ঢাকা , বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে পূর্ব লন্ডনে বড়লেখার সোয়েব আহমেদের সমর্থনে মতবিনিময় সভা ইতালির ভেনিসে গ্রিন সিলেট ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন এর জরুরি সভা অনুষ্ঠিত ইতালির ভেনিসে এনটিভির ইউরোপের ডিরেক্টর সাবরিনা হোসাইন কে সংবর্ধনা দিয়েছে ইউরোপিয়ান বাংলা প্রেসক্লাব পর্তুগালে বেজা আওয়ামীলীগের কর্মি সভা পর্তুগাল এ ফ্রেন্ডশিপ ক্রিকেট ক্লাবের জার্সি উন্মোচন লিসবনে আত্মপ্রকাশ হয় সামাজিক সংগঠন “গোলাপগঞ্জ কমিউনিটি কেয়ারর্স পর্তুগাল “ উচ্ছ্বাস আর আনন্দে বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখের উদযাপন করেছে পর্তুগাল যথাযথ গাম্ভীর্যের মধ্যে দিয়ে পরিবেশে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর পালন করেছে ভেনিস প্রবাসীরা ভেনিসে বৃহত্তর সিলেট সমিতির আয়োজনে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত এক অসুস্থ প্রজন্ম কে সাথি করে এগুচ্ছি আমরা

কুলাউড়ায় মসজিদের আম পাড়া নিয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় নিহত -১

ছয়ফুল আলম সাইফুলঃ
  • আপডেটের সময় : ১০:২৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৯ মে ২০১৯
  • / ৯৬৭ টাইম ভিউ

ছয়ফুল আলম সাইফুলঃ মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলায় মসজিদের আম পাড়া নিয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় মন্তর মিয়ে (৭০) নামে এক বৃদ্ধ নিহত হয়েছেন। বুধবার ২৯ মে ইফতারের পূর্বে সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে উপজেলার জয়চনডি উনিয়নের গাজীপুর মাস্টারের দোকান নামক এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে।
নিহত মন্তর মিয়া একই এলাকার মৃত আহমদ আলীর ছেলে। এঘটনায় বুধবার রাত সাড়ে ৯টা পর্যন্ত নারী পুরুষসহ ৬জন আটক করা হয়েছে বলে জানায় পুলিশ।
স্থানীয়রা ও নিহত মন্তর মিয়ার ছেলে জাহেদ মিয়া জানান, বুধবার ইফতারের পূর্বে উপজেলার জয়চ-ী ইউনিয়নের গাজীপুর মাস্টারের দোকান এলাকার একটি মসজিদের আম গাছের আম পাড়ছিলেন কয়েকজন লোক। এসময় মন্তর মিয়া তাদের আম পাড়তে বাঁধা দেন। এ নিয়ে মন্তর মিয়া সাথে ওই এলাকার লাল মিয়া, রহমান কারী, পাবলু মিয়া, ছালূ মিয়া, ও সিপার মিয়াসহ তাদের বাড়ির মহিলাদের সাথে কথাকাটাকাটি শুরু হয়। এক পর্যায়ে রহমান কারী, পাবলু মিয়া, ছালূ মিয়া, ও সিপার মিয়াসহ তাদের লোকজন মন্তর মিয়াকে মাটিতে ফেলে লাথি ও কিলঘুষি মারতে থাকেন। এতে ঘটনাস্থলেই মন্তর মিয়া জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। পরে মন্তর মিয়ার ছেলে জাহেদ মিয়া ও স্থানীয় লোকজন তাঁকে উদ্ধার করে কুলাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা মন্তর মিয়াকে মৃত ঘোষণা করেন। এদিকে এঘটনার পর ওই এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ঘটনাস্থলে রয়েছে।
নিহতের ছেলে জাহেদ মিয়া বলেন, ‘আমি রাজমিস্ত্রীর কাজ করি। ঘটনার সময় কাজ থেকে এসে বাড়িতে ইফতারের প্রস্তুতি নিচ্ছ। এমন সময় আশেপাশের লোকজনের চিৎকার শুনে দৌঁড়ে এসে দেখি লাল মিয়া, রহমান কারী, পাবলু মিয়া, ছালূ মিয়া, ও সিপার মিয়াদের বেপরোয়া মারধরে আমার বাবা মাটিতে অচেতন পড়ে আছেন।
কুলাউড়া থানার ওসি তদন্ত সঞ্জয় চক্রবর্তী বলেন এ ঘটনায় লাল মিয়াসহ তিনজন পুরুষ ও তিনজন নারীকে আটক করা হয়েছে হয়েছে। বাকিদের ধরতে অভিযান চলছে।
কুলাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ ইয়ারদৌস হাসান বলেন, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মৌলভীবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হবে। হত্যাকান্ডের ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

পোস্ট শেয়ার করুন

কুলাউড়ায় মসজিদের আম পাড়া নিয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় নিহত -১

আপডেটের সময় : ১০:২৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৯ মে ২০১৯

ছয়ফুল আলম সাইফুলঃ মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলায় মসজিদের আম পাড়া নিয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় মন্তর মিয়ে (৭০) নামে এক বৃদ্ধ নিহত হয়েছেন। বুধবার ২৯ মে ইফতারের পূর্বে সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে উপজেলার জয়চনডি উনিয়নের গাজীপুর মাস্টারের দোকান নামক এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে।
নিহত মন্তর মিয়া একই এলাকার মৃত আহমদ আলীর ছেলে। এঘটনায় বুধবার রাত সাড়ে ৯টা পর্যন্ত নারী পুরুষসহ ৬জন আটক করা হয়েছে বলে জানায় পুলিশ।
স্থানীয়রা ও নিহত মন্তর মিয়ার ছেলে জাহেদ মিয়া জানান, বুধবার ইফতারের পূর্বে উপজেলার জয়চ-ী ইউনিয়নের গাজীপুর মাস্টারের দোকান এলাকার একটি মসজিদের আম গাছের আম পাড়ছিলেন কয়েকজন লোক। এসময় মন্তর মিয়া তাদের আম পাড়তে বাঁধা দেন। এ নিয়ে মন্তর মিয়া সাথে ওই এলাকার লাল মিয়া, রহমান কারী, পাবলু মিয়া, ছালূ মিয়া, ও সিপার মিয়াসহ তাদের বাড়ির মহিলাদের সাথে কথাকাটাকাটি শুরু হয়। এক পর্যায়ে রহমান কারী, পাবলু মিয়া, ছালূ মিয়া, ও সিপার মিয়াসহ তাদের লোকজন মন্তর মিয়াকে মাটিতে ফেলে লাথি ও কিলঘুষি মারতে থাকেন। এতে ঘটনাস্থলেই মন্তর মিয়া জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। পরে মন্তর মিয়ার ছেলে জাহেদ মিয়া ও স্থানীয় লোকজন তাঁকে উদ্ধার করে কুলাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা মন্তর মিয়াকে মৃত ঘোষণা করেন। এদিকে এঘটনার পর ওই এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ঘটনাস্থলে রয়েছে।
নিহতের ছেলে জাহেদ মিয়া বলেন, ‘আমি রাজমিস্ত্রীর কাজ করি। ঘটনার সময় কাজ থেকে এসে বাড়িতে ইফতারের প্রস্তুতি নিচ্ছ। এমন সময় আশেপাশের লোকজনের চিৎকার শুনে দৌঁড়ে এসে দেখি লাল মিয়া, রহমান কারী, পাবলু মিয়া, ছালূ মিয়া, ও সিপার মিয়াদের বেপরোয়া মারধরে আমার বাবা মাটিতে অচেতন পড়ে আছেন।
কুলাউড়া থানার ওসি তদন্ত সঞ্জয় চক্রবর্তী বলেন এ ঘটনায় লাল মিয়াসহ তিনজন পুরুষ ও তিনজন নারীকে আটক করা হয়েছে হয়েছে। বাকিদের ধরতে অভিযান চলছে।
কুলাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ ইয়ারদৌস হাসান বলেন, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মৌলভীবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হবে। হত্যাকান্ডের ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।