ঢাকা , শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৫ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
লিসবনে আত্মপ্রকাশ হয় সামাজিক সংগঠন “গোলাপগঞ্জ কমিউনিটি কেয়ারর্স পর্তুগাল “ উচ্ছ্বাস আর আনন্দে বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখের উদযাপন করেছে পর্তুগাল যথাযথ গাম্ভীর্যের মধ্যে দিয়ে পরিবেশে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর পালন করেছে ভেনিস প্রবাসীরা ভেনিসে বৃহত্তর সিলেট সমিতির আয়োজনে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত এক অসুস্থ প্রজন্ম কে সাথি করে এগুচ্ছি আমরা রিডানডেন্ট ক্লোথিং আর মজুর মামার ‘বিশ্বকাপ’ ইউরোপের সবচেয়ে বড় ঈদুল ফিতরের নামাজ পর্তুগালে অনুষ্ঠিত হয় বর্ণাঢ্য আয়োজনে পর্তুগাল বাংলা প্রেসক্লাবের ইফতার ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন ঈদের কাপড় কিনার জন্য মা’য়ের উপর অভিমান করে মেয়ের আত্মহত্যা লিসবনে বন্ধু মহলের আয়োজনে বিশাল ইফতার ও দোয়া মাহফিল

জালাল আহমদ চৌধুরীকে নিয়ে জাতিসংঘ মিশনের ডকুমেন্টারি

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ
  • আপডেটের সময় : ০৯:৫৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৭ জুলাই ২০১৯
  • / ১১৮৩ টাইম ভিউ

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ জালাল আহমদ চৌধুরীকে নিয়ে জাতিসংঘ মিশনের ডকুমেন্টারি সারা বিশ্বেই বাংলাদেশিদের জয়জয়কার চলছে। এরই ধারাবাহিকতায় যুক্ত হয়েছে পুলিশ সুপার জালাল উদ্দিন আহমদ চৌধুরীর বিরল সাফল্য। জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে সফলভাবে দায়িত্ব পালন করায় এমন সম্মানে ভূষিত হলেন জালাল উদ্দীন আহমেদ চৌধুরী। জাতিসংঘ পুলিশের ‘ইউনামিড’ মিশনে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ এই পুলিশ কর্মকর্তাকে নিয়ে একটি বিশেষ ডকুমেন্টারি তৈরী করা হয়েছে। বাংলাদেশ পুলিশের কোনো কর্মকর্তাকে নিয়ে এবারই প্রথম এমন সম্মাননামূলক ডকুমেন্টারি তৈরী করেছে জাতিসংঘ মিশন। জাতিসংঘ পুলিশের ‘ইউনামিড’ মিশনে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ এই পুলিশ কর্মকর্তার ওপর চার মিনিট ২৮ সেকেন্ডের একটি ডকুমেন্টারি তৈরী করেছে। যা আপলোড করা হয়েছে জাতিসংঘ পুলিশের ফেসবুক পেইজে। ওই ডকুমেন্টারিতে জালাল আহমেদের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন ইউনামিড মিশনের পুলিশ চিফ অব স্টাফ মি. আমাডু মান্নাহ এবং ডেপুটি পুলিশ কমিশনার মি. ইয়ামেনী আসনেসা। বাংলাদেশ পুলিশের কোনো কর্মকর্তাকে নিয়ে এমন ডকুমেন্টারি তৈরি করায় উচ্ছ্বসিত বাংলাদেশ পুলিশ সদর দফতরের কর্মকর্তারা। এ ব্যাপারে পুলিশ সদর দফতরের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, সত্যিই এটা বাংলাদেশ পুলিশের জন্য অনেক সম্মানের বিষয়। জালাল তার মেধা এবং যোগ্যতা দিয়ে বাংলাদেশ পুলিশকে প্রতিনিধিত্ব করেছে। তার এমন অর্জনে পুলিশের জুনিয়র কর্মকর্তারা অনুপ্রাণিত হবেন। পুলিশ সদর দফতর সূত্রে জানা গেছে, জাতিসংঘ মিশনে বাংলাদেশি পুলিশ সদস্যরা বরাবরই সফলভাবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। বিভিন্ন সময় জাতিসংঘ সদর দফতর থেকে এ সংক্রান্তে প্রশংসা কুড়িয়েছেন। যা অন্য অনেক দেশের পুলিশ সদস্যদের কাছে ঈর্ষার কারণ। তবে এর মধ্যেও জালাল উদ্দীন আহমেদকে তারা অফিশিয়ালি স্বীকৃতি দেওয়া একটা বড় বিষয়। সর্বশেষ ‘আইপিও’ ওহফরারফঁধষ চড়ষরপব ঙভভরপব অফিসার হিসেবে সুদানের ‘ইউনামিড মিশন দারফুর’-এ পলিসি লেভেলে দায়িত্ব পালন করার সময় দারফুরের ‘নায়ালায়’ দায়িত্বরত ১৪৩ জনের ইউনিটকে এলফিসারে দায়িত্ব পালনের সুযোগ করে দেওয়ার ক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা পালন করেন। হিসাব অনুযায়ী, চলতি বছরের অক্টোবরে নায়াল মিশন শেষ হয়ে গেলে ওই ইউনিটকে দেশে ফিরে আসার কথা ছিল। তবে এই ইউনিটটি অক্টোবরের পর থেকে এলফিসারে দায়িত্ব পালন করবে। জানা গেছে, বিসিএস-২০তম ব্যাচের কর্মকর্তা জালাল উদ্দীন আহমেদ চৌধুরী ২০১৫ সালের ফেব্রুয়ারিতে ‘আইপিও’ হিসেবে ‘ইউনামিড মিশন দারফুর মিশনে যোগ দেন। সেখানে তিনি স্ট্র্যাটেজি, বাজেট ও কো-অর্ডিনেশন ইউনিটে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৬ সালের অক্টোবরে প্ল্যানিং অফিসার (পি-৪) হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। নিজ দায়িত্বের পাশাপাশি বিভিন্ন সময় তিনি ভারপ্রাপ্ত পুলিশ চিফ অব স্টাফ, পুলিশ চিফ অব অপারেশন্স, এফপিইউ কো-অর্ডিনেটর এবং ম্যানেজমেন্ট ওভারসাইট অফিসার/লিগ্যাল অফিসার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। জাতিসংঘের মিশনে উনার কৃতিত্বে সাপ্তাহিক সীমান্তের ডাকের সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি সেলিনা চৌধুরী, সম্পাদক সঞ্জয় দেবনাথ , প্রকাশক মিসবাউর রহমান এনাম, পরিচালনা পর্ষদ সদস্য সামছুল আরিফিন চৌধুরীসহ পত্রিকায় কর্মরত সকল সাংবাদিকবৃন্দ পত্রিকার পক্ষ থেকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। উল্লেখ্য, জালাল উদ্দিন আহমদ চৌধুরী কুলাউড়ার কৃতি সন্তান।

পোস্ট শেয়ার করুন

জালাল আহমদ চৌধুরীকে নিয়ে জাতিসংঘ মিশনের ডকুমেন্টারি

আপডেটের সময় : ০৯:৫৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৭ জুলাই ২০১৯

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ জালাল আহমদ চৌধুরীকে নিয়ে জাতিসংঘ মিশনের ডকুমেন্টারি সারা বিশ্বেই বাংলাদেশিদের জয়জয়কার চলছে। এরই ধারাবাহিকতায় যুক্ত হয়েছে পুলিশ সুপার জালাল উদ্দিন আহমদ চৌধুরীর বিরল সাফল্য। জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে সফলভাবে দায়িত্ব পালন করায় এমন সম্মানে ভূষিত হলেন জালাল উদ্দীন আহমেদ চৌধুরী। জাতিসংঘ পুলিশের ‘ইউনামিড’ মিশনে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ এই পুলিশ কর্মকর্তাকে নিয়ে একটি বিশেষ ডকুমেন্টারি তৈরী করা হয়েছে। বাংলাদেশ পুলিশের কোনো কর্মকর্তাকে নিয়ে এবারই প্রথম এমন সম্মাননামূলক ডকুমেন্টারি তৈরী করেছে জাতিসংঘ মিশন। জাতিসংঘ পুলিশের ‘ইউনামিড’ মিশনে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ এই পুলিশ কর্মকর্তার ওপর চার মিনিট ২৮ সেকেন্ডের একটি ডকুমেন্টারি তৈরী করেছে। যা আপলোড করা হয়েছে জাতিসংঘ পুলিশের ফেসবুক পেইজে। ওই ডকুমেন্টারিতে জালাল আহমেদের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন ইউনামিড মিশনের পুলিশ চিফ অব স্টাফ মি. আমাডু মান্নাহ এবং ডেপুটি পুলিশ কমিশনার মি. ইয়ামেনী আসনেসা। বাংলাদেশ পুলিশের কোনো কর্মকর্তাকে নিয়ে এমন ডকুমেন্টারি তৈরি করায় উচ্ছ্বসিত বাংলাদেশ পুলিশ সদর দফতরের কর্মকর্তারা। এ ব্যাপারে পুলিশ সদর দফতরের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, সত্যিই এটা বাংলাদেশ পুলিশের জন্য অনেক সম্মানের বিষয়। জালাল তার মেধা এবং যোগ্যতা দিয়ে বাংলাদেশ পুলিশকে প্রতিনিধিত্ব করেছে। তার এমন অর্জনে পুলিশের জুনিয়র কর্মকর্তারা অনুপ্রাণিত হবেন। পুলিশ সদর দফতর সূত্রে জানা গেছে, জাতিসংঘ মিশনে বাংলাদেশি পুলিশ সদস্যরা বরাবরই সফলভাবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। বিভিন্ন সময় জাতিসংঘ সদর দফতর থেকে এ সংক্রান্তে প্রশংসা কুড়িয়েছেন। যা অন্য অনেক দেশের পুলিশ সদস্যদের কাছে ঈর্ষার কারণ। তবে এর মধ্যেও জালাল উদ্দীন আহমেদকে তারা অফিশিয়ালি স্বীকৃতি দেওয়া একটা বড় বিষয়। সর্বশেষ ‘আইপিও’ ওহফরারফঁধষ চড়ষরপব ঙভভরপব অফিসার হিসেবে সুদানের ‘ইউনামিড মিশন দারফুর’-এ পলিসি লেভেলে দায়িত্ব পালন করার সময় দারফুরের ‘নায়ালায়’ দায়িত্বরত ১৪৩ জনের ইউনিটকে এলফিসারে দায়িত্ব পালনের সুযোগ করে দেওয়ার ক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা পালন করেন। হিসাব অনুযায়ী, চলতি বছরের অক্টোবরে নায়াল মিশন শেষ হয়ে গেলে ওই ইউনিটকে দেশে ফিরে আসার কথা ছিল। তবে এই ইউনিটটি অক্টোবরের পর থেকে এলফিসারে দায়িত্ব পালন করবে। জানা গেছে, বিসিএস-২০তম ব্যাচের কর্মকর্তা জালাল উদ্দীন আহমেদ চৌধুরী ২০১৫ সালের ফেব্রুয়ারিতে ‘আইপিও’ হিসেবে ‘ইউনামিড মিশন দারফুর মিশনে যোগ দেন। সেখানে তিনি স্ট্র্যাটেজি, বাজেট ও কো-অর্ডিনেশন ইউনিটে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৬ সালের অক্টোবরে প্ল্যানিং অফিসার (পি-৪) হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। নিজ দায়িত্বের পাশাপাশি বিভিন্ন সময় তিনি ভারপ্রাপ্ত পুলিশ চিফ অব স্টাফ, পুলিশ চিফ অব অপারেশন্স, এফপিইউ কো-অর্ডিনেটর এবং ম্যানেজমেন্ট ওভারসাইট অফিসার/লিগ্যাল অফিসার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। জাতিসংঘের মিশনে উনার কৃতিত্বে সাপ্তাহিক সীমান্তের ডাকের সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি সেলিনা চৌধুরী, সম্পাদক সঞ্জয় দেবনাথ , প্রকাশক মিসবাউর রহমান এনাম, পরিচালনা পর্ষদ সদস্য সামছুল আরিফিন চৌধুরীসহ পত্রিকায় কর্মরত সকল সাংবাদিকবৃন্দ পত্রিকার পক্ষ থেকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। উল্লেখ্য, জালাল উদ্দিন আহমদ চৌধুরী কুলাউড়ার কৃতি সন্তান।