ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কুলাউড়ায় রবিরবাজার জামে মসজিদের দানবাক্স লুট, আটক-১

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ
  • আপডেটের সময় : ১০:১১ অপরাহ্ন, শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯
  • / ৭১০ টাইম ভিউ

বিশেষ প্রতিনিধি দেশদিগন্ত : কুলাউড়া উপজেলার গাজীপুর বাজারের একটি দোকান থেকে শুক্রবার ২০ সেপ্টেম্বর জুম্মার নামাযের সময় ৪ ছিনতাইকারী মসজিদের দানবাক্স লুট করে নিয়ে যায়। দানবাক্স নিয়ে পালিয়ে যাবার সময় গোগালীছড়া নদীর পাড়ে স্থানীয় লোকজন হোসেন মিয়া (২৫) নামক এক ছিনতাইকারীকে দানবাক্সসহ আটক করে। এঘটনায় কুলাউড়া থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।
পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন জানান, উপজেলার গাজীপুর বাজারে ফারুক আহমদের মুদির দোকানে রবিরবাজার জামে মসজিদের একটি কাঁচের দানবাক্স রাখা। স্থানীয় লোকজন সেই দানবাক্সে প্রচুর টাকা দান করেন। স্বচ্ছ কাঁচের বাক্সের সেই টাকা দেখে বাক্সটিকে টার্গেট করে চিহ্নিত ছিনতাইকারীরা। দোকান মালিক শুক্রবারে দোকানে তালা না দিয়ে শার্টার টেনে জুম্মার নামায আদায় করতে মসজিদে যান। সেই সুযোগে হোসেন মিয়ার নেতৃত্বে ৪ ছিনতাইকারী দানবাক্সটি নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় গোগালীছড়া নদীর পাড়ে স্থানীয় মানুষের সন্দেহ হলে ছিণতাইকারীদের ধাওয়া করে দানবাক্সসহ হোসেন মিয়াকে আটক করেন। আটক হোসেন মিয়ার অপর ৩ সহযোগি পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।
স্থানীয় লোকজন ছিনতাইকারী হোসেন মিয়াকে গণধোলাই দিয়ে গাজীপুর বাজারের দোকান মালিক ফারুক আহমদকে ও কুলাউড়া থানা পুলিশকে খবর দেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে দানবাক্সের থাকা ৬২ হাজার ১৩৮ টাকা উদ্ধার করে এবং ছিনতাই হাসেন মিয়াকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।
পুলিশ জানায়, আটক ছিনতাইকারী হোসেন মিয়া কুলাউড়ার চাঁতলগাঁও গ্রামের মিয়ার পুত্র। সে একজন চিহ্নিত সিএনজি অটোরিক্সা ছিনতাইকারী। পলাতক অপর ছিনতাইকারীরা হলো পৌরশহরের জগন্নাথপুর গ্রামের এলাই মিয়ার ছেলে শাওন মিয়া (২০), বড়কাপন গ্রামের মখলিছুর রহমানের ছেলে জুনেল (১৯) ও জয়চন্ডী ইউনিয়নের ঘাগটিয়া গ্রামের সুরুজ আলীর ছেলে আতিক মিয়া (৩০)।
কুলাউড়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সঞ্জয় চক্রবর্ত্তী জানান, শুক্রবার রাতে দোকান মালিক ফারুক আহমদ বাদি হয়ে ৪ জনকে আসামী করে কুলাউড়া থানায় মামলা দায়ের করেছেন। পলাতক ৩ ছিনতাইকারীকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে

পোস্ট শেয়ার করুন

কুলাউড়ায় রবিরবাজার জামে মসজিদের দানবাক্স লুট, আটক-১

আপডেটের সময় : ১০:১১ অপরাহ্ন, শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯

বিশেষ প্রতিনিধি দেশদিগন্ত : কুলাউড়া উপজেলার গাজীপুর বাজারের একটি দোকান থেকে শুক্রবার ২০ সেপ্টেম্বর জুম্মার নামাযের সময় ৪ ছিনতাইকারী মসজিদের দানবাক্স লুট করে নিয়ে যায়। দানবাক্স নিয়ে পালিয়ে যাবার সময় গোগালীছড়া নদীর পাড়ে স্থানীয় লোকজন হোসেন মিয়া (২৫) নামক এক ছিনতাইকারীকে দানবাক্সসহ আটক করে। এঘটনায় কুলাউড়া থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।
পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন জানান, উপজেলার গাজীপুর বাজারে ফারুক আহমদের মুদির দোকানে রবিরবাজার জামে মসজিদের একটি কাঁচের দানবাক্স রাখা। স্থানীয় লোকজন সেই দানবাক্সে প্রচুর টাকা দান করেন। স্বচ্ছ কাঁচের বাক্সের সেই টাকা দেখে বাক্সটিকে টার্গেট করে চিহ্নিত ছিনতাইকারীরা। দোকান মালিক শুক্রবারে দোকানে তালা না দিয়ে শার্টার টেনে জুম্মার নামায আদায় করতে মসজিদে যান। সেই সুযোগে হোসেন মিয়ার নেতৃত্বে ৪ ছিনতাইকারী দানবাক্সটি নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় গোগালীছড়া নদীর পাড়ে স্থানীয় মানুষের সন্দেহ হলে ছিণতাইকারীদের ধাওয়া করে দানবাক্সসহ হোসেন মিয়াকে আটক করেন। আটক হোসেন মিয়ার অপর ৩ সহযোগি পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।
স্থানীয় লোকজন ছিনতাইকারী হোসেন মিয়াকে গণধোলাই দিয়ে গাজীপুর বাজারের দোকান মালিক ফারুক আহমদকে ও কুলাউড়া থানা পুলিশকে খবর দেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে দানবাক্সের থাকা ৬২ হাজার ১৩৮ টাকা উদ্ধার করে এবং ছিনতাই হাসেন মিয়াকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।
পুলিশ জানায়, আটক ছিনতাইকারী হোসেন মিয়া কুলাউড়ার চাঁতলগাঁও গ্রামের মিয়ার পুত্র। সে একজন চিহ্নিত সিএনজি অটোরিক্সা ছিনতাইকারী। পলাতক অপর ছিনতাইকারীরা হলো পৌরশহরের জগন্নাথপুর গ্রামের এলাই মিয়ার ছেলে শাওন মিয়া (২০), বড়কাপন গ্রামের মখলিছুর রহমানের ছেলে জুনেল (১৯) ও জয়চন্ডী ইউনিয়নের ঘাগটিয়া গ্রামের সুরুজ আলীর ছেলে আতিক মিয়া (৩০)।
কুলাউড়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সঞ্জয় চক্রবর্ত্তী জানান, শুক্রবার রাতে দোকান মালিক ফারুক আহমদ বাদি হয়ে ৪ জনকে আসামী করে কুলাউড়া থানায় মামলা দায়ের করেছেন। পলাতক ৩ ছিনতাইকারীকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে