ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কানাইঘাটে ১১টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে জরিমানা

নিজস্ব প্রতিনিধি:
  • আপডেটের সময় : ১০:৩৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২০ মার্চ ২০২০
  • / ৬১৩ টাইম ভিউ

করোনা ভাইরাসের অজুহাতে কানাইঘাট উপজেলার হাট-বাজারগুলো নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে অসাধু ব্যবসায়ীরা। শুক্রবার (২০ মার্চ) নির্বাহী কর্মকর্তা বারিউল করিম খানের নেতৃত্বে কানাইঘাট বাজার ও গাছবাড়ী বাজারে পুলিশকে সাথে নিয়ে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের বাজার মনিটরিং করা হয়।

এ সময় পেঁয়াজ সহ অন্যান্য জিনিসপত্র বেশি দামে বিক্রি করার অপরাধে ১১টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে ৬৩ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

জানা যায়, কানাইঘাট বাজার, গাছবাড়ী বাজার, চতুল বাজার, সড়কের বাজার, রাজাগঞ্জ বাজার, সুরইঘাট বাজারসহ প্রতিটি হাট-বাজারে গত ২/৩ দিন থেকে পেঁয়াজ, চাল-ডাল, রসুন, মরিছ, ধনিয়া, চিনি, ভোজ্যতেলসহ অনেক পণ্য সামগ্রী নির্ধারিত মূল্যের চাইতে বেশি দামে বিক্রি করছে অসাধু ব্যবসায়ীরা।

নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম যাতে করে করোনাভাইরাসের অজুহাত দেখিয়ে ব্যবসায়ীরা ক্রেতাদের কাছ থেকে অতিরিক্ত মূল্য নিতে না পারে, এজন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও প্রথম শ্রেণির ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ বারিউল করিম খানের নেতৃত্বে বিভিন্ন এলাকায় অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে।

এদিকে গত বৃহস্পতিবার তিনি চতুল বাজারে গিয়ে বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে জিনিসপত্রের দাম মনিটরিং ও ভেজাল-বাসী খাবার বিক্রি বন্ধে অভিযান পরিচালনা করেন। অভিযান কালে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনে এক ব্যবসায়ীকে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে ১ লক্ষ টাকা নগদ জরিমানা আদায় করেন।

নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, প্রতিদিন এ অভিযান উপজেলার বিভিন্ন হাট বাজারে পরিচালিত করা হবে। করোনা ভাইরাসের অজুহাত দেখিয়ে কোন ব্যবসায়ী দ্রব্যমূল্যের দাম নির্ধারিত মূল্যের চাইতে বেশি দামে বিক্রি করলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তিনি ক্রেতাদের বেশি দামে জিনিসপত্র না কেনার জন্য অনুরোধ করেন।

পোস্ট শেয়ার করুন

কানাইঘাটে ১১টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে জরিমানা

আপডেটের সময় : ১০:৩৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২০ মার্চ ২০২০

করোনা ভাইরাসের অজুহাতে কানাইঘাট উপজেলার হাট-বাজারগুলো নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে অসাধু ব্যবসায়ীরা। শুক্রবার (২০ মার্চ) নির্বাহী কর্মকর্তা বারিউল করিম খানের নেতৃত্বে কানাইঘাট বাজার ও গাছবাড়ী বাজারে পুলিশকে সাথে নিয়ে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের বাজার মনিটরিং করা হয়।

এ সময় পেঁয়াজ সহ অন্যান্য জিনিসপত্র বেশি দামে বিক্রি করার অপরাধে ১১টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে ৬৩ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

জানা যায়, কানাইঘাট বাজার, গাছবাড়ী বাজার, চতুল বাজার, সড়কের বাজার, রাজাগঞ্জ বাজার, সুরইঘাট বাজারসহ প্রতিটি হাট-বাজারে গত ২/৩ দিন থেকে পেঁয়াজ, চাল-ডাল, রসুন, মরিছ, ধনিয়া, চিনি, ভোজ্যতেলসহ অনেক পণ্য সামগ্রী নির্ধারিত মূল্যের চাইতে বেশি দামে বিক্রি করছে অসাধু ব্যবসায়ীরা।

নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম যাতে করে করোনাভাইরাসের অজুহাত দেখিয়ে ব্যবসায়ীরা ক্রেতাদের কাছ থেকে অতিরিক্ত মূল্য নিতে না পারে, এজন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও প্রথম শ্রেণির ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ বারিউল করিম খানের নেতৃত্বে বিভিন্ন এলাকায় অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে।

এদিকে গত বৃহস্পতিবার তিনি চতুল বাজারে গিয়ে বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে জিনিসপত্রের দাম মনিটরিং ও ভেজাল-বাসী খাবার বিক্রি বন্ধে অভিযান পরিচালনা করেন। অভিযান কালে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনে এক ব্যবসায়ীকে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে ১ লক্ষ টাকা নগদ জরিমানা আদায় করেন।

নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, প্রতিদিন এ অভিযান উপজেলার বিভিন্ন হাট বাজারে পরিচালিত করা হবে। করোনা ভাইরাসের অজুহাত দেখিয়ে কোন ব্যবসায়ী দ্রব্যমূল্যের দাম নির্ধারিত মূল্যের চাইতে বেশি দামে বিক্রি করলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তিনি ক্রেতাদের বেশি দামে জিনিসপত্র না কেনার জন্য অনুরোধ করেন।