ঢাকা , শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
যথাযথ গাম্ভীর্যের মধ্যে দিয়ে পরিবেশে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর পালন করেছে ভেনিস প্রবাসীরা ভেনিসে বৃহত্তর সিলেট সমিতির আয়োজনে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত এক অসুস্থ প্রজন্ম কে সাথি করে এগুচ্ছি আমরা রিডানডেন্ট ক্লোথিং আর মজুর মামার ‘বিশ্বকাপ’ ইউরোপের সবচেয়ে বড় ঈদুল ফিতরের নামাজ পর্তুগালে অনুষ্ঠিত হয় বর্ণাঢ্য আয়োজনে পর্তুগাল বাংলা প্রেসক্লাবের ইফতার ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন ঈদের কাপড় কিনার জন্য মা’য়ের উপর অভিমান করে মেয়ের আত্মহত্যা লিসবনে বন্ধু মহলের আয়োজনে বিশাল ইফতার ও দোয়া মাহফিল মান অভিমান ভুলে সবাই একই প্লাটফর্মে,সংবাদ সম্মেলনে পর্তুগাল বিএনপির নবগঠিত আহবায়ক কমিটি ইতালির ভিসেন্সায় সিলেট ডায়নামিক অ্যাসোসিয়েশনের আয়োজনে ইফতার ও দোয়া অনুষ্ঠিত

কমলগঞ্জে ট্রেনের ধাক্কায় অজ্ঞাত নামা এক বৃদ্ধা নারীর মৃত্যু

ছয়ফুল আলম সাইফুলঃ
  • আপডেটের সময় : ০৬:০০ অপরাহ্ন, শনিবার, ৮ জুন ২০১৯
  • / ৫২৪ টাইম ভিউ

ছয়ফুল আলম সাইফুলঃ আখাউড়া -সিলেট রেলওয়ের ভানুগাছ ষ্টেশনের দুরবর্তী ১৮২ নং ব্রীজের বালিগাঁও নামক স্থানে ট্রেনের ধাক্কায় এক অজ্ঞাত নামা মহিলা নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। আজ ৭ জুন রোজ শুক্রবার।স্থানীয়রা জানায় সকাল সাড়ে ৭ ঘটিকার দিকে সিলেটগামী জালালাবাদ এক্সপ্রেস ট্রেন এই এলাকা অতিক্রম করার সময় এবং বৃদ্ধা মহিলা ওই ব্রিজের পশ্চিম পাশে যাবার কালে ব্রিজের মধ্যবর্তী স্থানে গেলে ট্রেনের ধাক্কায় ব্রিজের নিচে পড়ে তার মৃত্যু হয়।পরে নিকটস্থ ভানুগাছ রেলওয়ে স্টেশনের মাস্টার সেলিম মিয়াকে বিষয়টি অবগত করলে, শ্রীমঙ্গল জিআরপি পুলিশে খবর দিলে পুলিশ এসে। ব্রিজের নিচের ডুবা থেকে মহিলার লাশ এবং সাথে থাকা একটি ভিক্ষার ঝুলি উদ্ধার করে। স্থানীয় ভানুগাঁছ স্টেশন এলাকার ব্যবসায়ীরা জানান, এ মহিলা কিছুদিন যাবত এ এলাকায় ভিক্ষা করতে দেখা গেছে, এবং মাঝে মধ্যে এই স্টেশন এলাকায় রাত্রি যাপন করতেও দেখেন তারা এবং আজ ভোরেও এ এলাকায় ছিলো মহিলাটি।ধারণা করা হচ্ছে ভিক্ষা করার উদ্দেশ্যেই আশপাশের এলাকায় যাবার জন্য এই ব্রিজ সে অতিক্রম করছিল। ধারণাপ্রসূত ৫০/৫৫ বৎসর বয়সী এই মহিলার মৃত্যুতে লাশ দেখতে এলাকায় উৎসুক জনতার ভিড় বাড়ে ব্রিজের নিকটে। শ্রীমঙ্গল জিআরপি পুলিশের ইসমাইল এর নেতৃত্বে  একদল পুলিশ সকাল সাড়ে ১০ ঘটিকায় ঘটনাস্থলে এসে স্থানীয়দের সহযোগিতায় মহিলার লাশ পানি থেকে উপরে তুলে আনলে, নিহত বৃদ্ধার  সাথে থাকা তার ঝুলিতে কিছু পরিমাণ চাল, ডাল এবং রান্না বান্না করার জন্য ছোট একটি পাতিল (বাসন) ও নগদ কিছু অর্থকরী ছিলো তার ঝুলিতে। এসময় কমলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা আরিফুর রহমান, তদন্ত ওসি সুধীন চন্দ্র দাস, ও স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীগন, ঘটনাস্থল পরিদর্শনে ছিলেন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত প্রতিবেদন লেখা কালিন সময়ে অজ্ঞাত  নামা এই মহিলার কোন আত্মীয়-স্বজন,তার লাশটি শনাক্ত করতে আসেনি।

 

পোস্ট শেয়ার করুন

কমলগঞ্জে ট্রেনের ধাক্কায় অজ্ঞাত নামা এক বৃদ্ধা নারীর মৃত্যু

আপডেটের সময় : ০৬:০০ অপরাহ্ন, শনিবার, ৮ জুন ২০১৯

ছয়ফুল আলম সাইফুলঃ আখাউড়া -সিলেট রেলওয়ের ভানুগাছ ষ্টেশনের দুরবর্তী ১৮২ নং ব্রীজের বালিগাঁও নামক স্থানে ট্রেনের ধাক্কায় এক অজ্ঞাত নামা মহিলা নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। আজ ৭ জুন রোজ শুক্রবার।স্থানীয়রা জানায় সকাল সাড়ে ৭ ঘটিকার দিকে সিলেটগামী জালালাবাদ এক্সপ্রেস ট্রেন এই এলাকা অতিক্রম করার সময় এবং বৃদ্ধা মহিলা ওই ব্রিজের পশ্চিম পাশে যাবার কালে ব্রিজের মধ্যবর্তী স্থানে গেলে ট্রেনের ধাক্কায় ব্রিজের নিচে পড়ে তার মৃত্যু হয়।পরে নিকটস্থ ভানুগাছ রেলওয়ে স্টেশনের মাস্টার সেলিম মিয়াকে বিষয়টি অবগত করলে, শ্রীমঙ্গল জিআরপি পুলিশে খবর দিলে পুলিশ এসে। ব্রিজের নিচের ডুবা থেকে মহিলার লাশ এবং সাথে থাকা একটি ভিক্ষার ঝুলি উদ্ধার করে। স্থানীয় ভানুগাঁছ স্টেশন এলাকার ব্যবসায়ীরা জানান, এ মহিলা কিছুদিন যাবত এ এলাকায় ভিক্ষা করতে দেখা গেছে, এবং মাঝে মধ্যে এই স্টেশন এলাকায় রাত্রি যাপন করতেও দেখেন তারা এবং আজ ভোরেও এ এলাকায় ছিলো মহিলাটি।ধারণা করা হচ্ছে ভিক্ষা করার উদ্দেশ্যেই আশপাশের এলাকায় যাবার জন্য এই ব্রিজ সে অতিক্রম করছিল। ধারণাপ্রসূত ৫০/৫৫ বৎসর বয়সী এই মহিলার মৃত্যুতে লাশ দেখতে এলাকায় উৎসুক জনতার ভিড় বাড়ে ব্রিজের নিকটে। শ্রীমঙ্গল জিআরপি পুলিশের ইসমাইল এর নেতৃত্বে  একদল পুলিশ সকাল সাড়ে ১০ ঘটিকায় ঘটনাস্থলে এসে স্থানীয়দের সহযোগিতায় মহিলার লাশ পানি থেকে উপরে তুলে আনলে, নিহত বৃদ্ধার  সাথে থাকা তার ঝুলিতে কিছু পরিমাণ চাল, ডাল এবং রান্না বান্না করার জন্য ছোট একটি পাতিল (বাসন) ও নগদ কিছু অর্থকরী ছিলো তার ঝুলিতে। এসময় কমলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা আরিফুর রহমান, তদন্ত ওসি সুধীন চন্দ্র দাস, ও স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীগন, ঘটনাস্থল পরিদর্শনে ছিলেন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত প্রতিবেদন লেখা কালিন সময়ে অজ্ঞাত  নামা এই মহিলার কোন আত্মীয়-স্বজন,তার লাশটি শনাক্ত করতে আসেনি।