ান নবী বলেন, অনেক সময় দেখা যায় ওয়েটাররা ক্লান্ত হয়ে পড়েন। এই ক্লান্ত অবস্থায়ই তাদের খাবার সরবারহ করতে হয়। রোবর্ট কখনো ক্লান্ত হবে না। বিরতিহীনভাবে ১৮ ঘন্টা সেবা দিয়ে যাবে। এখানে গুণগতমান ও জীবানুমুক্ত খাবারের নিশ্চয়তা দেয়া হবে। সকল বয়সের মানুষকে আনন্দদানে রোবটে থাকবে মিউজিকের ব্যবস্থা। বিশেষ করে শিশুদের বিনোদন ও খাবারের বিষয়টি চিন্তা করেই এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। পরিচালক আরও জানান, শিশুদের জন্য আমাদের রেষ্টুরেন্টে বিশেষ কিছু খাবারের আইটেম রয়েছে। আমরা খাবারের মান এবং পরিবেশ বজায় রাখবো। যাতে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে এখানে আসতে পারে। খাবারের দামও থাকবে সাধ্যের মধ্যে। সাধারণ মানুষকে বিরল ও ব্যতিক্রম এ অনুভূতি দেয়াই আমাদের লক্ষ্য। রেসটুরেন্টের সহযোগী প্রতিষ্ঠান এইচ জেট এক্স ইলেকট্রনিক টেকনোলজির প্রধান নির্বাহী ম্যাক্স সেয়াজ বলেন, বাংলাদেশের মত একটি উন্নয়নশীল দেশে তারা এ ধরনের একটি রেষ্টুরেন্টের সাথে সম্পৃক্ত হতে পেরে আনন্দিত। রেস্টুরেন্টের ম্যানেজার তানভীরুল হক তন্ময় বলেন, বর্তমানে দুটি রোবর্ট দিয়ে খাবার সরবারহ করা হবে। রোবট দুটি ১০০ থেকে ১২০ জন ক্রেতাকে খাবার সরবারহ করতে পারবে। প্রাথমিক পর্যায়ে আগামী একমাস পর্যন্ত শিশুদের জন্য কিডমিল এবং দেশীয় খাবারের সেট ফুড থাকবে।