ঢাকা , শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
লিসবনে আত্মপ্রকাশ হয় সামাজিক সংগঠন “গোলাপগঞ্জ কমিউনিটি কেয়ারর্স পর্তুগাল “ উচ্ছ্বাস আর আনন্দে বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখের উদযাপন করেছে পর্তুগাল যথাযথ গাম্ভীর্যের মধ্যে দিয়ে পরিবেশে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর পালন করেছে ভেনিস প্রবাসীরা ভেনিসে বৃহত্তর সিলেট সমিতির আয়োজনে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত এক অসুস্থ প্রজন্ম কে সাথি করে এগুচ্ছি আমরা রিডানডেন্ট ক্লোথিং আর মজুর মামার ‘বিশ্বকাপ’ ইউরোপের সবচেয়ে বড় ঈদুল ফিতরের নামাজ পর্তুগালে অনুষ্ঠিত হয় বর্ণাঢ্য আয়োজনে পর্তুগাল বাংলা প্রেসক্লাবের ইফতার ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন ঈদের কাপড় কিনার জন্য মা’য়ের উপর অভিমান করে মেয়ের আত্মহত্যা লিসবনে বন্ধু মহলের আয়োজনে বিশাল ইফতার ও দোয়া মাহফিল

ঘুমন্ত কিশোরের কানে কামড় দিল সাপ, অতঃপর.

দেশদিগন্ত ডেস্ক
  • আপডেটের সময় : ০৩:১৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ১০ জুন ২০২০
  • / ৬৪৮ টাইম ভিউ

দেশদিগন্ত :নওগাঁর পত্নীতলায় বিষাক্ত সাপের দংশনে আব্দুল জলিল (১৫) নামে এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার (৯জুন) রাত আড়াইটার দিকে ওই কিশোর মারা যায়। এর আগে রাত সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার আমবাটি গ্রামে সাপের দংশনের ঘটনা ঘটে। আব্দুল জলিল গ্রামের নইম উদ্দিনের ছেলে।

নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, আব্দুল জলিল ঘরের ভেতর চৌকিতে এবং তার বাবা-মা মেঝেতে শুয়ে ছিল। রাত সাড়ে ১০টার দিকে জানালা দিয়ে সাপ প্রবেশ করে আব্দুল জলিলের কানে কামড় দিয়ে থাকে। বিষাক্ত সাপের দংশনে যন্ত্রণায় কানে হাত দিয়ে সাপ ধরে চিৎকার দেয় আব্দুল জলিল। পরে তার চিৎকারে বাবা ঘুম থেকে উঠে সাপটি মেরে ফেলেন।

স্থানীয় পাটিচাড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রায়হানুল আলম বলেন, ছেলেটি ঘুমের মধ্যে সাপটি ধরে। পরে বাবা-ছেলে মিলে সাপটিকে মেরে ফেলে। শুনেছি স্থানীয়ভাবে ওঝা-কবিরাজ দিয়ে ঝাঁড়-ফুক করা হয়েছিল। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার পথেই মারা যায়।

পত্নীতলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পরিমল চক্রবর্তী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

পোস্ট শেয়ার করুন

ঘুমন্ত কিশোরের কানে কামড় দিল সাপ, অতঃপর.

আপডেটের সময় : ০৩:১৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ১০ জুন ২০২০

দেশদিগন্ত :নওগাঁর পত্নীতলায় বিষাক্ত সাপের দংশনে আব্দুল জলিল (১৫) নামে এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার (৯জুন) রাত আড়াইটার দিকে ওই কিশোর মারা যায়। এর আগে রাত সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার আমবাটি গ্রামে সাপের দংশনের ঘটনা ঘটে। আব্দুল জলিল গ্রামের নইম উদ্দিনের ছেলে।

নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, আব্দুল জলিল ঘরের ভেতর চৌকিতে এবং তার বাবা-মা মেঝেতে শুয়ে ছিল। রাত সাড়ে ১০টার দিকে জানালা দিয়ে সাপ প্রবেশ করে আব্দুল জলিলের কানে কামড় দিয়ে থাকে। বিষাক্ত সাপের দংশনে যন্ত্রণায় কানে হাত দিয়ে সাপ ধরে চিৎকার দেয় আব্দুল জলিল। পরে তার চিৎকারে বাবা ঘুম থেকে উঠে সাপটি মেরে ফেলেন।

স্থানীয় পাটিচাড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রায়হানুল আলম বলেন, ছেলেটি ঘুমের মধ্যে সাপটি ধরে। পরে বাবা-ছেলে মিলে সাপটিকে মেরে ফেলে। শুনেছি স্থানীয়ভাবে ওঝা-কবিরাজ দিয়ে ঝাঁড়-ফুক করা হয়েছিল। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার পথেই মারা যায়।

পত্নীতলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পরিমল চক্রবর্তী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।