আপডেট

x


কুলাউড়ার ইটারঘাটে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত পাঁকা রাস্তা মেরামতের দাবীতে মানববন্ধন করছে এলাকাবাসী

বুধবার, ২২ মে ২০১৯ | ২:৩৮ অপরাহ্ণ | 1468 বার

কুলাউড়ার ইটারঘাটে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত পাঁকা রাস্তা মেরামতের দাবীতে মানববন্ধন করছে এলাকাবাসী

ছয়ফুল আলম সাইফুলঃ মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়া উপজেলার শরীফপুর ইউনিয়নের চাতলাব্রীজ থেকে ইটারঘাট টু কুলাউড়া সড়ক বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত পাঁকা সড়ক মেরামতের দাবীতে মানববন্ধন করছে এলাকাবাসী।

আজ (বুধবার) ২২ মে দুপুরে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত শরীফপুর ইটারঘাট টু কুলাউড়া সড়ক  যাতায়াতের একমাত্র্র্র্র রাস্তাটি গত বছরের বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হলে দীর্ঘ একবছর পর সরকারী ভাবে মেরামতের কাজ না করায় মানববন্ধন করছে এলাকার জনসাধারণ ।



জানাজায়, গত বছরের বন্যায় ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হলে হাজীপুর শরীফপুর ইউনিয়নের সাথে কুলাউড়ার যোগাযোগ বন্ধ হয়ে পড়ে। এলাকার লোকজন নিজ নিজ উদ্যেগে  মাটি ভরাট করে কিছুটা পায়ে হেঠে চলাচলের উপযোগী করলেও এখন পর্ষন্ত সরকারী কোন বরাদ্দ বা কাজ শুরু হয়নি। প্রতিদিন হাজারও লোকের চলাচল এ রাস্তায় দূর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন এলাকাবাসী।বার বার এলজিইডি সহ উপজেলা প্রশাসনকে জানানোর পর কাজ হচ্ছেনা তাই আজ মানববন্ধন করছেন এলাকাবাসী।

এসময় উপস্থিত ছিলেন সাবেক চেয়ারম্যান ও আওয়মীলীগ নেতা মোঃ তফাজ্জুল হোসেন চিনু, সাবেক মেম্বার ও আওয়ামীলীগ নেতা মোঃ খলিলুর রহমান, শরীফপুর ইউনিয়নের ইউপি সদস্য ও প্যানেল চেয়ারম্যান মোঃ হারুন মিয়া, মুক্তিযোদ্ধা মোঃ মোস্তাকিম আলী, বাবু বিকাশ দাশ সংকর, নাজিম উদ্দিন, আব্দুল হান্নান, নজরুল ইসলাম নজর, জমসেদ মিয়া, লায়েছ মিয়া , গিয়াস মিয়া, কায়েছ মিয়া, শরীফপুর ছাত্র নেতা, কাওছর আহমদ, মোঃ রুবেল রানা, মোঃ আব্দুল হাকিম, মাওলানা আমির উদ্দিন কাসেম, শামিম মাহমুদ, রাজিব আহমদ, শাজমান আলী, আছকর আলী, ফররিদ আলী, আজিজুর রহমান প্রমুখ।

এলাকাবাসী দাবী একটি  পাকা রাস্তা মেরামতের জন্য মাননীয় সংসদ সদস্য সহ সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ সদয় বিবেচনা করার জন্য এবং হাজার হাজার মানুষের ও কোমলমতি শিক্ষাথীদের দুঃখ কষ্ট লাঘব করতে গ্রামীন যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ণে মাননীয় যোগাযোগ মন্ত্রী সহ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকষন করেন ।

৮ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ও প্যানেল চেয়ারম্যান মোঃ হারুন মিয়া জানান আপাদত মানুষ চলাচলের জন্য ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ৫ টন চাল বরাদ্দ করা হয়েছে এখন পর্যন্ত উপজেলা থেকে অনুমোদন হয় নাই।ইতিমধ্যে অনুমোদন হলেই মাটি ভরাটের কাজ শুরু হবে।আজকের মানববন্ধনের সাথে আমি একাত্তাপোষন করছি।আমার বিশ্বাস মাননীয় সংসদ সদস্য এ ব্যয়াপারে জরুরী পদক্ষেপ গ্রহন পাঁকা রাস্তাটি মেরামতের করবেন।

এব্যাপারে শরীফপুর ইউনিয়নের চেয়াম্যান মোঃ জনাব আলীর সাথে আলাপ করলে তিনি জানান বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার সাথে সাথে সাবেক সংসদ সদস্য মোঃ আব্দুল মতিন সাহেব এর সাথে যোগাযোগ করেছি এবং তিনি উপজেলা ইঞ্জিনিয়ার মোঃ আব্দুর রাকিবকে পাঠালে তিনি চাতলাপুর ব্রীজ থেকে কালারায়ের চর ইটারঘাট ভায়া দত্তগ্রাম পাঁকা রাস্তা পর্যন্ত স্কিম করে নিয়েছেন।বর্তমান সংসদ সদস্যকেও এ বিষয়টি অবগত করেছি। আপাদত মানুষ চলাচলের জন্য স্থানীয় মেম্বার মোঃ হারুন মিয়াকে মাটি ভরাটের দায়ীত্ব দেওয়া হয়েছে অনুমোদন পেলেই কাজ শুরু হবে।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments


deshdiganto.com © 2019 কপিরাইট এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত

design and development by : http://webnewsdesign.com