ঢাকা , বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
উচ্ছ্বাস আর আনন্দে বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখের উদযাপন করেছে পর্তুগাল যথাযথ গাম্ভীর্যের মধ্যে দিয়ে পরিবেশে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর পালন করেছে ভেনিস প্রবাসীরা ভেনিসে বৃহত্তর সিলেট সমিতির আয়োজনে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত এক অসুস্থ প্রজন্ম কে সাথি করে এগুচ্ছি আমরা রিডানডেন্ট ক্লোথিং আর মজুর মামার ‘বিশ্বকাপ’ ইউরোপের সবচেয়ে বড় ঈদুল ফিতরের নামাজ পর্তুগালে অনুষ্ঠিত হয় বর্ণাঢ্য আয়োজনে পর্তুগাল বাংলা প্রেসক্লাবের ইফতার ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন ঈদের কাপড় কিনার জন্য মা’য়ের উপর অভিমান করে মেয়ের আত্মহত্যা লিসবনে বন্ধু মহলের আয়োজনে বিশাল ইফতার ও দোয়া মাহফিল মান অভিমান ভুলে সবাই একই প্লাটফর্মে,সংবাদ সম্মেলনে পর্তুগাল বিএনপির নবগঠিত আহবায়ক কমিটি

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শহীদুল হক মামাকে শেষ শ্রদ্ধা

অনলাইন ডেস্ক :
  • আপডেটের সময় : ০৬:৪৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ জুলাই ২০১৭
  • / ১১৭৩ টাইম ভিউ

মহান মুক্তিযুদ্ধের গেরিলা কমান্ডার, সুইডেনপ্রবাসী শহীদুল হক মামাকে শেষ শ্রদ্ধা জানিয়েছেন সবস্তরের মানুষ।আজ (মঙ্গলবার) বেলা পৌনে ১১টার দিকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে প্রথমে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় তাকে ‘গার্ড অব অনার’প্রদান করা হয়। পরে তার মরদেহে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আছাদুজ্জামান খাঁন কামাল, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিকসহ অনেক বিশিষ্টজন তার প্রতি শ্রদ্ধা জানান।সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট শ্রদ্ধা নিবেদনের আয়োজন করে। দুপুর  ১২টা পর্যন্ত শ্রদ্ধা নিবেদনপর্ব চলে।সাধারণ মানুষ ছাড়াও বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের পক্ষ থেকে এ মহান মুক্তিযোদ্ধাকে শ্রদ্ধা জানানো হয়।শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে শহীদুল হকের মরদেহ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদে তার জানাজা হয়। পরে বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে।গেলো ৩০ জুন কাতারের রাজধানী দোহায় একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান মুক্তিযোদ্ধা শহীদুল হক। তার বয়স হয়েছিল ৬৭ বছর। মামার মরদেহ মঙ্গলবার ভোরে কাতার এয়ারওয়েজের একটি বিমানে বাংলাদেশে পৌঁছায়। সেখান থেকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আনা হয়। তিনি স্ত্রী, এক ছেলে, এক মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।শহীদুল হক মামা মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল আবদুল কাদের মোল্লার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের সাক্ষী ছিলেন।

পোস্ট শেয়ার করুন

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শহীদুল হক মামাকে শেষ শ্রদ্ধা

আপডেটের সময় : ০৬:৪৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ জুলাই ২০১৭

মহান মুক্তিযুদ্ধের গেরিলা কমান্ডার, সুইডেনপ্রবাসী শহীদুল হক মামাকে শেষ শ্রদ্ধা জানিয়েছেন সবস্তরের মানুষ।আজ (মঙ্গলবার) বেলা পৌনে ১১টার দিকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে প্রথমে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় তাকে ‘গার্ড অব অনার’প্রদান করা হয়। পরে তার মরদেহে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আছাদুজ্জামান খাঁন কামাল, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিকসহ অনেক বিশিষ্টজন তার প্রতি শ্রদ্ধা জানান।সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট শ্রদ্ধা নিবেদনের আয়োজন করে। দুপুর  ১২টা পর্যন্ত শ্রদ্ধা নিবেদনপর্ব চলে।সাধারণ মানুষ ছাড়াও বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের পক্ষ থেকে এ মহান মুক্তিযোদ্ধাকে শ্রদ্ধা জানানো হয়।শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে শহীদুল হকের মরদেহ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদে তার জানাজা হয়। পরে বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে।গেলো ৩০ জুন কাতারের রাজধানী দোহায় একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান মুক্তিযোদ্ধা শহীদুল হক। তার বয়স হয়েছিল ৬৭ বছর। মামার মরদেহ মঙ্গলবার ভোরে কাতার এয়ারওয়েজের একটি বিমানে বাংলাদেশে পৌঁছায়। সেখান থেকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আনা হয়। তিনি স্ত্রী, এক ছেলে, এক মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।শহীদুল হক মামা মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল আবদুল কাদের মোল্লার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের সাক্ষী ছিলেন।