ঢাকা , শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
যথাযথ গাম্ভীর্যের মধ্যে দিয়ে পরিবেশে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর পালন করেছে ভেনিস প্রবাসীরা ভেনিসে বৃহত্তর সিলেট সমিতির আয়োজনে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত এক অসুস্থ প্রজন্ম কে সাথি করে এগুচ্ছি আমরা রিডানডেন্ট ক্লোথিং আর মজুর মামার ‘বিশ্বকাপ’ ইউরোপের সবচেয়ে বড় ঈদুল ফিতরের নামাজ পর্তুগালে অনুষ্ঠিত হয় বর্ণাঢ্য আয়োজনে পর্তুগাল বাংলা প্রেসক্লাবের ইফতার ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন ঈদের কাপড় কিনার জন্য মা’য়ের উপর অভিমান করে মেয়ের আত্মহত্যা লিসবনে বন্ধু মহলের আয়োজনে বিশাল ইফতার ও দোয়া মাহফিল মান অভিমান ভুলে সবাই একই প্লাটফর্মে,সংবাদ সম্মেলনে পর্তুগাল বিএনপির নবগঠিত আহবায়ক কমিটি ইতালির ভিসেন্সায় সিলেট ডায়নামিক অ্যাসোসিয়েশনের আয়োজনে ইফতার ও দোয়া অনুষ্ঠিত

জুড়ীতে শিপুল হত্যার অভিযোগে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ
  • আপডেটের সময় : ১২:১৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ৪ অগাস্ট ২০১৯
  • / ৩৪৬ টাইম ভিউ

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ  জুড়ী উপজেলার জায়ফরনগর ইউনিয়নের শাহাপুর গ্রামের মৃত আহমদ আলীর ছেলে সিএনজি অটোরিকশা চালক মোঃ শিপুল মিয়া (২৪) কে ষড়যন্ত্রমূলক হত্যার অভিযোগে দায়ী ব্যক্তিদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার ৩ আগষ্ট সকালে ভূয়াই, শাহপুর, রাজাপুর, মনোহরপুর, নিশ্চিন্তপুর ও মোহাম্মদপুর গ্রামের সর্বস্তরের জনসাধারণের আয়োজনে ভূয়াইবাজারে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা আওয়ামীলীগের অন্যতম নেতা আজিজুর রহমান। যুবলীগনেতা মিছবাহ উদ্দিন সুমেল এর পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন কুয়েত প্রবাসী নজরুল ইসলাম, বিশিষ্ট সমাজসেবক হাজী তবারক আলী, আনছার আলী, আনোয়ার মিয়া, জাহিদ হাসান আখল, তাজুল ইসলাম, টেনু মিয়া, আব্দুল গণি, নামর আলী, শেখ সুমন মাহমুদ, যুবলীগ নেতা ইমরান হোসেন রনি, ফখরুল ইসলাম, শ্রমীক নেতা বেলাল হোসেন, ইমরান আহমদ প্রমুখ।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, শিপুল হত্যার বিষয়টি ষড়যন্ত্রমূলক ভাবে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা করা হচ্ছে। এ ব্যপারে পুলিশ প্রশাসনকে ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম দিয়ে আসামীদের খোঁজে বের করে আইনের আওতায় আনার দাবী জানান তারা। মানববন্ধন শেষে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে ভূয়াইবাজার প্রদক্ষিণ করেন উপস্থিত সর্বস্তরের জনসাধারণ।

উল্লেখ্য, ১৮ জুলাই বৃহস্পতিবার থেকে সিএনজি অটোরিকশা চালক শিপুলকে পাওয়া যাচ্ছিল না, তার স্বজনরা জুড়ী থানায় অবগত করলে ২০ জুলাই শনিবার মনোহরপুর হাওর থেকে শিপুলের ভাসমান লাশ উদ্ধার করে জুড়ী থানা পুলিশ। পরে ময়নাতদন্ত শেষে তার লাশ দাফন করা হয়। এ ব্যপারে জুড়ী থানায় একটি ইউডি মামলা নেয়া হয়েছে। শিপুলের মা দয়া বেগম পরবর্তীতে জুড়ী থানায় পুত্র হত্যার অভিযোগ এনে পূর্ব শাহাপুর গ্রামের সবু মিয়ার বড় ছেলে তায়েফ মিয়াকে প্রধান আসামী করে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অন্য আসামীরা হলেন পূর্ব শাহাপুর গ্রামের মৃত জমির আলীর ছেলে মাতাব মিয়া, মনোহরপুর গ্রামের মৃত হাজী মবশ্বির আলী চৌধুরীর ছেলে এনাম উদ্দিন চৌধুরী। অভিযোগ দায়েরের পরথেকে আসামীরা এলাকা ছেড়ে পালিয়েছে।

পোস্ট শেয়ার করুন

জুড়ীতে শিপুল হত্যার অভিযোগে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ

আপডেটের সময় : ১২:১৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ৪ অগাস্ট ২০১৯

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ  জুড়ী উপজেলার জায়ফরনগর ইউনিয়নের শাহাপুর গ্রামের মৃত আহমদ আলীর ছেলে সিএনজি অটোরিকশা চালক মোঃ শিপুল মিয়া (২৪) কে ষড়যন্ত্রমূলক হত্যার অভিযোগে দায়ী ব্যক্তিদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার ৩ আগষ্ট সকালে ভূয়াই, শাহপুর, রাজাপুর, মনোহরপুর, নিশ্চিন্তপুর ও মোহাম্মদপুর গ্রামের সর্বস্তরের জনসাধারণের আয়োজনে ভূয়াইবাজারে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা আওয়ামীলীগের অন্যতম নেতা আজিজুর রহমান। যুবলীগনেতা মিছবাহ উদ্দিন সুমেল এর পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন কুয়েত প্রবাসী নজরুল ইসলাম, বিশিষ্ট সমাজসেবক হাজী তবারক আলী, আনছার আলী, আনোয়ার মিয়া, জাহিদ হাসান আখল, তাজুল ইসলাম, টেনু মিয়া, আব্দুল গণি, নামর আলী, শেখ সুমন মাহমুদ, যুবলীগ নেতা ইমরান হোসেন রনি, ফখরুল ইসলাম, শ্রমীক নেতা বেলাল হোসেন, ইমরান আহমদ প্রমুখ।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, শিপুল হত্যার বিষয়টি ষড়যন্ত্রমূলক ভাবে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা করা হচ্ছে। এ ব্যপারে পুলিশ প্রশাসনকে ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম দিয়ে আসামীদের খোঁজে বের করে আইনের আওতায় আনার দাবী জানান তারা। মানববন্ধন শেষে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে ভূয়াইবাজার প্রদক্ষিণ করেন উপস্থিত সর্বস্তরের জনসাধারণ।

উল্লেখ্য, ১৮ জুলাই বৃহস্পতিবার থেকে সিএনজি অটোরিকশা চালক শিপুলকে পাওয়া যাচ্ছিল না, তার স্বজনরা জুড়ী থানায় অবগত করলে ২০ জুলাই শনিবার মনোহরপুর হাওর থেকে শিপুলের ভাসমান লাশ উদ্ধার করে জুড়ী থানা পুলিশ। পরে ময়নাতদন্ত শেষে তার লাশ দাফন করা হয়। এ ব্যপারে জুড়ী থানায় একটি ইউডি মামলা নেয়া হয়েছে। শিপুলের মা দয়া বেগম পরবর্তীতে জুড়ী থানায় পুত্র হত্যার অভিযোগ এনে পূর্ব শাহাপুর গ্রামের সবু মিয়ার বড় ছেলে তায়েফ মিয়াকে প্রধান আসামী করে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অন্য আসামীরা হলেন পূর্ব শাহাপুর গ্রামের মৃত জমির আলীর ছেলে মাতাব মিয়া, মনোহরপুর গ্রামের মৃত হাজী মবশ্বির আলী চৌধুরীর ছেলে এনাম উদ্দিন চৌধুরী। অভিযোগ দায়েরের পরথেকে আসামীরা এলাকা ছেড়ে পালিয়েছে।