ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কুলাউড়ার তেলিবিল উচ্চ বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে থানায় মামলা

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ
  • আপডেটের সময় : ০৩:২৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৬ জুলাই ২০১৯
  • / ৭৪৩ টাইম ভিউ

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ   মৌলভীবাজারের কুলাউড়ার সীমান্তবর্তী তেলিবিল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নোমান আহমদের (৫৬) বিরুদ্ধে স্কুলের এক সহকারী শিক্ষিকাকে উত্যক্ত করার অভিযোগ উঠেছে। এ অভিযোগে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ওই সহকারী শিক্ষিকা প্রধান শিক্ষক নোমান আহমদকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ১০ ধারায় থানায় মামলা করেন।

এর আগে এই ঘটনার প্রতিকার ও নিরাপত্তা চেয়ে ১৭ জুলাই কুলাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে একটি লিখিত অভিযোগ করেন ওই সহকারী শিক্ষিকা। পরে ইউএনও’র পরামর্শে কুলাউড়া থানা পুলিশ ঘটনার তদন্ত  করলে সত্যতা বেরিয়ে আসে।

কুলাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. ইয়ারদৌস হাসান বৃহস্পতিবার রাত ৮টায় মামলার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আসামি নোমান আহমদকে গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে এনটিআরসির মাধ্যমে উপজেলার তেলিবিল উচ্চ বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষিকা হিসেবে নিয়োগ পান ওই শিক্ষিকা। যোগদানের পর শিক্ষিকার পদ এমপিওভূক্ত করার প্রতিশ্রুতি দেন প্রধান শিক্ষক নোমান আহমদ। বিনিময়ে ওই শিক্ষিকাকে বিয়ের প্রস্তাবে রাজি হওয়ার শর্ত দেন। পরে ওই শিক্ষিকাকে নিয়ে শ্রীমঙ্গলের একটি রেস্টহাউসে ঘুরে আসার কথা বলেন প্রধান শিক্ষক। কিন্তু শিক্ষিকা সেই কুপ্রস্তাবে রাজি হননি।

 

পোস্ট শেয়ার করুন

কুলাউড়ার তেলিবিল উচ্চ বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে থানায় মামলা

আপডেটের সময় : ০৩:২৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৬ জুলাই ২০১৯

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ   মৌলভীবাজারের কুলাউড়ার সীমান্তবর্তী তেলিবিল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নোমান আহমদের (৫৬) বিরুদ্ধে স্কুলের এক সহকারী শিক্ষিকাকে উত্যক্ত করার অভিযোগ উঠেছে। এ অভিযোগে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ওই সহকারী শিক্ষিকা প্রধান শিক্ষক নোমান আহমদকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ১০ ধারায় থানায় মামলা করেন।

এর আগে এই ঘটনার প্রতিকার ও নিরাপত্তা চেয়ে ১৭ জুলাই কুলাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে একটি লিখিত অভিযোগ করেন ওই সহকারী শিক্ষিকা। পরে ইউএনও’র পরামর্শে কুলাউড়া থানা পুলিশ ঘটনার তদন্ত  করলে সত্যতা বেরিয়ে আসে।

কুলাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. ইয়ারদৌস হাসান বৃহস্পতিবার রাত ৮টায় মামলার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আসামি নোমান আহমদকে গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে এনটিআরসির মাধ্যমে উপজেলার তেলিবিল উচ্চ বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষিকা হিসেবে নিয়োগ পান ওই শিক্ষিকা। যোগদানের পর শিক্ষিকার পদ এমপিওভূক্ত করার প্রতিশ্রুতি দেন প্রধান শিক্ষক নোমান আহমদ। বিনিময়ে ওই শিক্ষিকাকে বিয়ের প্রস্তাবে রাজি হওয়ার শর্ত দেন। পরে ওই শিক্ষিকাকে নিয়ে শ্রীমঙ্গলের একটি রেস্টহাউসে ঘুরে আসার কথা বলেন প্রধান শিক্ষক। কিন্তু শিক্ষিকা সেই কুপ্রস্তাবে রাজি হননি।