ঢাকা , মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
পুনাক এর উদ্যোগে দুস্হ ও অসহায় নারীদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরন করা হয়েছে কুলাউড়ার টিলাগাঁও এ সরকারি গাছ বিক্রি করলেন প্রধান শিক্ষক লটারি বাইক জিতলো মা’ সে কারণে কপাল পুড়লো মেয়ের ফজরের নামাজে যাওয়ার সময় রাস্তায় কুকুর দলের আক্রমনে প্রান গেলো ইজাজুলের সাবেক সাংসদ সেলিমা আহমাদ মেরীর সাথে পর্তুগাল আওয়ামিলীগের মতবিনিময় সভা কুলাউড়ার হাজীপুরে বৃদ্ধকে পিটিয়ে হত্যার ১২ ঘন্টার মধ্যেই দুজন গ্রেফতার কুলাউড়ার হাজীপুর ইউনিয়নে প্রতিপক্ষের হামলায়  আছকির মিয়া (৫০)নিহত  হয়েছেন। বর্ণাঢ্য আয়োজনে পর্তুগাল বিএনপির আহবায়ক কমিটির অভিষেক ও পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত। সিলেট বিভাগের শ্রেষ্ঠ মাদ্রাসা প্রধান নির্বাচিত হলেন অধ্যক্ষ মাওলানা বশির আহমদ মুসলিম কমিউনিটি মৌলভীবাজার এর কমিটি গঠন

খালাফ হত্যা: হাইকোর্টের রায় বহাল

দেশদিগন্ত :
  • আপডেটের সময় : ০২:০৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১ নভেম্বর ২০১৭
  • / ৮২৩ টাইম ভিউ

সৌদি দূতাবাসের কর্মকর্তা খালাফ আল আলী হত্যা মামলায় হাইকোর্টের রায় আপিলেও বহাল রয়েছে।

রায়ে সাইফুল ইসলাম মামুনের মৃত্যুদণ্ড এবং তিন জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড বহাল রেখেছেন আদালত।

বুধবার সকালে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি আবদুল ওয়াহহাব মিঞার নেতৃত্বে তিন সদস্যের আপিল বেঞ্চ এ রায় দেন।

এর আগে গত ২০ আগস্ট শুনানি শেষে রায়ের ১০ অক্টোবর দিন ধার্য  করেছিলেন আদালত। তবে রায় প্রস্তুত না হওয়ায় ওই দিন নতুন করে ১৭ অক্টোবর দিন নির্ধারণ করেন আদালত। এ পর্যায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি সাইফুল ইসলামের পক্ষে শুনানির জন্য একটি আবেদন দায়ের করা হয়। ওই আবেদন আমলে নিয়ে আপিল বিভাগ রায় ঘোষণা না করে ৩১ অক্টোবর পুনঃশুনানির দিন ধার্য করেন। পুনঃশুনানি শেষে আজ রায় দেন আপিল বিভাগ।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১২ সালের ৫ মার্চ রাত ১টায় রাজধানীর গুলশানের কূটনীতিক এলাকায় নিজ বাসার অদূরে গুলিবিদ্ধ হন খালাফ আল আলী। ৬ মার্চ ভোরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় তার। এ ঘটনায় ৭ মার্চ গুলশান থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মোশারফ হোসেন হত্যা মামলা করেন। ওই মামলায় একই বছরের ৩০ ডিসেম্বর রায় দেন ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-৪। রায়ে মামলার পাঁচ আসামিকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়। এদের মধ্যে সেলিম চৌধুরী মামলার শুরু থেকেই পলাতক ছিলেন। সাজাপ্রাপ্ত চার আসামি ওই বছরই রায়ের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপিল করেন। ২০১৩ সালের ১৮ নভেম্বর আপিলের বিষয়ে রায় দেন হাইকোর্ট। রায়ে সাইফুল ইসলামের মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখা হয়। এ ছাড়া আসামি মো. আল আমীন, আকবর আলী লালু ও রফিকুল ইসলামের সাজা কমিয়ে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়। পলাতক সেলিম  চৌধুরী খালাস পান। ওই রায়ের বিরুদ্ধে ২০১৪ সালে আপিল করে রাষ্ট্রপক্ষ।

পোস্ট শেয়ার করুন

খালাফ হত্যা: হাইকোর্টের রায় বহাল

আপডেটের সময় : ০২:০৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১ নভেম্বর ২০১৭

সৌদি দূতাবাসের কর্মকর্তা খালাফ আল আলী হত্যা মামলায় হাইকোর্টের রায় আপিলেও বহাল রয়েছে।

রায়ে সাইফুল ইসলাম মামুনের মৃত্যুদণ্ড এবং তিন জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড বহাল রেখেছেন আদালত।

বুধবার সকালে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি আবদুল ওয়াহহাব মিঞার নেতৃত্বে তিন সদস্যের আপিল বেঞ্চ এ রায় দেন।

এর আগে গত ২০ আগস্ট শুনানি শেষে রায়ের ১০ অক্টোবর দিন ধার্য  করেছিলেন আদালত। তবে রায় প্রস্তুত না হওয়ায় ওই দিন নতুন করে ১৭ অক্টোবর দিন নির্ধারণ করেন আদালত। এ পর্যায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি সাইফুল ইসলামের পক্ষে শুনানির জন্য একটি আবেদন দায়ের করা হয়। ওই আবেদন আমলে নিয়ে আপিল বিভাগ রায় ঘোষণা না করে ৩১ অক্টোবর পুনঃশুনানির দিন ধার্য করেন। পুনঃশুনানি শেষে আজ রায় দেন আপিল বিভাগ।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১২ সালের ৫ মার্চ রাত ১টায় রাজধানীর গুলশানের কূটনীতিক এলাকায় নিজ বাসার অদূরে গুলিবিদ্ধ হন খালাফ আল আলী। ৬ মার্চ ভোরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় তার। এ ঘটনায় ৭ মার্চ গুলশান থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মোশারফ হোসেন হত্যা মামলা করেন। ওই মামলায় একই বছরের ৩০ ডিসেম্বর রায় দেন ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-৪। রায়ে মামলার পাঁচ আসামিকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়। এদের মধ্যে সেলিম চৌধুরী মামলার শুরু থেকেই পলাতক ছিলেন। সাজাপ্রাপ্ত চার আসামি ওই বছরই রায়ের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপিল করেন। ২০১৩ সালের ১৮ নভেম্বর আপিলের বিষয়ে রায় দেন হাইকোর্ট। রায়ে সাইফুল ইসলামের মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখা হয়। এ ছাড়া আসামি মো. আল আমীন, আকবর আলী লালু ও রফিকুল ইসলামের সাজা কমিয়ে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়। পলাতক সেলিম  চৌধুরী খালাস পান। ওই রায়ের বিরুদ্ধে ২০১৪ সালে আপিল করে রাষ্ট্রপক্ষ।