ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
প্রিয়জনদের মানসিক রোগ যদি আপনজন বুঝতে না পারেন আওয়ামীলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা ও অভিষেক অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা করেছে পর্তুগাল আওয়ামীলীগ যেকোনো প্রচেষ্টা এককভাবে সম্পন্ন করা সম্ভব নয়: দুদক সচিব শ্রীমঙ্গলে দুটি চোরাই মোটরসাইকেল সহ মিল্টন কুমার আটক পর্তুগালের অভিবাসন আইনে ব্যাপক পরিবর্তন পর্তুগাল বিএনপি আহবায়ক কমিটির জুমে জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয় এমপি আনোয়ারুল আজিমকে হত্যার ঘটনায় আটক তিনজন , এতে বাংলাদেশী মানুষ জড়িত:স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকাস্থ ইরান দুতাবাসে রাইসির শোক বইয়ে মির্জা ফখরুলের স্বাক্ষর মুটো ফোনের আসক্তি দূর করবেন যেভাবে…

ডাকবাংলা রাজনীতি!

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ
  • আপডেটের সময় : ০২:৩৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ১০ অগাস্ট ২০১৯
  • / ৫৩৮ টাইম ভিউ

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ কুলাউড়া ডাকবাংলা কেন বঙ্গবন্ধু উদ্যান নামে হবে? নাম পরিবর্তনের এ কেমন নতুন রাজনীতি? শোকের মাসে কেন সুখের রাজনীতি? কেন এমন স্বার্থের রাজনীতি! বঙ্গবন্ধুর মতো একজন মহান ব্যক্তির নামে হবে “বঙ্গবন্ধু জাতীয় উদ্যান”। সেটা সরকার করবে। হবে ঢাকায়। ছোটখাটো জায়গায় একজন মহান নেতাকে না টানলে হয় না? এ কেমন নতুন মডেলের তৈল মর্দন? কোনটা তৈল মর্দন অার কোনটা শ্রদ্ধা-ভালোবাসা, তা তো খুউব ভালই জানেন বঙ্গবন্ধুকন্যা। তারপরও নয়া মডেলে এপ্লাই করা হচ্ছে! ব্যক্তিগত ফায়দা হাসিলের জন্য এমন পায়তারা মোটেও শুভনীয় নয়। ঐতিহ্যবাহি ডাকবাংলা ঘেষে আমার অনেক সময় পার হয়েছে! কতক বছর কেটেছে। এজন্য এই নাম নিয়ে কেউ নিজ স্বার্থ হাসিলের পায়তারা করলে অামাদেরও একটু আ  ঘাত লাগে। অনুরোধ করি কুলাউড়া অাওয়ামীলীগকে, দয়াকরে এমনটা করতে দেবেন না। কারো ব্যক্তিগত ফায়দা লাভের ফন্দিতে ছোটখাটো একটা জায়গায় বঙ্গবন্ধুর নামটা যেন ব্যবহার না হয়। বঙ্গবন্ধুর নামে কেউ নতুনভাবে যেন রাজনীতি না করে। বঙ্গবন্ধুকে অামরা ভালোবাসি, শ্রদ্ধা করি তৃতীয় প্লাটফর্ম থেকে। অাপনারা বঙ্গবন্ধুর দল অাওয়ামীলীগের রাজনীতি করেন। অামাদের চাইতে অাপনারাই বঙ্গবন্ধুকে বেশি ভালোবাসেন, উনার অাদর্শ বেশি অনুসরণ করেন। কোনটা ভালো, কোনটা ভালো নয় তা অাপনারাই বেশি জানেন। তাই কেউ বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে অসুস্থ রাজনীতি করবে তা মোটেও অাপনারা পছন্দ করেন না! করতেও দেবেন না। অার ডাকবাংলার নাম পরিবর্তন না করলে হয় না? কি দরকার পরিবর্তনের। এ নাম তো যুগযুগ ধরে চলে অাসছে। অামাদের মনে-প্রাণে মিশে অাছে। তবুও অান্তরিকভাবে অনুরোধ করবো, ডাংকবাংলার নাম একান্তই যদি বদল করতে হয় তবে সাবেক এমপি মরহুম অাব্দুল জব্বার কিংবা কুলাউড়ার কোনো কৃতিমানুষ নতুবা একজন মুক্তিযোদ্ধার নামে পরিবর্তন করুন। অাজ যদি নিজের এলাকার কোনো কৃতিমানুষকে সম্মানিত করেন, তবে একদিন অাপনাদেরকেও কুলাউড়ার মানুষ সম্মানিত করবে, স্মরণীয় করে রাখবে। একই প্রত্যাশা উপজেলা পরিষদ, পৌরসভা এবং উপজেলা প্রশাসনের নিকটও! জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু, জয় ডাকবাংলা!

–এম আর তাহরীম ১০ আগষ্ট -২০১৯

পোস্ট শেয়ার করুন

ডাকবাংলা রাজনীতি!

আপডেটের সময় : ০২:৩৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ১০ অগাস্ট ২০১৯

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ কুলাউড়া ডাকবাংলা কেন বঙ্গবন্ধু উদ্যান নামে হবে? নাম পরিবর্তনের এ কেমন নতুন রাজনীতি? শোকের মাসে কেন সুখের রাজনীতি? কেন এমন স্বার্থের রাজনীতি! বঙ্গবন্ধুর মতো একজন মহান ব্যক্তির নামে হবে “বঙ্গবন্ধু জাতীয় উদ্যান”। সেটা সরকার করবে। হবে ঢাকায়। ছোটখাটো জায়গায় একজন মহান নেতাকে না টানলে হয় না? এ কেমন নতুন মডেলের তৈল মর্দন? কোনটা তৈল মর্দন অার কোনটা শ্রদ্ধা-ভালোবাসা, তা তো খুউব ভালই জানেন বঙ্গবন্ধুকন্যা। তারপরও নয়া মডেলে এপ্লাই করা হচ্ছে! ব্যক্তিগত ফায়দা হাসিলের জন্য এমন পায়তারা মোটেও শুভনীয় নয়। ঐতিহ্যবাহি ডাকবাংলা ঘেষে আমার অনেক সময় পার হয়েছে! কতক বছর কেটেছে। এজন্য এই নাম নিয়ে কেউ নিজ স্বার্থ হাসিলের পায়তারা করলে অামাদেরও একটু আ  ঘাত লাগে। অনুরোধ করি কুলাউড়া অাওয়ামীলীগকে, দয়াকরে এমনটা করতে দেবেন না। কারো ব্যক্তিগত ফায়দা লাভের ফন্দিতে ছোটখাটো একটা জায়গায় বঙ্গবন্ধুর নামটা যেন ব্যবহার না হয়। বঙ্গবন্ধুর নামে কেউ নতুনভাবে যেন রাজনীতি না করে। বঙ্গবন্ধুকে অামরা ভালোবাসি, শ্রদ্ধা করি তৃতীয় প্লাটফর্ম থেকে। অাপনারা বঙ্গবন্ধুর দল অাওয়ামীলীগের রাজনীতি করেন। অামাদের চাইতে অাপনারাই বঙ্গবন্ধুকে বেশি ভালোবাসেন, উনার অাদর্শ বেশি অনুসরণ করেন। কোনটা ভালো, কোনটা ভালো নয় তা অাপনারাই বেশি জানেন। তাই কেউ বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে অসুস্থ রাজনীতি করবে তা মোটেও অাপনারা পছন্দ করেন না! করতেও দেবেন না। অার ডাকবাংলার নাম পরিবর্তন না করলে হয় না? কি দরকার পরিবর্তনের। এ নাম তো যুগযুগ ধরে চলে অাসছে। অামাদের মনে-প্রাণে মিশে অাছে। তবুও অান্তরিকভাবে অনুরোধ করবো, ডাংকবাংলার নাম একান্তই যদি বদল করতে হয় তবে সাবেক এমপি মরহুম অাব্দুল জব্বার কিংবা কুলাউড়ার কোনো কৃতিমানুষ নতুবা একজন মুক্তিযোদ্ধার নামে পরিবর্তন করুন। অাজ যদি নিজের এলাকার কোনো কৃতিমানুষকে সম্মানিত করেন, তবে একদিন অাপনাদেরকেও কুলাউড়ার মানুষ সম্মানিত করবে, স্মরণীয় করে রাখবে। একই প্রত্যাশা উপজেলা পরিষদ, পৌরসভা এবং উপজেলা প্রশাসনের নিকটও! জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু, জয় ডাকবাংলা!

–এম আর তাহরীম ১০ আগষ্ট -২০১৯