ঢাকা , রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
লিসবনে আত্মপ্রকাশ হয় সামাজিক সংগঠন “গোলাপগঞ্জ কমিউনিটি কেয়ারর্স পর্তুগাল “ উচ্ছ্বাস আর আনন্দে বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখের উদযাপন করেছে পর্তুগাল যথাযথ গাম্ভীর্যের মধ্যে দিয়ে পরিবেশে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর পালন করেছে ভেনিস প্রবাসীরা ভেনিসে বৃহত্তর সিলেট সমিতির আয়োজনে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত এক অসুস্থ প্রজন্ম কে সাথি করে এগুচ্ছি আমরা রিডানডেন্ট ক্লোথিং আর মজুর মামার ‘বিশ্বকাপ’ ইউরোপের সবচেয়ে বড় ঈদুল ফিতরের নামাজ পর্তুগালে অনুষ্ঠিত হয় বর্ণাঢ্য আয়োজনে পর্তুগাল বাংলা প্রেসক্লাবের ইফতার ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন ঈদের কাপড় কিনার জন্য মা’য়ের উপর অভিমান করে মেয়ের আত্মহত্যা লিসবনে বন্ধু মহলের আয়োজনে বিশাল ইফতার ও দোয়া মাহফিল

খালেদা জিয়াকে রেজা কিবরিয়ার ‘স্যালুট’

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ
  • আপডেটের সময় : ০২:২৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ২ সেপ্টেম্বর ২০১৯
  • / ২২৮ টাইম ভিউ

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া সম্পর্কে গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক ড. রেজা কিবরিয়া বলেছেন, শারীরিক সব অসুবিধাকে অতিক্রম করে খালেদা জিয়া মনোবল দিয়ে কিভাবে এখনো অন্যায়ের বিরুদ্ধে লড়াই করছেন, তা ভেবে আমি আপ্লুত। আমি উনাকে স্যালুট করি।

রোববার (১ সেপ্টেম্বর) বিকালে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে ‘দলের ২১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে’ বিএনপির উদ্যোগে এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

গণফোরাম সাধারণ সম্পাদক রেজা কিবরিয়া বলেন, আমি বলতে চাই, সাহসের দিক থেকে জিয়াউর রহমান সাথে তুলনা করার লোক কম আছে। কিন্তু আমি বলবো, উনার স্ত্রীর (বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া) সাহস আমাকে ইমপ্রেস করেছে এবং সারাদেশের মানুষকে অনুপ্রেরণা দিয়েছেন। জাস্ট সাহসের। আর শারীরিক সব কিছুকে অতিক্রম করে উনি মনোবল দিয়ে কিভাবে এখনো অন্যায়ের বিরুদ্ধে লড়াই করছেন। আমি উনাকে সেলুট করি।

বিএনপির নেতাদের উদ্দেশ করে তিনি বলেন, উনার নিঃশর্ত মুক্তির দাবি আপনাদের-বিএনপির। আর এটা জাতীয় ঐক্যফ্রন্টেরও দাবি। আমরা গণফোরামও বলেছি। কিন্তু আমি দেখেছি, এটা বাংলাদেশের জনগণের দাবি।

রেজা কিবরিয়া বলেন, একজন বীর উত্তমকে (জিয়াউর রহমান) সম্মান না করে এদেশটা কিভাবে চলবে? আমি বুঝতে পারছি না। শহীদ জেনারেল জিয়াউর রহমান একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা। আর আমাদের দেশের বীর মুক্তিযোদ্ধা যদি ধরা হয়, উনি তো প্রথম সারিতে থাকবেনই। কিন্তু রাজনৈতিক কারণে উনাকে হেয় করার জন্য কিছু কথা বলা হয়। যারা কথা বলেন, আগে তাদের নিজেদের দিকে তাকিয়ে দেখা উচিত। তারা দেশের জন্য কি করেছেন এবং স্বাধীনতা যুদ্ধে তাদের কি ভূমিকা ছিল এবং শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানে কি ভূমিকা ছিল- এটা তাদের চিন্তা করা উচিত।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের বিষয়ে তিনি বলেন, টকশোতে দেখি, ঐক্য নাই- এই ঐক্য দিয়ে কি হবে? কিন্তু আপনারা এগুলো নিয়ে ঘাবরাবেন না। সময় মতো আপনারা দেখবেন, যারা ঐক্য নিয়ে জল্পনা-কল্পনা করছেন- তারা একটা জবাব পাবে।

সভায় বিএনপির নেতাদের উদ্দেশ করে জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব বলেন, ঐক্য গড়ে তুলতে হবে। জাতীয় বৃহত্তর ঐক্যের মাধ্যমে রাজপথে নামতে হবে এবং বেগম জিয়াকে মুক্ত করতে হবে। কারণ ব্যানার ও পোস্টার লাগিয়ে বেগম জিয়াকে মুক্ত করতে পারবেন না।

তিনি বলেন, বিএনপির শাসন আমলে যদি তারা কোন ভুল করে থাকে, এজন্য তাদেরকে জনগণের কাছে তার দায় স্বীকার করতে হবে। আর আমরা বিরোধী দলগুলো যদি কোনো ভুল করে থাকি তাহলে সেজন্য জনগণের কাছে আমাদের সেই ভুল স্বীকার করতে হবে।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্যে রাখেন বিএনপি নেতা ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, ড. মঈন খান, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, হাবিব-উন-নবী খান সোহেল প্রমুখ, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতা আ স ম আবদুর রব, রেজা কিবরিয়া, অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী প্রমুখ, বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট নেতা রেদোয়ান আহমেদ, মাওলানা নূর হোসেন কাসামী, সাইফুদ্দিন মনি, খন্দকারর লুৎফর রহমানন প্রমুখ।

পোস্ট শেয়ার করুন

খালেদা জিয়াকে রেজা কিবরিয়ার ‘স্যালুট’

আপডেটের সময় : ০২:২৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ২ সেপ্টেম্বর ২০১৯

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া সম্পর্কে গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক ড. রেজা কিবরিয়া বলেছেন, শারীরিক সব অসুবিধাকে অতিক্রম করে খালেদা জিয়া মনোবল দিয়ে কিভাবে এখনো অন্যায়ের বিরুদ্ধে লড়াই করছেন, তা ভেবে আমি আপ্লুত। আমি উনাকে স্যালুট করি।

রোববার (১ সেপ্টেম্বর) বিকালে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে ‘দলের ২১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে’ বিএনপির উদ্যোগে এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

গণফোরাম সাধারণ সম্পাদক রেজা কিবরিয়া বলেন, আমি বলতে চাই, সাহসের দিক থেকে জিয়াউর রহমান সাথে তুলনা করার লোক কম আছে। কিন্তু আমি বলবো, উনার স্ত্রীর (বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া) সাহস আমাকে ইমপ্রেস করেছে এবং সারাদেশের মানুষকে অনুপ্রেরণা দিয়েছেন। জাস্ট সাহসের। আর শারীরিক সব কিছুকে অতিক্রম করে উনি মনোবল দিয়ে কিভাবে এখনো অন্যায়ের বিরুদ্ধে লড়াই করছেন। আমি উনাকে সেলুট করি।

বিএনপির নেতাদের উদ্দেশ করে তিনি বলেন, উনার নিঃশর্ত মুক্তির দাবি আপনাদের-বিএনপির। আর এটা জাতীয় ঐক্যফ্রন্টেরও দাবি। আমরা গণফোরামও বলেছি। কিন্তু আমি দেখেছি, এটা বাংলাদেশের জনগণের দাবি।

রেজা কিবরিয়া বলেন, একজন বীর উত্তমকে (জিয়াউর রহমান) সম্মান না করে এদেশটা কিভাবে চলবে? আমি বুঝতে পারছি না। শহীদ জেনারেল জিয়াউর রহমান একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা। আর আমাদের দেশের বীর মুক্তিযোদ্ধা যদি ধরা হয়, উনি তো প্রথম সারিতে থাকবেনই। কিন্তু রাজনৈতিক কারণে উনাকে হেয় করার জন্য কিছু কথা বলা হয়। যারা কথা বলেন, আগে তাদের নিজেদের দিকে তাকিয়ে দেখা উচিত। তারা দেশের জন্য কি করেছেন এবং স্বাধীনতা যুদ্ধে তাদের কি ভূমিকা ছিল এবং শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানে কি ভূমিকা ছিল- এটা তাদের চিন্তা করা উচিত।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের বিষয়ে তিনি বলেন, টকশোতে দেখি, ঐক্য নাই- এই ঐক্য দিয়ে কি হবে? কিন্তু আপনারা এগুলো নিয়ে ঘাবরাবেন না। সময় মতো আপনারা দেখবেন, যারা ঐক্য নিয়ে জল্পনা-কল্পনা করছেন- তারা একটা জবাব পাবে।

সভায় বিএনপির নেতাদের উদ্দেশ করে জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব বলেন, ঐক্য গড়ে তুলতে হবে। জাতীয় বৃহত্তর ঐক্যের মাধ্যমে রাজপথে নামতে হবে এবং বেগম জিয়াকে মুক্ত করতে হবে। কারণ ব্যানার ও পোস্টার লাগিয়ে বেগম জিয়াকে মুক্ত করতে পারবেন না।

তিনি বলেন, বিএনপির শাসন আমলে যদি তারা কোন ভুল করে থাকে, এজন্য তাদেরকে জনগণের কাছে তার দায় স্বীকার করতে হবে। আর আমরা বিরোধী দলগুলো যদি কোনো ভুল করে থাকি তাহলে সেজন্য জনগণের কাছে আমাদের সেই ভুল স্বীকার করতে হবে।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্যে রাখেন বিএনপি নেতা ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, ড. মঈন খান, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, হাবিব-উন-নবী খান সোহেল প্রমুখ, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতা আ স ম আবদুর রব, রেজা কিবরিয়া, অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী প্রমুখ, বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট নেতা রেদোয়ান আহমেদ, মাওলানা নূর হোসেন কাসামী, সাইফুদ্দিন মনি, খন্দকারর লুৎফর রহমানন প্রমুখ।