আপডেট

x


জয়নুল গ্যালারিতে ’৮৭’র শিক্ষার্থীদের চিত্র প্রদর্শনী

মঙ্গলবার, ১১ জুলাই ২০১৭ | ১২:৪৬ পূর্বাহ্ণ | 928 বার

জয়নুল গ্যালারিতে ’৮৭’র শিক্ষার্থীদের চিত্র প্রদর্শনী

কারো কারো ছবি খুব সুন্দর, কাজের মান ভাল। অনেকের ছবি দেখে মনে হয় বিষয়বৈচিত্র্য থাকলেও চর্চায় দীর্ঘ ছেদ পড়েছে। পুরানো বন্ধুরা একজোট হওয়ার আনন্দে ভাসছিলেন প্রদর্শনীতে অংশ নেয়া শিল্পীরা। সাবেক ঢাকা চারুকলা ইন্সটিটিউটের ’৮৭ ব্যাচের শিক্ষার্থীরা একজোট হয়ে আয়োজন করেছেন চিত্র প্রদর্শনীর। চারুকলা অনুষদের জয়নুল গ্যালারি তাই প্রদর্শনী ছাপিয়ে হয়ে উঠেছিল বন্ধুদের মিলনমেলা। পড়াশোনা শেষ হবার পর পেরিয়ে গেছে ৩০ বছর। বন্ধুদের ফিরিয়ে এনে এক হওয়ার জন্যই তারা গঠন করেছে শিক্ষার্থীদের সংগঠন ‘চারুকলা ’৮৭। এরই আয়োজন করলো প্রদর্শনীর। বন্ধুত্বের ৩০ বছর উপলক্ষে জয়নুল গ্যালারিতে শুরু হয়েছে ‘জাম্প স্টার্ট থার্টি’ শীর্ষক প্রদর্শনীর।

গতকাল রবিবার বিকালে প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন বরেণ্য চিত্রশিল্পী রফিকুন নবী। বিশেষ অতিথি ছিলেন চারুকলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক নিসার হোসেন, গ্রাফিক ডিজাইন বিভাগের অধ্যাপক মোহাম্মদ ইউনুস, বাংলা বিভাগের অধ্যাপক সৈয়দ আজিজুল হক এবং শিল্পী অধ্যাপক শিশির ভট্টাচার্য্য। স্বাগত বক্তব্য রাখেন এ সংগঠনের আহ্বায়ক রকিবুল আনাম অঞ্জন। উদ্বোধনী বক্তব্যে রফিকুন নবী বলেন, জীবনের শত ব্যস্ততার মাঝে চারুকলার এই সাবেক শিক্ষার্থীরা কেউ নিয়মিত আবার কেউ বা অনিয়মিতভাবে চালিয়ে গেছেন শিল্পচর্চা। তাদের শিল্পকর্মগুলো চমত্কার হয়েছে। নিসার হোসেন বলেন, সাধারণত কর্মজীবনের পরিবেশ, পরিস্থিতি সবার জন্য শিল্পচর্চার অনুকূলে থাকে না তবু এরা নিজ নিজ শিল্পসত্ত্বাকে মুখ্য হিসেবে তুলে ধরার প্রত্যয় নিয়ে চারুকলা অনুষদের সেই আদি ঠিকানায় মিলিত হচ্ছে। এটা এই অনুষদের সবার জন্য একটি অনুসরণীয় দৃষ্টান্ত হয়ে উঠবে।



প্রদর্শনীতে স্থান পেয়েছে শিল্পী এ. রহমানের আঁকা ‘কনফিউজড ফেইস’, ননী গোপাল হালদারের সিরিজ ছবি ‘হার্ট-১’, নাজিয়া শারমিনের ‘চিরচেনা রবি’, মো.মাসুদুর রহমানের সিরিজ ছবি ‘স্টোরি’। টেরাকোটা, অ্যাক্রেলিক, অয়েল, চারকোলসহ মিশ্র মাধ্যমে শিল্পীরা ক্যানভাসে এঁকেছেন জীবনের প্রতিচ্ছবি। অনেকেই আবার বিষয় হিসেবে বেছে নিয়েছেন নিসর্গের নান্দনিকতা। প্রকৃতির রূপ-রস অন্বেষণে আদিব সাঈদ শিপু জলরংয়ে এঁকেছেন সিরিজ ছবি ‘মি অ্যান্ড মাই নেচার’। জানালার ভেতর থেকে দেখা গোধূলিবেলার ছবি আঁকতে গিয়ে অমল দাশ আশ্রয় নিয়েছেন ছাপচিত্র মাধ্যমের। বিপ্লব শাহরিয়ারের ‘ল্যান্ডস্কেপ’, ধনমনি চাকমার ‘হারভেস্টিং ফ্রম দ্য জুম’, ইলিয়াস খানের ‘অ্যারিয়াল ভিউ অফ ল্যান্ড’, ফরহাদ হোসেনের ‘বার্ড’, হাফিজ উদ্দিন বাবুর ‘এটারনাল গার্ডেন’ ছবিগুলোতে উঠে এসেছে নিসর্গের নানা অনুষঙ্গ। ধানক্ষেত, নদী, পাহাড় আর বনানীর এসব ছবিতে তারা আশ্রয় নিয়েছেন অয়েল আর ওয়াটার কালারের। ক্যানভাসে যাপিত জীবনের গল্প উঠে এসেছে এস এম জায়েদুর রহমানের ‘প্রগ্রেশন অফ লাইফ’, হারুন আল রাশিদের ‘রেস্টলেস’ শিরোনামের ছবিতে। এছাড়া প্রদর্শনীতে ঠাঁই  পেয়েছে দেবাশীষ পালের স্টোনওয়ার সিরামিক শিল্পকর্ম ‘জার্নি অন ফায়ার’, আমিনুল ইসলাম লিটুর  ব্রোঞ্জে গড়া ভাস্কর্য ‘পোয়াতি ভেনাস’ এবং একই ধাতুতে গড়া ঝুনু আক্তারের শিল্পকর্ম ‘কম্পোজিশন’।

প্রদর্শনী চলবে ১৫ জুলাই পর্যন্ত। প্রতিদিন দুপুর একটা থেকে রাত আটটা পর্যন্ত খোলা থাকবে।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments


deshdiganto.com © 2019 কপিরাইট এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত

design and development by : http://webnewsdesign.com