ঢাকা , শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৫ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
লিসবনে আত্মপ্রকাশ হয় সামাজিক সংগঠন “গোলাপগঞ্জ কমিউনিটি কেয়ারর্স পর্তুগাল “ উচ্ছ্বাস আর আনন্দে বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখের উদযাপন করেছে পর্তুগাল যথাযথ গাম্ভীর্যের মধ্যে দিয়ে পরিবেশে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর পালন করেছে ভেনিস প্রবাসীরা ভেনিসে বৃহত্তর সিলেট সমিতির আয়োজনে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত এক অসুস্থ প্রজন্ম কে সাথি করে এগুচ্ছি আমরা রিডানডেন্ট ক্লোথিং আর মজুর মামার ‘বিশ্বকাপ’ ইউরোপের সবচেয়ে বড় ঈদুল ফিতরের নামাজ পর্তুগালে অনুষ্ঠিত হয় বর্ণাঢ্য আয়োজনে পর্তুগাল বাংলা প্রেসক্লাবের ইফতার ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন ঈদের কাপড় কিনার জন্য মা’য়ের উপর অভিমান করে মেয়ের আত্মহত্যা লিসবনে বন্ধু মহলের আয়োজনে বিশাল ইফতার ও দোয়া মাহফিল

ঐক্যফ্রন্টের ঐকতানে আমি মিজান চৌধুরী বলছি…

নিউজ ডেস্ক
  • আপডেটের সময় : ০৭:৫৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৭ ডিসেম্বর ২০১৮
  • / ৩৮০ টাইম ভিউ

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম। আলহামদুল্লিাহ। সুপ্রিয় নেতা-কর্মী-সমর্থক এবং ছাতক-দোয়ারাবাজারের সম্মানিত ভোটার ভাই-বোনেরা, আমার সালাম, আদাব ও শুভেচ্ছা নিন। আমি আপনাদের জন্য এই সময়ের সবচেয়ে বড় সুখবর দিচ্ছি, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আমার হাতে জাতীয় ঐক্যের ঐক্যের প্রতীক, জাতির আস্থা ও নিরাপত্তার প্রতীক ‘ধানের শীষ’ তুলে দেওয়া হয়েছে। আমি বিএনপি, জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও ২০ দলীয় জোটের মনোনীত সুনামগঞ্জ-৫ আসনে (ছাতক ও দোয়রাবাজার) প্রার্থী। বাংলাদেশের সফল রাষ্ট্রনায়ক শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের আদর্শে এবং দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও বাংলাদেশে জাতীয়তাবাদী চেতনার রাজনীতির কাণ্ডারি, তারুণ্যের অহংকার জননেতা তারেক রহমানের প্রতি অবিচল থাকার শ্রেষ্ঠতম ফল আমি পেলাম। এ জন্য মহান আল্লাহর দরবারে শুকরিয়া আদায় এবং দেশনেত্রী, প্রাণপ্রিয় নেতা তারেক রহমান ও বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের প্রতি অশেষ কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। সুনামগঞ্জ-৫ (ছাতক-দোয়ারাবাজার) নির্বাচনী এলাকায় পরিবর্তন ও সুষম উন্নয়নে আপনাদের প্রত্যাশা নিয়ে প্রতীক্ষার পালা শেষ হলো। বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় রাজনৈতিক দল বিএনপির নেতৃত্বে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী আমি আজ আপনাদের কাছে সমর্পিত, ধানের শীষকে বিজয়ী করে আমাকে এগিয়ে নেওয়ার দায়িত্ব এখন আপনাদের। আপনারা নিশ্চয় জানেন, আমি ছাত্রজীবন থেকে জাতীয়তাবাদী রাজনৈতিক আদর্শে অবিচল। ছাত্রদলের নেতৃত্ব থেকে বিএনপিতে আছি। আমার আদর্শের সংগঠন বিএনপির মনোনয়ন নিয়ে মাঠ পর্যায়ে একটানা প্রায় পক্ষকাল পর্যবেক্ষনে ছিলাম। দেখেছি শাসকদলের নানা কূটচাল আর কূট-কৌশল। কূটচালের এই জাল ভেদ করতেই বিএনপিদলীয় কৌশল ছিল একক প্রার্থিতার বদলে একাধিক প্রার্থিতা। এক আসনে দুজন-তিনজন করে প্রার্থীকে মনোনয়ন দেওয়ার। আমাদের আসনেও এমনটি ছিল। দুজন থেকে একজন হিসেবে চূড়ান্ত মনোনয়ন আমি পেলাম। এ নিয়ে দলে কোনো দ্বিধা-বিভক্তি চাই না। আমার উদাত্ত আহবান, সকল বিভেদ ভুলে ধানের শীষের পক্ষে ঐক্যবদ্ধ হোন। ঐক্যফ্রন্টের ঐকতানে বিজয় ছিনিয়ে আনার প্রস্তুতি নিন, জোর মনোবলে ভোটের মাঠে নামুন এবার। মনে রাখবেন, জনতাই সবচেয়ে বড় মনোবল। আমাদের আছে জাগ্রত জনতার বলে বলীয়ান হওয়ার মন্ত্র। ধানের শীষের বিজয় ছাড়া আর কোনো বিকল্প নেই আমাদের সামনে। ভোটই আমাদের একমাত্র হাতিয়ার। সুষ্ঠু ভোট গ্রহণ চূড়ান্ত করতে, ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠা করতে সম্ভাব্য সব পদক্ষেপ নিতে হবে। হয় ধান-নয় প্রাণ, প্রাণাধিক প্রিয় ধানের শীষকে বিজয়ী করতে এমন প্রতিজ্ঞায় বুক চেতিয়ে নির্বাচনী প্রচারণায় নামার জন্য সর্বস্তরের নেতা-কর্মী-সমর্থকসহ ভোটারদের প্রতি আমার সবিনয় অনুরোধ রইল। তবে সব সময় স্মরণ রাখতে হবে নির্বাচনী আচরণবিধির প্রতি। কোনোভাবেই আমরা বিধি লঙ্ঘন করবো না। নির্বাচনের পরিবেশ শান্তিপূর্ণ রাখতে সর্বোচ্চ সতর্ক দৃষ্টি রাখা চাই। আমার বিশ্বাস, অবাধ-সুষ্ঠু নির্বাচন হলে জাতির আশা-আকাঙ্খা ও নিরাপত্তার প্রতীক ধানের শীষের বিজয় ঠেকানো যাবে না। এ বিজয়ে আমাদের মায়ের মতো প্রিয় দেশনেত্রী, তিনবারের সফল প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া কারামুক্ত হবেন, জননেতা তারেক রহমান নিরাপদে ফিরবেন আমাদের কাছে তথা নিজ দেশে এবং শহীদ জিয়ার সেই আদর্শে ফিরবে প্রিয় এই বাংলাদেশ। গুম-খুন-গায়েবি মামলায় ধরপাকড় আতঙ্কে, বাক-স্বাধীনতা, আইনের শাসন ও গণতন্ত্র হারা এই বাংলাদেশে জাতীয়তাবাদী চেতনার মানুষ আবার সমস্বরে গাইবে, ‌‌প্রথম বাংলাদেশ. আমার শেষ বাংলাদেশ, জীবন বাংলাদেশ, আমার মরণ বাংলাদেশ..।’ ঐক্যফ্রন্টের ঐকতানে আমি মিজান চৌধুরী কথা দিচ্ছি, সবসময় দলীয় নেতা-কর্মী-সমর্থক ও ধানের শীষের কর্মী এবং সম্মানিত ভোটারদের ছায়াসঙ্গী হয়ে থাকবো। আমার অঙ্গীকার-শিল্প নগরী ছাতকের হারানো ঐতিহ্য ফেরানোর চেষ্টায় পরিকল্পিত উন্নয়ন, ছাতক শহরকে শান্তি-সম্প্রীতির আদর্শের এক শহর গড়তে সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত রাখার সর্বাত্মক চেষ্টা থাকবে আমার। কর্মসংস্থান প্রচেষ্টা থাকবে শিল্পায়নের মধ্য দিয়ে বেকার তরুণদের। গ্রাম ও শহরের উন্নয়নের দিকে সমান নজর থাকবে। নদীমাতৃক দোয়ারাবাজারকে সমৃদ্ধ জনপদ হিসেবে গড়তে উদ্যোগী হবো। ছাতক ও দোয়ারাবাজারের প্রকৃতি উপজীব্য পর্যটন আকর্ষণ, যোগাযোগব্যবস্থার প্রসার, সুরমা নদীর অসমাপ্ত ব্রিজ নির্মাণকাজ দ্রুততার সঙ্গে সম্পন্ন করে ছাতকের সঙ্গে দোয়ারাবাজারসহ সড়কবিচ্ছিন্ন প্রত্যন্ত এলাকার যোগাযোগের সেতুবন্ধন তৈরি করার কাজে আত্মনিয়োগ করবো। প্রত্যন্ত এলাকার স্বাস্থ্য সেবা ও শিক্ষার প্রসার, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নৈতিকতা ও ধর্মীয় মূল্যবোধসম্পন্ন শিক্ষাসহ সামাজিক-মানবিক উন্নয়নে নিবেদিত থাকবো।এসব কাজের মধ্য দিয়েই আসবে প্রত্যাশিত পরিবর্তন। আমার প্রতিশ্রুতি, পরিবর্তন, উন্নয়ন, আলোকিত ও সমৃদ্ধ ছাতক-দোয়ারা গড়া। এই প্রতিশ্রুতি পূরণে এইবার আমার সহযাত্রী হোন, একটি অবাধ-সুষ্ঠু নির্বাচনে ধানের শীষের বিজয় নিয়েই ঘরে ফিরবো ইনশাল্লাহ। বাংলাদেশ জিন্দাবাদ। বিএনপি জিন্দাবাদ। জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট জিন্দাবাদ -মিজানুর রহমান চৌধুরী বিএনপি, ২০দলীয় জোট ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট মনোনীত সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী, সুনামগঞ্জ-৫ (ছাতক ও দোয়ারাবাজার) আসন।

পোস্ট শেয়ার করুন

ঐক্যফ্রন্টের ঐকতানে আমি মিজান চৌধুরী বলছি…

আপডেটের সময় : ০৭:৫৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৭ ডিসেম্বর ২০১৮

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম। আলহামদুল্লিাহ। সুপ্রিয় নেতা-কর্মী-সমর্থক এবং ছাতক-দোয়ারাবাজারের সম্মানিত ভোটার ভাই-বোনেরা, আমার সালাম, আদাব ও শুভেচ্ছা নিন। আমি আপনাদের জন্য এই সময়ের সবচেয়ে বড় সুখবর দিচ্ছি, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আমার হাতে জাতীয় ঐক্যের ঐক্যের প্রতীক, জাতির আস্থা ও নিরাপত্তার প্রতীক ‘ধানের শীষ’ তুলে দেওয়া হয়েছে। আমি বিএনপি, জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও ২০ দলীয় জোটের মনোনীত সুনামগঞ্জ-৫ আসনে (ছাতক ও দোয়রাবাজার) প্রার্থী। বাংলাদেশের সফল রাষ্ট্রনায়ক শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের আদর্শে এবং দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও বাংলাদেশে জাতীয়তাবাদী চেতনার রাজনীতির কাণ্ডারি, তারুণ্যের অহংকার জননেতা তারেক রহমানের প্রতি অবিচল থাকার শ্রেষ্ঠতম ফল আমি পেলাম। এ জন্য মহান আল্লাহর দরবারে শুকরিয়া আদায় এবং দেশনেত্রী, প্রাণপ্রিয় নেতা তারেক রহমান ও বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের প্রতি অশেষ কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। সুনামগঞ্জ-৫ (ছাতক-দোয়ারাবাজার) নির্বাচনী এলাকায় পরিবর্তন ও সুষম উন্নয়নে আপনাদের প্রত্যাশা নিয়ে প্রতীক্ষার পালা শেষ হলো। বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় রাজনৈতিক দল বিএনপির নেতৃত্বে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী আমি আজ আপনাদের কাছে সমর্পিত, ধানের শীষকে বিজয়ী করে আমাকে এগিয়ে নেওয়ার দায়িত্ব এখন আপনাদের। আপনারা নিশ্চয় জানেন, আমি ছাত্রজীবন থেকে জাতীয়তাবাদী রাজনৈতিক আদর্শে অবিচল। ছাত্রদলের নেতৃত্ব থেকে বিএনপিতে আছি। আমার আদর্শের সংগঠন বিএনপির মনোনয়ন নিয়ে মাঠ পর্যায়ে একটানা প্রায় পক্ষকাল পর্যবেক্ষনে ছিলাম। দেখেছি শাসকদলের নানা কূটচাল আর কূট-কৌশল। কূটচালের এই জাল ভেদ করতেই বিএনপিদলীয় কৌশল ছিল একক প্রার্থিতার বদলে একাধিক প্রার্থিতা। এক আসনে দুজন-তিনজন করে প্রার্থীকে মনোনয়ন দেওয়ার। আমাদের আসনেও এমনটি ছিল। দুজন থেকে একজন হিসেবে চূড়ান্ত মনোনয়ন আমি পেলাম। এ নিয়ে দলে কোনো দ্বিধা-বিভক্তি চাই না। আমার উদাত্ত আহবান, সকল বিভেদ ভুলে ধানের শীষের পক্ষে ঐক্যবদ্ধ হোন। ঐক্যফ্রন্টের ঐকতানে বিজয় ছিনিয়ে আনার প্রস্তুতি নিন, জোর মনোবলে ভোটের মাঠে নামুন এবার। মনে রাখবেন, জনতাই সবচেয়ে বড় মনোবল। আমাদের আছে জাগ্রত জনতার বলে বলীয়ান হওয়ার মন্ত্র। ধানের শীষের বিজয় ছাড়া আর কোনো বিকল্প নেই আমাদের সামনে। ভোটই আমাদের একমাত্র হাতিয়ার। সুষ্ঠু ভোট গ্রহণ চূড়ান্ত করতে, ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠা করতে সম্ভাব্য সব পদক্ষেপ নিতে হবে। হয় ধান-নয় প্রাণ, প্রাণাধিক প্রিয় ধানের শীষকে বিজয়ী করতে এমন প্রতিজ্ঞায় বুক চেতিয়ে নির্বাচনী প্রচারণায় নামার জন্য সর্বস্তরের নেতা-কর্মী-সমর্থকসহ ভোটারদের প্রতি আমার সবিনয় অনুরোধ রইল। তবে সব সময় স্মরণ রাখতে হবে নির্বাচনী আচরণবিধির প্রতি। কোনোভাবেই আমরা বিধি লঙ্ঘন করবো না। নির্বাচনের পরিবেশ শান্তিপূর্ণ রাখতে সর্বোচ্চ সতর্ক দৃষ্টি রাখা চাই। আমার বিশ্বাস, অবাধ-সুষ্ঠু নির্বাচন হলে জাতির আশা-আকাঙ্খা ও নিরাপত্তার প্রতীক ধানের শীষের বিজয় ঠেকানো যাবে না। এ বিজয়ে আমাদের মায়ের মতো প্রিয় দেশনেত্রী, তিনবারের সফল প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া কারামুক্ত হবেন, জননেতা তারেক রহমান নিরাপদে ফিরবেন আমাদের কাছে তথা নিজ দেশে এবং শহীদ জিয়ার সেই আদর্শে ফিরবে প্রিয় এই বাংলাদেশ। গুম-খুন-গায়েবি মামলায় ধরপাকড় আতঙ্কে, বাক-স্বাধীনতা, আইনের শাসন ও গণতন্ত্র হারা এই বাংলাদেশে জাতীয়তাবাদী চেতনার মানুষ আবার সমস্বরে গাইবে, ‌‌প্রথম বাংলাদেশ. আমার শেষ বাংলাদেশ, জীবন বাংলাদেশ, আমার মরণ বাংলাদেশ..।’ ঐক্যফ্রন্টের ঐকতানে আমি মিজান চৌধুরী কথা দিচ্ছি, সবসময় দলীয় নেতা-কর্মী-সমর্থক ও ধানের শীষের কর্মী এবং সম্মানিত ভোটারদের ছায়াসঙ্গী হয়ে থাকবো। আমার অঙ্গীকার-শিল্প নগরী ছাতকের হারানো ঐতিহ্য ফেরানোর চেষ্টায় পরিকল্পিত উন্নয়ন, ছাতক শহরকে শান্তি-সম্প্রীতির আদর্শের এক শহর গড়তে সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত রাখার সর্বাত্মক চেষ্টা থাকবে আমার। কর্মসংস্থান প্রচেষ্টা থাকবে শিল্পায়নের মধ্য দিয়ে বেকার তরুণদের। গ্রাম ও শহরের উন্নয়নের দিকে সমান নজর থাকবে। নদীমাতৃক দোয়ারাবাজারকে সমৃদ্ধ জনপদ হিসেবে গড়তে উদ্যোগী হবো। ছাতক ও দোয়ারাবাজারের প্রকৃতি উপজীব্য পর্যটন আকর্ষণ, যোগাযোগব্যবস্থার প্রসার, সুরমা নদীর অসমাপ্ত ব্রিজ নির্মাণকাজ দ্রুততার সঙ্গে সম্পন্ন করে ছাতকের সঙ্গে দোয়ারাবাজারসহ সড়কবিচ্ছিন্ন প্রত্যন্ত এলাকার যোগাযোগের সেতুবন্ধন তৈরি করার কাজে আত্মনিয়োগ করবো। প্রত্যন্ত এলাকার স্বাস্থ্য সেবা ও শিক্ষার প্রসার, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নৈতিকতা ও ধর্মীয় মূল্যবোধসম্পন্ন শিক্ষাসহ সামাজিক-মানবিক উন্নয়নে নিবেদিত থাকবো।এসব কাজের মধ্য দিয়েই আসবে প্রত্যাশিত পরিবর্তন। আমার প্রতিশ্রুতি, পরিবর্তন, উন্নয়ন, আলোকিত ও সমৃদ্ধ ছাতক-দোয়ারা গড়া। এই প্রতিশ্রুতি পূরণে এইবার আমার সহযাত্রী হোন, একটি অবাধ-সুষ্ঠু নির্বাচনে ধানের শীষের বিজয় নিয়েই ঘরে ফিরবো ইনশাল্লাহ। বাংলাদেশ জিন্দাবাদ। বিএনপি জিন্দাবাদ। জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট জিন্দাবাদ -মিজানুর রহমান চৌধুরী বিএনপি, ২০দলীয় জোট ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট মনোনীত সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী, সুনামগঞ্জ-৫ (ছাতক ও দোয়ারাবাজার) আসন।