ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

উঠের লাথিতে প্রাণ গেলো কুলাউড়ার ফয়াজ মিয়ার

কুলাউড়া প্রতিনিধি:
  • আপডেটের সময় : ০৪:৩৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২০
  • / ৩৪৯ টাইম ভিউ

মধ্যপ্রাচ্যের ওমানে উঠের লাথিতে ফয়াজ মিয়া (২৫) নামক এক বাংলাদেশি যুবকের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। বুধবার ১২ আগস্ট রাত ৮ টার (বাংলাদেশ টাইম) দিকে মারা যান তিনি। নিহত ফয়াজ কুলাউড়া উপজেলার জয়চন্ডী ইউনিয়নের দক্ষিণ দিলদারপুর গ্রামের মৃত সোনা মিয়ার ছেলে।

নিহত ফয়াজের ছোট ভাই মো. রেনু মিয়া জানান, সাড়ে তিন বছর আগে মধ্যপ্রাচ্যের ওমানে পাড়ি জমিয়েছিলেন ফয়াজ। তিনি ওমানের ইবরা শহরে একটি সবজি বাগানে কাজ করতেন। এছাড়াও তিনি ওই বাগানের পাশেই একটি উঠের ফার্মে পার্ট টাইম কাজ করতেন। প্রতিদিনের ন্যায় বুধবার বাংলাদেশ টাইম রাত ৮ টার দিকে উঠকে খাবার দিতে যান ফয়াজ মিয়া। এসময় ফার্মের উঠের লাথিতে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান তিনি। খবর পেয়ে স্থানীয় প্রশাসন তার লাশ উদ্ধার করে ইবরা হাসপাতালে নিয়ে যায়।

এদিকে ছেলের মৃত্যুর খবর শুনে মা, ভাই-বোনসহ আত্মীয় স্বজনের বুকফাটা কান্নায় শোকাবহ পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে বাড়িতে। ছেলেকে শেষ বারের মতো দেখার জন্য বার বার বিলাপ করেছেন নিহত ফয়াজের বৃদ্ধ মা।#

পোস্ট শেয়ার করুন

উঠের লাথিতে প্রাণ গেলো কুলাউড়ার ফয়াজ মিয়ার

আপডেটের সময় : ০৪:৩৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২০

মধ্যপ্রাচ্যের ওমানে উঠের লাথিতে ফয়াজ মিয়া (২৫) নামক এক বাংলাদেশি যুবকের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। বুধবার ১২ আগস্ট রাত ৮ টার (বাংলাদেশ টাইম) দিকে মারা যান তিনি। নিহত ফয়াজ কুলাউড়া উপজেলার জয়চন্ডী ইউনিয়নের দক্ষিণ দিলদারপুর গ্রামের মৃত সোনা মিয়ার ছেলে।

নিহত ফয়াজের ছোট ভাই মো. রেনু মিয়া জানান, সাড়ে তিন বছর আগে মধ্যপ্রাচ্যের ওমানে পাড়ি জমিয়েছিলেন ফয়াজ। তিনি ওমানের ইবরা শহরে একটি সবজি বাগানে কাজ করতেন। এছাড়াও তিনি ওই বাগানের পাশেই একটি উঠের ফার্মে পার্ট টাইম কাজ করতেন। প্রতিদিনের ন্যায় বুধবার বাংলাদেশ টাইম রাত ৮ টার দিকে উঠকে খাবার দিতে যান ফয়াজ মিয়া। এসময় ফার্মের উঠের লাথিতে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান তিনি। খবর পেয়ে স্থানীয় প্রশাসন তার লাশ উদ্ধার করে ইবরা হাসপাতালে নিয়ে যায়।

এদিকে ছেলের মৃত্যুর খবর শুনে মা, ভাই-বোনসহ আত্মীয় স্বজনের বুকফাটা কান্নায় শোকাবহ পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে বাড়িতে। ছেলেকে শেষ বারের মতো দেখার জন্য বার বার বিলাপ করেছেন নিহত ফয়াজের বৃদ্ধ মা।#