ঢাকা , মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ৭ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আপডেট :
বাংলাদেশে কোটা আন্দোলনে হত্যার প্রতিবাদে পর্তুগালে বিক্ষোভ করেছে বাংলাদেশী প্রবাসীরা প্রিয়জনদের মানসিক রোগ যদি আপনজন বুঝতে না পারেন আওয়ামীলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা ও অভিষেক অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা করেছে পর্তুগাল আওয়ামীলীগ যেকোনো প্রচেষ্টা এককভাবে সম্পন্ন করা সম্ভব নয়: দুদক সচিব শ্রীমঙ্গলে দুটি চোরাই মোটরসাইকেল সহ মিল্টন কুমার আটক পর্তুগালের অভিবাসন আইনে ব্যাপক পরিবর্তন পর্তুগাল বিএনপি আহবায়ক কমিটির জুমে জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয় এমপি আনোয়ারুল আজিমকে হত্যার ঘটনায় আটক তিনজন , এতে বাংলাদেশী মানুষ জড়িত:স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকাস্থ ইরান দুতাবাসে রাইসির শোক বইয়ে মির্জা ফখরুলের স্বাক্ষর

এক সপ্তাহ ধরে কমলগঞ্জে মাদ্রাসা ও স্কুলের দুই ছাত্র নিখোঁজ

দেশদিগন্ত ডেক্স
  • আপডেটের সময় : ০৭:৫৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০১৭
  • / ৮৪৬ টাইম ভিউ

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার সীমান্তবর্তী ইসলামপুর ইউনিয়নের শ্রীপুর গ্রাম থেকে এক সপ্তাহ ধরে দুই ছাত্র নিখোঁজ রয়েছে। নিখোঁজ ছাত্রদের সন্ধান না পেয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে বৃহস্পতিবার (৭ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় কমলগঞ্জ থানায় একটি সাধারন ডায়েরী করা হয়। গত ২৯ নভেম্বর বৃহস্পতিবার বিকালে ছাত্রদ্বয় মাদ্রাসা ও স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে নিখোঁজ হয়।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার (২৯ নভেম্বর) বিকাল ৩টায় শ্রীপুর গ্রামের কৃষক চেরাগ মিয়ার ছেলে মাধবপুর ইউনিয়নের নওয়াগাঁও তালিমুল কুরআন মাদ্রাসার ৫ম শ্রেনির ছাত্র মো: হাবিবুর রহমান ওরপে তারেক (১১) মাদ্রাসা থেকে বাড়ি ফিরছিল। ছাত্র হাবিবুর রহমান আর বাড়ি ফিরেনি। একইভাবে শ্রীপুর গ্রামের ছমদু মিয়ার ছেলে শ্রীপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণির ছাত্র সাহিদ মিয়া (১০) স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে নিখোঁজ হয়। ঘটনার পর থেকে টানা এক সপ্তাহ আত্মীয় স্বজনদের বাড়িসহ বিভিন্ন স্থানে খোঁজ করেও নিখোঁজ ছাত্রদ্বয়ের সন্ধান পাওয়া যায়নি। অবশেষে নিখোঁজ মাদ্রাসা ছাত্র হাবিবুরের বাবা চেরাগ মিয়া ও স্কুল ছাত্র সাহিদের বাবা ছমদু মিয়া বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় কমলগঞ্জ থানায় একটি নিখোঁজ ডায়েরী করেন।

নিখোঁজ মাদ্রাসা মাদ্রাসা ছাত্র হাবিবুরের বাবা চেরাগ মিয়া বলেন, নিখোঁজের সময় তার পরনে ছিল আকাশী রং-এর পাঞ্জাবি পায়জামা ও মাথায় সাদা টুপি ছিল। নিখোঁজ স্কুল ছাত্র সাহিদের বাবা ছমদু মিয়া বলেন, নিখোঁজের সময় তার পরনে ছিল নীল রং-এর স্কুল ড্রেস। দুজনই সিলেটী আঞ্চলিক ভাষায় কথা বলে। দুজনের উচ্চতা যথাক্রমে ৩ ও ৪ ফুট। নিখোঁজ হওয়ার পর থেকে অনেক খোঁজ করেও তাদের সন্ধান পাওয়া যায়নি বলেই বৃহস্পতিবার কমলগঞ্জ থানায় সাধারন ডায়েরী করা হয়েছে।

কমলগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) মো: নজরুল ইসলাম বলেন, দুই ছাত্র নিখোঁজের কথা শুনেছেন। থানায় পরিবারের পক্ষ থেকে লিখিতভাবে অবহিত করা হয়। পুলিশ নিখোঁজ ছাত্রদের খুঁজতে তদন্ত শুরু করবে।

পোস্ট শেয়ার করুন

এক সপ্তাহ ধরে কমলগঞ্জে মাদ্রাসা ও স্কুলের দুই ছাত্র নিখোঁজ

আপডেটের সময় : ০৭:৫৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০১৭

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার সীমান্তবর্তী ইসলামপুর ইউনিয়নের শ্রীপুর গ্রাম থেকে এক সপ্তাহ ধরে দুই ছাত্র নিখোঁজ রয়েছে। নিখোঁজ ছাত্রদের সন্ধান না পেয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে বৃহস্পতিবার (৭ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় কমলগঞ্জ থানায় একটি সাধারন ডায়েরী করা হয়। গত ২৯ নভেম্বর বৃহস্পতিবার বিকালে ছাত্রদ্বয় মাদ্রাসা ও স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে নিখোঁজ হয়।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার (২৯ নভেম্বর) বিকাল ৩টায় শ্রীপুর গ্রামের কৃষক চেরাগ মিয়ার ছেলে মাধবপুর ইউনিয়নের নওয়াগাঁও তালিমুল কুরআন মাদ্রাসার ৫ম শ্রেনির ছাত্র মো: হাবিবুর রহমান ওরপে তারেক (১১) মাদ্রাসা থেকে বাড়ি ফিরছিল। ছাত্র হাবিবুর রহমান আর বাড়ি ফিরেনি। একইভাবে শ্রীপুর গ্রামের ছমদু মিয়ার ছেলে শ্রীপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণির ছাত্র সাহিদ মিয়া (১০) স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে নিখোঁজ হয়। ঘটনার পর থেকে টানা এক সপ্তাহ আত্মীয় স্বজনদের বাড়িসহ বিভিন্ন স্থানে খোঁজ করেও নিখোঁজ ছাত্রদ্বয়ের সন্ধান পাওয়া যায়নি। অবশেষে নিখোঁজ মাদ্রাসা ছাত্র হাবিবুরের বাবা চেরাগ মিয়া ও স্কুল ছাত্র সাহিদের বাবা ছমদু মিয়া বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় কমলগঞ্জ থানায় একটি নিখোঁজ ডায়েরী করেন।

নিখোঁজ মাদ্রাসা মাদ্রাসা ছাত্র হাবিবুরের বাবা চেরাগ মিয়া বলেন, নিখোঁজের সময় তার পরনে ছিল আকাশী রং-এর পাঞ্জাবি পায়জামা ও মাথায় সাদা টুপি ছিল। নিখোঁজ স্কুল ছাত্র সাহিদের বাবা ছমদু মিয়া বলেন, নিখোঁজের সময় তার পরনে ছিল নীল রং-এর স্কুল ড্রেস। দুজনই সিলেটী আঞ্চলিক ভাষায় কথা বলে। দুজনের উচ্চতা যথাক্রমে ৩ ও ৪ ফুট। নিখোঁজ হওয়ার পর থেকে অনেক খোঁজ করেও তাদের সন্ধান পাওয়া যায়নি বলেই বৃহস্পতিবার কমলগঞ্জ থানায় সাধারন ডায়েরী করা হয়েছে।

কমলগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) মো: নজরুল ইসলাম বলেন, দুই ছাত্র নিখোঁজের কথা শুনেছেন। থানায় পরিবারের পক্ষ থেকে লিখিতভাবে অবহিত করা হয়। পুলিশ নিখোঁজ ছাত্রদের খুঁজতে তদন্ত শুরু করবে।