ঢাকা , বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
উচ্ছ্বাস আর আনন্দে বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখের উদযাপন করেছে পর্তুগাল যথাযথ গাম্ভীর্যের মধ্যে দিয়ে পরিবেশে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর পালন করেছে ভেনিস প্রবাসীরা ভেনিসে বৃহত্তর সিলেট সমিতির আয়োজনে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত এক অসুস্থ প্রজন্ম কে সাথি করে এগুচ্ছি আমরা রিডানডেন্ট ক্লোথিং আর মজুর মামার ‘বিশ্বকাপ’ ইউরোপের সবচেয়ে বড় ঈদুল ফিতরের নামাজ পর্তুগালে অনুষ্ঠিত হয় বর্ণাঢ্য আয়োজনে পর্তুগাল বাংলা প্রেসক্লাবের ইফতার ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন ঈদের কাপড় কিনার জন্য মা’য়ের উপর অভিমান করে মেয়ের আত্মহত্যা লিসবনে বন্ধু মহলের আয়োজনে বিশাল ইফতার ও দোয়া মাহফিল মান অভিমান ভুলে সবাই একই প্লাটফর্মে,সংবাদ সম্মেলনে পর্তুগাল বিএনপির নবগঠিত আহবায়ক কমিটি

কিশোরকে যৌন নির্যাতন করায় ইয়েমেনে ফায়ারিং স্কোয়াডে দুই যুবকের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ
  • আপডেটের সময় : ০৮:৫০ অপরাহ্ন, শনিবার, ৯ ফেব্রুয়ারী ২০১৯
  • / ৯৭৪ টাইম ভিউ

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ  ১২ বছর বয়সী কিশোর মোহাম্মদ সাদকে বলাৎকার শেষে হত্যার দায়ে ফায়ারিং স্কোয়াডে দুই যুবকের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে।

ইয়েমেনের বন্দর নগরী এডেনে  কয়েক শত মানুষের সামনে এ মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়।

ফায়ারিং স্কোয়াডে হত্যা করা দুই যুবকের নাম ওয়াদাহ রেফাত (২৮) ও মোহাম্মদ খালেদ (৩১) ।

জানা যায় তারা ১২ বছর বয়সী মোহাম্মদ সাদকে বলাৎকার শেষে হত্যা করে অভিযুক্তরা। এ অভিযোগে তাদের বিরুদ্ধে ফায়ারিং স্কোয়াডে মৃত্যুদণ্ডের নির্দেশ দেয়া হয়। গত বছর মে মাসে তারা ওই বালকটির সঙ্গে এ জঘন্য অনৈতিক কাজ করে।

ওই বালকটি রেফাত ও খালেদের একজনের বাড়ির কাছেই খেলছিল ঘটনার সময়। তখন তাকে তাদের একজন একটি ভবনের ভিতর নিয়ে যায় টেনে হিঁচড়ে। সেখানে তার ওপর যৌন নির্যাতন চালায়। এক পর্যায়ে সাদ সাহায্যের জন্য কান্না শুরু করে। এ সময় ওই দুই যুবকের একজন একটি ছুরি নিয়ে যায় এবং সাদের গলা কেটে ফেলে।

নিহত সাদের মৃতদেহ লুকিয়ে ফেলায় সাহায্য করার জন্য অভিযুক্তদের এক আত্মীয়া (৩৩) কেও মৃত্যুদন্ড দেয়া হয়েছে। কিন্তু তিনি অন্তঃসত্ত্বা হওয়ায় তার মৃত্যুদণ্ড স্থগিত করা হয়েছে।

পোস্ট শেয়ার করুন

কিশোরকে যৌন নির্যাতন করায় ইয়েমেনে ফায়ারিং স্কোয়াডে দুই যুবকের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর

আপডেটের সময় : ০৮:৫০ অপরাহ্ন, শনিবার, ৯ ফেব্রুয়ারী ২০১৯

দেশদিগন্ত নিউজ ডেস্কঃ  ১২ বছর বয়সী কিশোর মোহাম্মদ সাদকে বলাৎকার শেষে হত্যার দায়ে ফায়ারিং স্কোয়াডে দুই যুবকের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে।

ইয়েমেনের বন্দর নগরী এডেনে  কয়েক শত মানুষের সামনে এ মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়।

ফায়ারিং স্কোয়াডে হত্যা করা দুই যুবকের নাম ওয়াদাহ রেফাত (২৮) ও মোহাম্মদ খালেদ (৩১) ।

জানা যায় তারা ১২ বছর বয়সী মোহাম্মদ সাদকে বলাৎকার শেষে হত্যা করে অভিযুক্তরা। এ অভিযোগে তাদের বিরুদ্ধে ফায়ারিং স্কোয়াডে মৃত্যুদণ্ডের নির্দেশ দেয়া হয়। গত বছর মে মাসে তারা ওই বালকটির সঙ্গে এ জঘন্য অনৈতিক কাজ করে।

ওই বালকটি রেফাত ও খালেদের একজনের বাড়ির কাছেই খেলছিল ঘটনার সময়। তখন তাকে তাদের একজন একটি ভবনের ভিতর নিয়ে যায় টেনে হিঁচড়ে। সেখানে তার ওপর যৌন নির্যাতন চালায়। এক পর্যায়ে সাদ সাহায্যের জন্য কান্না শুরু করে। এ সময় ওই দুই যুবকের একজন একটি ছুরি নিয়ে যায় এবং সাদের গলা কেটে ফেলে।

নিহত সাদের মৃতদেহ লুকিয়ে ফেলায় সাহায্য করার জন্য অভিযুক্তদের এক আত্মীয়া (৩৩) কেও মৃত্যুদন্ড দেয়া হয়েছে। কিন্তু তিনি অন্তঃসত্ত্বা হওয়ায় তার মৃত্যুদণ্ড স্থগিত করা হয়েছে।