ঢাকা , রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
লিসবনে আত্মপ্রকাশ হয় সামাজিক সংগঠন “গোলাপগঞ্জ কমিউনিটি কেয়ারর্স পর্তুগাল “ উচ্ছ্বাস আর আনন্দে বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখের উদযাপন করেছে পর্তুগাল যথাযথ গাম্ভীর্যের মধ্যে দিয়ে পরিবেশে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর পালন করেছে ভেনিস প্রবাসীরা ভেনিসে বৃহত্তর সিলেট সমিতির আয়োজনে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত এক অসুস্থ প্রজন্ম কে সাথি করে এগুচ্ছি আমরা রিডানডেন্ট ক্লোথিং আর মজুর মামার ‘বিশ্বকাপ’ ইউরোপের সবচেয়ে বড় ঈদুল ফিতরের নামাজ পর্তুগালে অনুষ্ঠিত হয় বর্ণাঢ্য আয়োজনে পর্তুগাল বাংলা প্রেসক্লাবের ইফতার ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন ঈদের কাপড় কিনার জন্য মা’য়ের উপর অভিমান করে মেয়ের আত্মহত্যা লিসবনে বন্ধু মহলের আয়োজনে বিশাল ইফতার ও দোয়া মাহফিল

করোনা রোগীরা হাসপাতাল থেকে বের হয়ে দোকানে ঘোরাফেরা করছেন

দেশদিগন্ত ডেস্ক
  • আপডেটের সময় : ০৫:০৭ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ জুন ২০২০
  • / ৬০২ টাইম ভিউ

কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে করোনা রোগীদের জন্য আলাদা ভবনে আলাদা ওয়ার্ড করেছে সরকার। করোনা রোগী থেকে যেন সংক্রমণ বাড়তে না পারে। কিন্তু কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নতুন এই ভবনের করোনা রোগীরা চিকিৎসা নিতে এসে হাসপাতাল থেকে বের হয়ে সামনের দোকানে চা, সিপারেট, পান, জুস ঔষধসহ নানা জিনিস ক্রয়ের জন্য ঘোরাফেরা করছেন। করোনা হাসপাতালের গেইট ২৪নঘণ্টা খোলা থাকার কারণে যে কেউ অনায়াসে বের হতে পারছেন ও প্রবেশ করতে পারছেন। করোনা রোগীদের অবাধে ঘোরাফেরা করার কারণে হাসপাতালের সামনের ব্যবসায়ীসহ আশপাশের লোকজন আতংকে রয়েছেন। হাসপাতাল সংলগ্ন এলাকার লোকজন ভয়ে বাজার করতে পারছেন না। অতি প্রয়োজনীয় বাজার করলেও আতংক নিয়ে বাজারে যাচ্ছেন। কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের গেইট সামনের ব্যবসায়ী জানান, হাসপাতাল গেটের সকল ব্যবসায়ীরা অনেক ঝুকিতে আছে।

করোনা আক্রান্ত হয়ে অনেক রোগী হাসপাতালে ভর্তি, অনেক রোগীর সাথে আত্মীয় স্বজন থাকছে না, ক্যানোলা পরিহিত অবস্থায় রোগীকে নিজে বাহিরে এসে ঔষধ কিংবা খাবার কিনতে দেখা গিয়েছে। অনেক রোগী ওয়ার্ড থেকে করোনা গেইট দিয়ে বাহিরে যাচ্ছে। রোগীর আত্মীয় স্বজন রোগীকে দেখতে যাচ্ছে।
এ বিষয়ে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. মুজিবুর রহমান জানান, করোনা ওয়ার্ডে ভর্তি রোগীদের কঠোরভাবে বাহিরে যাওয়া নিষেধ করা আছে। কিন্তু তারা মানছেনা। তারা লুকিয়ে বাহিরে চলে যাচ্ছে। এটা সারা দেশের একই দৃশ্য। আমাদের লোকবল সংকট রয়েছে। যার কারণে কঠোরভাবে মানা সম্ভব হচ্ছে না। তাছাড়াও গেইটে যে দারোয়ান আছে সে জিজ্ঞেস করলে তাকে ভুল তথ্য দিয়ে তারা বাহিরে চলে আসে। বিষয়টি নিয়ে আবারো আমরা আলোচনায় বসব। করোনা রোগী যেন বাহিরে যেতে না পারে তার জন্য কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

পোস্ট শেয়ার করুন

করোনা রোগীরা হাসপাতাল থেকে বের হয়ে দোকানে ঘোরাফেরা করছেন

আপডেটের সময় : ০৫:০৭ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ জুন ২০২০

কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে করোনা রোগীদের জন্য আলাদা ভবনে আলাদা ওয়ার্ড করেছে সরকার। করোনা রোগী থেকে যেন সংক্রমণ বাড়তে না পারে। কিন্তু কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নতুন এই ভবনের করোনা রোগীরা চিকিৎসা নিতে এসে হাসপাতাল থেকে বের হয়ে সামনের দোকানে চা, সিপারেট, পান, জুস ঔষধসহ নানা জিনিস ক্রয়ের জন্য ঘোরাফেরা করছেন। করোনা হাসপাতালের গেইট ২৪নঘণ্টা খোলা থাকার কারণে যে কেউ অনায়াসে বের হতে পারছেন ও প্রবেশ করতে পারছেন। করোনা রোগীদের অবাধে ঘোরাফেরা করার কারণে হাসপাতালের সামনের ব্যবসায়ীসহ আশপাশের লোকজন আতংকে রয়েছেন। হাসপাতাল সংলগ্ন এলাকার লোকজন ভয়ে বাজার করতে পারছেন না। অতি প্রয়োজনীয় বাজার করলেও আতংক নিয়ে বাজারে যাচ্ছেন। কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের গেইট সামনের ব্যবসায়ী জানান, হাসপাতাল গেটের সকল ব্যবসায়ীরা অনেক ঝুকিতে আছে।

করোনা আক্রান্ত হয়ে অনেক রোগী হাসপাতালে ভর্তি, অনেক রোগীর সাথে আত্মীয় স্বজন থাকছে না, ক্যানোলা পরিহিত অবস্থায় রোগীকে নিজে বাহিরে এসে ঔষধ কিংবা খাবার কিনতে দেখা গিয়েছে। অনেক রোগী ওয়ার্ড থেকে করোনা গেইট দিয়ে বাহিরে যাচ্ছে। রোগীর আত্মীয় স্বজন রোগীকে দেখতে যাচ্ছে।
এ বিষয়ে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. মুজিবুর রহমান জানান, করোনা ওয়ার্ডে ভর্তি রোগীদের কঠোরভাবে বাহিরে যাওয়া নিষেধ করা আছে। কিন্তু তারা মানছেনা। তারা লুকিয়ে বাহিরে চলে যাচ্ছে। এটা সারা দেশের একই দৃশ্য। আমাদের লোকবল সংকট রয়েছে। যার কারণে কঠোরভাবে মানা সম্ভব হচ্ছে না। তাছাড়াও গেইটে যে দারোয়ান আছে সে জিজ্ঞেস করলে তাকে ভুল তথ্য দিয়ে তারা বাহিরে চলে আসে। বিষয়টি নিয়ে আবারো আমরা আলোচনায় বসব। করোনা রোগী যেন বাহিরে যেতে না পারে তার জন্য কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।